Saturday, June 25, 2022
Homeজাতীয়২৬ মে একনজরে বাংলাদেশ

২৬ মে একনজরে বাংলাদেশ

২৬ মে একনজরে বাংলাদেশ

 

রাষ্ট্রপতির সঙ্গে সুইডেনের নবনিযুক্ত রাষ্ট্রদূতের সাক্ষাৎ

 

বঙ্গভবন, ১২ জ্যৈষ্ঠ (২৬ মে) ২০২২ :

    

রাষ্ট্রপতি মোঃ আবদুল হামিদের সঙ্গে সন্ধ্যায় বঙ্গভবনে সাক্ষাৎ করেছেন সুইডেনে নবনিযুক্ত বাংলাদেশের রাষ্ট্রদূত মেহ্দী হাসান।

 

সাক্ষাৎকালে নতুন রাষ্ট্রদূত দায়িত্ব পালনে রাষ্টপতির দিক নির্দেশনা এবং সহযোগিতা কামনা করেন।

 

রাষ্ট্রপতি মোঃ আবদুল হামিদ বলেন, সুইডেনের সাথে দ্বিপাক্ষিক সম্পর্ক উন্নয়নের পাশাপাশি বাণিজ্য ও বিনিয়োগ বৃদ্ধির যথেষ্ট সুযোগ রয়েছে। এই সুযোগ কাজে লাগাতে নতুন রাষ্ট্রদূতকে নির্দেশ দেন রাষ্ট্রপতি। সুইডেনে বসবাসরত প্রবাসী বাংলাদেশিদের কল্যাণে কাজ করারও পরামর্শ দেন রাষ্ট্রপতি আব্দুল হামিদ।

 

এ সময় রাষ্ট্রপতির কার্যালয়ের সচিব সম্পদ বড়ুয়া, সামরিক সচিব মেজর জেনারেল এস এম সালাহ উদ্দিন ইসলাম, রাষ্ট্রপতির প্রেস সচিব মোঃ জয়নাল আবেদীন এবং সচিব সংযুক্ত মোঃ ওয়াহিদুল ইসলাম খান উপস্থিত ছিলেন।

 

 

মুক্তিযুদ্ধে সাংবাদিকদের অবদান জাতি চিরদিন স্মরণ করবে : মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক মন্ত্রী

 

ঢাকা, ১২ জ্যৈষ্ঠ (২৬ মে) ২০২২ :  

 

মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক মন্ত্রী আ ক ম মোজাম্মেল হক বলেছেন, মুক্তিযুদ্ধ চলাকালীন সাংবাদিকরা দেশে-বিদেশে বিশ্বজনমত গড়ে তুলতে গুরুত্বপূর্ণ অবদান রাখেন। যারা কলম সৈনিক, তারাও মুক্তিযোদ্ধা। মুক্তিযুদ্ধে  সাংবাদিকদের অবদান জাতি চিরদিন  স্মরণ করবে।

 

ঢাকা রিপোর্টার্স ইউনিটি (ডিআরইউ)-এর ২৭তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উপলক্ষ্যে সংগঠনটির মুক্তিযোদ্ধা সদস্যদের সংবর্ধনা অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তৃতায় মন্ত্রী আজ এসব কথা বলেন।

 

মোজাম্মেল হক বলেন, বীর মুক্তিযোদ্ধাদের জন্য খুব দ্রুতই আলাদা স্মার্টকার্ড তৈরি করা হবে। ইতোমধ্যে ৯০ শতাংশ কাজ শেষ হয়েছে। দ্রুতই উপজেলায় এগুলো পৌঁছে দেওয়া হবে। এখন পর্যন্ত এক লাখ ৮৭ হাজার মুক্তিযোদ্ধাকে তালিকাভুক্ত করা হয়েছে। নতুন করে আর কেউ তালিকায় স্থান পাবে না, তবে আপিল নিষ্পত্তি হবে। তাদের জন্য বিভিন্ন সুযোগ-সুবিধা নিশ্চিত করতে নীতিমালা প্রণয়ন হচ্ছে।

 

অনুষ্ঠানে মন্ত্রী ১৩ জন বীর মুক্তিযোদ্ধার হাতে সম্মাননা স্মারক তুলে দেন। সংবর্ধনা প্রাপ্ত বীর মুক্তিযোদ্ধারা হলেন- মৃণাল কৃষ্ণ রায়, মুহম্মদ শফিকুর রহমান, হারুন হাবীব, মোস্তাক আহমেদ মোবারকী, শফিকুল বাশার চপল, কার্তিক চ্যাটার্জী, আকরাম হোসেন খান, আজিজুল ইসলাম ভূঁইয়া, স্বপন দাশ গুপ্ত, শাহজাহান সরদার, তালুকদার হারুন, শংকর কুমার দে এবং হালিম আজাদ।

 

