মানুষের কাছে ন্যায্যমূল্যে পণ্য পৌঁছে দিতে টিসিবি কাজ করছে : বাণিজ্য প্রতিমন্ত্রী

বাণিজ্য প্রতিমন্ত্রী আহসানুল ইসলাম টিটু বলেছেন, স্বল্প আয়ের জনসাধারণের সুবিধার্থে ভর্তুকি দিয়ে টিসিবির মাধ্যমে নিত্যপ্রয়োজনীয় পণ্য বিক্রয় করা হচ্ছে। শুধু ভর্তুকি সুবিধা নয়, সকল পণ্য যেন ন্যায্যমূল্যে মানুষের কাছে পৌঁছাতে পারে সেজন্য টিসিবি কাজ করছে।
মঙ্গলবার রাজধানীর বারিধারা এলাকায় টিসিবির মে মাসের পণ্য বিক্রয় কার্যক্রমের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে তিনি এ কথা বলেন।
প্রতিমন্ত্রী আরও বলেন, নিত্যপ্রয়োজনীয় পণ্যের সরবরাহ ঠিক রাখতে পারলে কেউ কারসাজি করতে পারবে না।
তিনি বলেন, নিত্যপ্রয়োজনীয় পণ্য যেন সাধারণ মানুষ পায়, সেটাই টিসিবির উদ্দেশ্য।
আগামীতে টিসিবির পণ্যের সংখ্যা আরও বাড়ানোর চিন্তা রয়েছে উল্লেখ করে প্রতিমন্ত্রী বলেন, রমজানের সময় ভারতে যখন পেঁয়াজ রপ্তানির নিষেধাজ্ঞা ছিল তখন বিশেষ ব্যবস্থায় ট্রেনে পেঁয়াজ এনে সাধারণ মানুষের কাছে পৌঁছে দেওয়া হয়েছে। এজন্য অনেক কাজ করতে হয়েছে। আমাদের লক্ষ্য ছিল সাধারণ মানুষ যেন ন্যায্যমূল্যে পণ্য পায়।
১ কোটি পরিবারের যে তালিকা টিসিবির কাছে রয়েছে তা সংশোধনের উপর গুরুত্বারোপ করে প্রতিমন্ত্রী তালিকা সংশোধন করার ব্যাপারে সহযোগিতা করার জন্য স্থানীয় জনপ্রতিনিধিদের প্রতি আহবান জানান।
আহসানুল ইসলাম বলেন, বিভিন্ন সময় বিভিন্ন সরকার ক্ষমতায় ছিল। বিশেষ করে সামরিক সরকার ক্ষমতায় থেকে টিসিবিকে একেবারে ভঙ্গুর অবস্থায় নিয়ে গিয়েছিল। সেই টিসিবিকে আবার ঘুরে দাঁড় করাতে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা আমাদের নির্দেশ দিয়েছেন। তাই কেবল ভর্তুকি দিয়ে নয়, প্রতিটি পণ্য যেন ন্যায্যমূল্যে মানুষের কাছে পৌঁছাতে পারি সেলক্ষ্যে টিসিবি কাজ করে যাচ্ছে।
তিনি বলেন,সবাই যখন নির্বাচন নিয়ে ব্যস্ত ছিল, তখন ডলার সংকটের মধ্যেও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা সাড়ে ১৩ লাখ টন নিত্যপ্রয়োজনীয় পণ্য আমদানি করে দিয়েছিলেন। কারণ তিনি জানতেন ভোটের পরেই রমজান আসছে। আমি দায়িত্ব নেওয়ার পর তিনি আমাকে বলেছিলেন, তোমার চিন্তা করার দরকার নেই। যথেষ্ট খাদ্যপণ্য আছে। কিন্তু এটার ব্যবস্থাপনা যেন সুষ্ঠু হয় সেদিকে খেয়াল রাখবে।
অনুষ্ঠানে বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ের সিনিয়র সচিব তপন কান্তি ঘোষসহ টিসিবির কর্মকর্তা ও স্থানীয় জনপ্রতিনিধিরা উপস্থিত ছিলেন।

সর্বশেষ