Saturday, June 25, 2022
Homeঅর্থনীতিAnti Tobacco Activists Urged Govt to Hike Prices in Finalized Budget

Anti Tobacco Activists Urged Govt to Hike Prices in Finalized Budget

Anti Tobacco Activists Urged Govt to Hike Prices in Finalized Budget

Dhaka June 18 2022 :

The proposed budget for FY 2022-23, if finally adopted and realized, will increase the use of cigarettes and other tobacco products among the poor and the youth.

It will deprive the government of additional revenue and, at the same time, hike health expenditure. As the proposed budget has kept the supplementary duty unchanged and failed to introduce specific tax system, the opportunity for tobacco companies to exponentially expand their profit remains wide open.

Speakers said this today during a post-budget press conference, jointly organized by PROGGA (Knowledge for Progress) and Anti-Tobacco Media Alliance (ATMA) held at the Nasrul Hamid Auditorium of the Dhaka Reporters Unity. The event was supported by the Campaign for Tobacco-Free Kids (CTFK).

It was informed in the post-budget press conference that the proposed budget raises the price for low-tier cigarettes by only 2.56 percent. 75 percent of all cigarette smokers are users of low-tier cigarettes, most of whom belong to the poor and the youth demographic categories. The medium, high, and premium tiers have seen a 3.17 percent, 8.82 percent, and 5.18 percent increase respectively.

Citing the Bangladesh Bureau of Statistics (BBS), speakers say that 2022 (provisional) has seen a 10 percent increase in the National Per Capita Income (nominal) over the previous year. Compared to the increase in per capita income, the hike in cigarette price will only make cigarettes more affordable and particularly encourage the youth to light up.

Speakers presented a comparative analysis of the average prices of essential commodities in the four metropolitan cities of Bangladesh (Dhaka, Chattogram, Rajshahi, and Khulna), as published on a daily basis by the Department of Agricultural Marketing (DAM), and said that the average price of soyabean oil has increased 45.18 percent in 2022 (June 8) compared to 2021 (June 8).

There has also been a significant increase in the prices of atta (44.63 percent), eggs (34.03 percent), lentil (25.43 percent), powdered milk (18.19 percent), broiler chicken (16.63 percent), and miniket rice (12.5 percent). However, the price of low-tier cigarettes, which constitute 75 percent of the cigarette market, has seen a meagre 2.56 percent rise, and the prices of jarda, gul, and bidi have been kept unchanged. As a result, tobacco products will become much cheaper compared to essential commodities, encouraging the youth and the poor to get hooked on this deadly addiction and putting public health in grave danger.

It was also discussed in the press conference that the supplementary duty on low-tier cigarettes has been kept unchanged at the existing 57 percent while the retail price has seen Taka 1 increase. Such an arrangement means that a significant portion of this additional revenue generated from this increase will be pocketed by tobacco companies. The World Health Organization (WHO) recommends that the supplementary duty be at least 70 percent of the retail price. Besides, ignoring the anti-tobacco organizations’ demand to introduce specific supplementary duties will complicate revenue collection and allow tobacco companies to benefit from rampant tax evasion and other ways.

In his speech as the chief guest of the event, eminent economist and convener of the National Anti-Tobacco Platform, Dr. Qazi Kholiquzzaman Ahmad said, “In the highly-used low-tier cigarettes, the price has been increased by only 10 paisa per stick. The prices of jarda, gul and bidi have not been increased at all. This will do nothing to reduce tobacco use. In contrast, if the government implements our proposals, it will exponentially increase revenue earning and facilitate in building a tobacco-free country.”

Dr. Mahfuz Kabir, Research Director of Bangladesh Institute of International and Strategic Studies (BIISS), said, “The price of tobacco products should be hiked by imposing specific supplementary duty. It will reduce the complicacy in revenue collection, make it easier to predict revenue accumulation and above all, help National Board of Revenue to advance a step towards the implementation of a simple tobacco tax policy as declared by the Honorable Prime Minister.”

The following proposals have been presented in the press conference to be included in the finalized FY 2022-23 budget:

Cigarette: The retail price for 10 sticks of low-tier cigarettes should be set at 50, followed by BDT 32.50 as specific supplementary duty (SD). In the medium-tier, the retail price should be set at BDT 75 and Supplementary Duty at BDT 48.75. In the high and premium tier, the retail prices for 10 sticks each should be Taka 120 and Taka 150 respectively, and be followed by the specific supplementary duty of Taka 78 ad Taka 97.50 respectively.