এ সময় ডিআরইউ-এর সভাপতি নজরুল ইসলাম মিঠু, সাধারণ সম্পাদক নুরুল ইসলাম হাসিব, ২৭তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উদ্‌যাপন কমিটির আহ্বায়ক ও ডিআরইউ-এর সাংগঠনিক সম্পাদক আবদুল্লাহ আল কাফি, প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উদ্‌যাপন কমিটির সদস্য সচিব ও ডিআরইউ-এর প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক কামাল উদ্দিন সুমনসহ অন্যরা উপস্থিত ছিলেন।

 

 

হজের প্যাকেজ মূল্য আরো ৫৯ হাজার টাকা বৃদ্ধির সিদ্ধান্ত : ধর্ম প্রতিমন্ত্রী

 

ঢাকা, ১২ জ্যৈষ্ঠ (২৬ মে) ২০২২ :

 

          ধর্ম প্রতিমন্ত্রী মোঃ ফরিদুল হক খান জানিয়েছেন, হজ ব্যবস্থাপনা সংক্রান্ত নির্বাহী কমিটির সভায় সৌদি কর্তৃপক্ষের নিকট হতে প্রাপ্ত হজের ব্যয় সম্পর্কিত তথ্যের ভিত্তিতে ইতিপূর্বে বাংলাদেশ সরকার ঘোষিত (প্রভিশনাল) প্যাকেজ-১ এবং প্যাকেজ-২ এর মূল্য সৌদি আরবে আবশ্যকীয় ব্যয় হিসেবে আরো ৫৯ হাজার টাকা বৃদ্ধির সিদ্ধান্ত গ্রহণ করা হয়েছে। প্রতিমন্ত্রী আজ বাংলাদেশ সচিবালয়ে নিজ দপ্তরে  আয়োজিত সংবাদ ব্রিফিংয়ে এসব তথ্য জানান।

          প্রতিমন্ত্রী  জানান, সৌদি কর্তৃপক্ষ  পবিত্র হজে  মিনায় অবস্থান স্থলে ও প্রদেয় সেবার মূল্যকে ৪ ক্যাটেগরিতে বিভক্ত করে ৪ ধাপের ব্যয় নির্ধারণ করেছে। এর মধ্যে সর্বনিম্ন ব্যয়ের ধাপ ‘ডি ও ‘সি’ প্রকাশ করেছে।  উক্ত তথ্য অনুযায়ী ধাপ ‘সি’ অনুসারে মোয়াল্লেম ফি ৮ হাজার ৬৪০ সৌদি রিয়াল এবং ‘ডি’অনুসারে ৭ হাজার ৪৯০ সৌদি রিয়াল ধার্য করা হয়েছে। উক্ত সেবা মূল্য বিবেচনায় ধাপ ‘সি’অনুসারে মোয়াল্লেম ফি ১ লাখ ৫ হাজার ৫৯৭ টাকা এবং ‘ডি’অনুসারে মোয়াল্লেম ফি ৭৪ হাজার ৫০০ টাকা বৃদ্ধি পায়।

          ধর্ম প্রতিমন্ত্রী জানান, বাংলাদেশের হজযাত্রীদের আর্থসামাজিক অবস্থা ও হজযাত্রীদের প্রতি বর্তমান সরকারের সহানুভূতিশীল দৃষ্টিভঙ্গি বিবেচনায় রেখে  বিভিন্ন সেবা হতে কিছু অর্থ সাশ্রয় করে উভয় প্যাকেজে ৫৯ হাজার টাকা বৃদ্ধির সিদ্ধান্ত গ্রহণ করা হয়েছে। তিনি বলেন, উক্ত টাকা  জমা দেয়ার তারিখ ২৮,২৯ ও ৩০ মে নির্ধারণ করে বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করা হবে। তাই টাকা জমা দেয়ার  লক্ষ্যে আগামী ২৮ মে শনিবার  দেশব্যাপী তফসিলি ব্যাংকসমূহ খোলা রাখার জন্য বাংলাদেশ ব্যাংককে  অনুরোধ জানানো হয়েছে।

          প্রতিমন্ত্রী আরো জানান, সরকারি ব্যবস্থাপনার সম্মানিত হজযাত্রীগণ নতুন ধার্যকৃত অর্থ Sale Proceeds of Hajj Deposit (হিসাব নম্বর ০০০২৬৩৩০০০৯০৮) নামে পে-অর্ডার প্রস্তুত করে ঢাকায় হজ অফিসে ৩০ মে এর মধ্যে জমা দিবেন। এক্ষেত্রে, মাহরামসহ হজযাত্রীদের একসঙ্গে পে-অর্ডার প্রস্তুত করতে হবে। পে-অর্ডার গ্রহণের জন্য ঢাকায় আশকোনা হজ অফিসে বিশেষ বুথ স্থাপন করা হয়েছে। বেসরকারি ব্যবস্থাপনার সম্মানিত হজযাত্রীগণ সমপরিমাণ অর্থ স্ব স্ব এজেন্সির ব্যাংক হিসাবে জমা দিবেন।