Bidi: For non-filtered bidis, the retail price should be BDT 25 for 25 sticks, followed by Taka 11.25 as a specific supplementary tax. For filtered bidis, the retail price and specific supplementary duty for 20 sticks should be Taka 20 and Taka 9 respectively.

Jarda and Gul: The retail prices for 10 grams of jarda should be BDT 45, followed by BDT 27.00 (60 percent) as a specific supplementary tax. For 10 grams of gul, the retail price should be BDT 25 and supplemented by BDT 15 as a specific supplementary tax.

Introducing specific supplementary duty in the finalized budget and raising the prices of cigarettes and other tobacco products as mentioned above, will encourage 1.3 million adults to quit smoking, and in the long run, prevent the deaths of 445,000 adults and 448,000 youths, and generate additional revenue worth BDT 9,200 crores from cigarettes alone as supplementary duty, health development surcharge, and VAT.

The event was attended by Dr. Rumana Haq, Professor, Department of Economics, University of Dhaka,  Md. Ataur Rahman, Senior Policy Advisor, CTFK Bangladesh, Md. Abdus Salam Grants Manager, CTFK Bangladesh, Mortuza Haider Liton, convener of ATMA, ABM Zubair, Executive Director, PROGGA, and also leaders and representatives from different media and anti-tobacco organizations. Nadira Kiron, Co-convener of ATMA, hosted the event whereas Md. Hasan Shahriar, Head of Tobacco Control, PROGGA, presented the budget analysis and demands.

 

তামাকপণ্য : চূড়ান্ত বাজেটে কার্যকরভাবে দাম বাড়ানোর আহ্বান তামাকবিরোধী নেতৃবৃন্দের

 

ঢাকা ১৮ জুন ২০২২ :

 

আগামী ২০২২-২৩ অর্থবছরের প্রস্তাবিত বাজেট পাস হলে তরুণ ও দরিদ্র জনগোষ্ঠির মধ্যে সিগারেটসহ সবধরনের তামাকপণ্যের ব্যবহার বাড়বে। স্বাস্থ্য ব্যয় বেড়ে যাবে এবং অতিরিক্ত রাজস্ব আয় থেকে বঞ্চিত হবে সরকার।

সম্পূরক শুল্কহার অপরিবর্তিত রাখায় এবং সুনির্দিষ্ট করপদ্ধতি চালু না করায় তামাক কোম্পানির মুনাফা বৃদ্ধির সুযোগ অব্যাহত থাকবে। আজ ঢাকা রিপোর্টার্স ইউনিটির নসরুল হামিদ মিলনায়তনে ক্যাম্পেইন ফর টোব্যাকো ফ্রি কিড্স (সিটিএফকে) এর সহায়তায় প্রজ্ঞা (প্রগতির জন্য জ্ঞান) এবং অ্যান্টি টোব্যাকো মিডিয়া এলায়েন্স- আত্মা আয়োজিত তামাক কর বিষয়ক বাজেট পরবর্তী সংবাদ সম্মেলনে এসব মতামত তুলে ধরেন অর্থনীতিবিদসহ তামাকবিরোধী নেতৃবৃন্দ।

সংবাদ সম্মেলনে প্রজ্ঞা ও আত্মা’র পক্ষ থেকে জানানো হয় প্রস্তাবিত বাজেটে নিম্ন স্তরের সিগারেটের দাম বাড়ানো হয়েছে মাত্র ২.৫৬ শতাংশ। বর্তমানে সিগারেট বাজারের ৭৫ শতাংশই নিম্ন স্তরের দখলে যার প্রধান ভোক্তা মূলত তরুণ ও দরিদ্র জনগোষ্ঠী। মধ্যম, উচ্চ এবং অতি উচ্চ স্তরে দাম বাড়ানোর প্রস্তাব করা হয়েছে যথাক্রমে ৩.১৭ শতাংশ, ৮.৮২ শতাংশ এবং ৫.১৮ শতাংশ।

বাংলাদেশ পরিসংখ্যান ব্যুরোর (বিবিএস) তথ্য তুলে ধরে সংবাদ সম্মেলনে জানানো হয় ২০২১ সালের তুলনায় ২০২২ সালে (প্রভিশনাল) জনগণের মাথাপিছু আয় বেড়েছে প্রায় ১০ শতাংশ (নমিনাল)। সিগারেটের দামবৃদ্ধি মাথাপিছু আয় বৃদ্ধির তুলনায় খুবই কম হওয়ায় সিগারেট আরো সহজলভ্য হবে এবং তরুণরা সিগারেট ব্যবহারে বিশেষভাবে উৎসাহিত হবে।

কৃষি বিপণন অধিদপ্তর কর্তৃক প্রকাশিত তথ্য থেকে চারটি মহানগরীর (ঢাকা, চট্টগ্রাম, রাজশাহী এবং খুলনা) নিত্যপ্রয়োজনীয় পণ্যের দৈনিক গড় খুচরা মূল্যের তুলনামূলক বিশ্লেষণ তুলে ধরে সংবাদ সম্মেলনে জানানো হয়, ২০২১ সালের (৮ জুন) তুলনায় ২০২২ সালে (৮ জুন) সয়াবিন তেলের দাম বেড়েছে ৪৫.১৮ শতাংশ, আটার দাম ৪৪.৬৩ শতাংশ, ডিমের দাম ৩৪.০৩ শতাংশ, মসুর ডালের দাম ২৫.৪৩ শতাংশ, গুঁড়ো দুধের দাম ১৮.১৯ শতাংশ, ব্রয়লার মুরগির দাম ১৬.৬৩ শতাংশ এবং মিনিকেট চালের দাম বেড়েছে ১২.৫ শতাংশ। অথচ প্রস্তাবিত বাজেটে সিগারেট বাজারের ৭৫ শতাংশ দখলে থাকা নিম্ন স্তরের সিগারেটের দাম বাড়ানো হয়েছে মাত্র ২.৫৬ শতাংশ এবং জর্দা, গুল ও বিড়ির দাম অপরিবর্তিত রাখা হয়েছে। ফলে নিত্যপণ্যের তুলনায় তামাকপণ্য আরো সস্তা হবে এবং তরুণ ও নিম্ন আয়ের মানুষ এসব পণ্য ব্যবহারে উৎসাহিত হবে, যা জনস্বাস্থ্যের জন্য মারাত্মক হুমকিস্বরূপ।

সংবাদ সম্মেলনে আরো জানানো হয় নিম্নস্তরের সিগারেটে সম্পূরক শুল্ক ৫৭ শতাংশ অপরিবর্তিত রেখে কেবল খুচরামূল্য ১ টাকা বাড়ানোর কারণে বর্ধিত মূল্যের একটা অংশ কোম্পানির পকেটে চলে যাবে। বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার সুপারিশ অনুযায়ী তামাকপণ্যে সম্পূরক শুল্কের পরিমাণ হবে খুচরামূল্যের কমপক্ষে ৭০ শতাংশ। এছাড়াও তামাকবিরোধীদের প্রস্তাব অনুযায়ী সম্পূরক শুল্ক সুনির্দিষ্ট আকারে আরোপ না করায় কর আহরণে জটিলতা বাড়বে এবং তামাক কোম্পানির কর ফাঁকিসহ নানাভাবে লাভবান হওয়ার সুযোগ অব্যাহত থাকবে।

সংবাদ সম্মেলনে প্রধান অতিথির বক্তব্যে বিশিষ্ট অর্থনীতিবিদ এবং জাতীয় তামাকবিরোধী মঞ্চের আহ্বায়ক ড. কাজী খলীকুজ্জমান আহমদ বলেন, “বহুল ব্যবহৃত সস্তা সিগারেটের দাম বাড়ানো হয়েছে শলাকাপ্রতি মাত্র ১০ পয়সা এবং গুল, জর্দা ও বিড়ির দাম ১ পয়সাও বাড়ানো হয়নি। এভাবে তামাকের ব্যবহার কমবে না।

আমাদের প্রস্তাব বাস্তবায়ন করলে সরকারের রাজস্ব আয় বহুগুণ বাড়বে এবং তামাকমুক্ত বাংলাদেশ অর্জনের পথ সুগম হবে।” বাংলাদেশ ইনস্টিটিউট অব ইন্টারন্যাশনাল অ্যান্ড স্ট্রাটেজিক স্টাডিজ (বিআইআইএসএস) এর রিসার্চ ডিরেক্টর ড. মাহফুজ কবীর বলেন, “সুনির্দিষ্ট সম্পূরক শুল্ক আরোপ করে তামকপণ্যের দাম বাড়াতে হবে। এতে রাজস্ব আহরণে জটিলতা কমবে, রাজস্ব প্রাপ্তি সম্পর্কে সঠিক পূর্বানুমান করা যাবে এবং সর্বোপরি প্রধানমন্ত্রী ঘোষিত সহজ তামাক করনীতি বাস্তবায়নের পথে একধাপ এগিয়ে যাবে জাতীয় রাজস্ব বোর্ড।”

সংবাদ সম্মেলনে ২০২২-২৩ সালের চূড়ান্ত বাজেটে অন্তর্ভুক্তির জন্য যেসব প্রস্তাব তুলে ধরা হয় সেগুলো হচ্ছে:

সিগারেট: নিম্ন স্তরে প্রতি ১০ শলাকা সিগারেটের খুচরা মূল্য ৫০ টাকা নির্ধারণ করে ৩২.৫০ টাকা সুনির্দিষ্ট সম্পূরক শুল্ক আরোপ, মধ্যম স্তরে ১০ শলাকা সিগারেটের খুচরা মূল্য ৭৫ টাকা নির্ধারণ করে ৪৮.৭৫ টাকা সুনির্দিষ্ট সম্পূরক শুল্ক আরোপ, উচ্চ স্তরে ১০ শলাকা সিগারেটের খুচরা মূল্য ১২০ টাকা নির্ধারণ করে ৭৮.০০ টাকা সুনির্দিষ্ট সম্পূরক শুল্ক আরোপ এবং প্রিমিয়াম বা অতি উচ্চ স্তরে প্রতি ১০ শলাকা সিগারেটের খুচরা মূল্য ১৫০ টাকা নির্ধারণ করে ৯৭.৫০ টাকা সুনির্দিষ্ট সম্পূরক শুল্ক আরোপ করা।

বিড়ি: ফিল্টারবিহীন ২৫ শলাকা বিড়ির খুচরা মূল্য ২৫ টাকা নির্ধারণ করে ১১.২৫ টাকা সুনির্দিষ্ট সম্পূরক শুল্ক আরোপ এবং ফিল্টারযুক্ত ২০ শলাকা বিড়ির খুচরা মূল্য ২০ টাকা নির্ধারণ করে ৯.০০ টাকা সুনির্দিষ্ট সম্পূরক শুল্ক আরোপ করা।

জর্দা এবং গুল: প্রতি ১০ গ্রাম জর্দার খুচরা মূল্য ৪৫ টাকা নির্ধারণ করে ২৭.০০ টাকা সুনির্দিষ্ট সম্পূরক শুল্ক আরোপ করা এবং প্রতি ১০ গ্রাম গুলের খুচরা মূল্য ২৫ টাকা নির্ধারণ করে ১৫.০০ টাকা সুনির্দিষ্ট সম্পূরক শুল্ক আরোপ করা।

তামাকবিরোধীদের প্রস্তাব অনুযায়ী চূড়ান্ত বাজেটে সুনির্দিষ্ট কর আরোপের মাধ্যমে সিগারেটসহ সকল তামাকপণ্যের দাম বৃদ্ধি করা হলে প্রায় ১৩ লক্ষ প্রাপ্তবয়স্ক ধূমপান থেকে বিরত থাকতে উৎসাহিত হবে,  দীর্ঘমেয়াদে ৪ লক্ষ ৪৫ হাজার প্রাপ্তবয়স্ক এবং ৪ লক্ষ ৪৮ হাজার তরুণ জনগোষ্ঠির অকাল মৃত্যু রোধ করা সম্ভব হবে এবং সিগারেট থেকে সম্পূরক শুল্ক, স্বাস্থ্য উন্নয়ন সারচার্জ এবং ভ্যাট বাবদ অতিরিক্ত ৯ হাজার ২০০ কোটি টাকা রাজস্ব আয় হবে। একইসাথে মাননীয় প্রধানমন্ত্রী প্রতিশ্রুত ২০৪০ সালের মধ্যে তামাকমুক্ত বাংলাদেশ অর্জন সহজ হবে।

সংবাদ সম্মেলনে আরো অংশ নেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের অর্থনীতি বিভাগের অধ্যাপক ড. রুমানা হক, ক্যাম্পেইন ফর টোব্যাকো ফ্রি কিডস (সিটিএফকে)- বাংলাদেশ এর  সিনিয়র পলিসি অ্যাডভাইজর মো. আতাউর রহমান এবং গ্রান্টস ম্যানেজার মো. আব্দুস সালাম, আত্মা’র কনভেনর মর্তুজা হায়দার লিটন, প্রজ্ঞা’র নির্বাহী পরিচালক এবিএম জুবায়েরসহ বিভিন্ন তামাকবিরোধী সংগঠনের নেতৃবৃন্দ। আত্মা’র কো-কনভেনর নাদিরা কিরণের সঞ্চালনায় প্রস্তাবিত বাজেট বিশ্লেষণ এবং দাবি তুলে ধরেন প্রজ্ঞা’র তামাক নিয়ন্ত্রণ বিষয়ক প্রকল্প প্রধান হাসান শাহরিয়ার।

RELATED ARTICLES

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

Most Popular