          ধর্ম প্রতিমন্ত্রী জানান গত ১১ মে হজ প্যাকেজ ২০২২ ঘোষণা করা হয়েছিল। তখন জানানো হয়েছিল, প্যাকেজ ঘোষণার পর রাজকীয় সৌদি সরকার কর্তৃক অতিরিক্ত কোনো চার্জ আরোপ করা হলে তা প্যাকেজ মূল্য হিসেবে গণ্য হবে এবং হজযাত্রীকে পরিশোধ করতে হবে। কোনো অর্থ অব্যয়িত থাকলে তা হাজীদের ফেরত প্রদান করা হবে। প্রতিমন্ত্রী বলেন, করোনা মহামারির কারণে রাজকীয় সৌদি সরকার কর্তৃক হজের ঘোষণার বিলম্বের জন্য এবং সৌদি আরব হতে প্রকৃত খরচের বিবরণী না পাওয়ায় সম্ভাব্য ব্যয় বিবেচনা করে প্রভিশনাল হজ প্যাকেজ প্রস্তুত করা হয়েছিল।

 

সচেতনতা সৃষ্টির মাধ‌্যমেই থ‌্যালাসেমিয়া রোগ মুক্ত বাংলাদেশ প্রতিষ্ঠা সম্ভব : মোস্তাফা জব্বার

 

ঢাকা, ১২ জ্যৈষ্ঠ (২৬ মে) ২০২২ :   

ডাক ও টেলিযোগাযোগ মন্ত্রী মোস্তাফা জব্বার বলেছেন, থ‌্যালাসেমিয়া মুক্ত বাংলাদেশ প্রতিষ্ঠায় দরকার মিডিয়া যুদ্ধের। একমাত্র সচেতনা সৃষ্টির মাধ‌্যমেই এই রোগকে শূন‌্যে নামিয়ে আনা সম্ভব। তিনি বলেন, বাঙালি কোনো যুদ্ধে পরাজিত হয়নি, দেশ থেকে  থ‌্যালাসেমিয়া নির্মূলের যুদ্ধেও আমরা হারবো না। থ‌্যালাসেমিয়ার কারণ ও এর প্রতিকারের উপায় সম্পর্কে জনসচেতনাতা সৃষ্টিতে গণমাধ‌্যমের ব‌্যাপক ভূমিকার প্রয়োজনীয়তার ওপর গুরুত্বারোপ করেন মন্ত্রী। তিনি বলেন, এই রোগ প্রতিরোধের অন‌্যতম উপায় হচ্ছে এই রোগের একজন বাহক আর একজন বাহককে বিয়ে করা থেকে বিরত থাকা।

মন্ত্রী আজ ঢাকায় ইনস্টিটউশন অভ্‌ ডিপ্লোমা ইঞ্জিনিয়ার্স বাংলাদেশ মিলনায়তনে বিশ্ব থ‌্যালাসেমিয়া দিবস উপলক্ষ‌্যে বাংলাদেশ থ‌্যালাসেমিয়া সমিতি ও হেমাটোকেয়ারের যৌথ উদ‌্যোগে আয়োজিত ‘থ‌্যালাসেমিয়া প্রতিরোধ-জাতীয় পরিকল্পনা প্রণয়নে বাহক নির্ণয়ে গুরুত্ব’ শীর্ষক অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তৃতায় এসব কথা বলেন।

মন্ত্রী করোনার ভয়াবহতারোধে দেশের চিকিৎসক সমাজের ভূমিকায় গভীর কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করে বলেন,  যুক্তরাষ্ট্রের মতো উন্নত দেশে করোনায় সর্বোচ্চ মানুষ মারা গেছে । টিকা উৎপাদন বা আবিষ্কার না করেও বিপুল জনগোষ্ঠীকে টিকা প্রদানে বাাংলাদেশ দৃষ্টান্ত স্থাপন করেছে। তিনি থ‌্যালাসেমিয়া রোগ সম্পর্কে সচেতনতা সৃষ্টিতে গণমাধ‌্যমের পাশাপাপি সামাজিক যোগাযোগ মাধ‌্যমেও কিভাবে সচেতনতা তৈরি করা যায় সে বিষয়টি তুলে ধরে বলেন, আগামী প্রজন্মের জন‌্য একটি সুন্দর বাংলাদেশ গড়ার জন‌্য আমরা মুক্তি যুদ্ধ করেছি। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার রূপকল্প ২০৪১ বাস্তবায়নে ডিজিটাল সাম‌্য সমাজ প্রতিষ্ঠার চলমান সংগ্রামে আমাদের নিজ নিজ অবস্থান থেকে কাজ করতে হবে। তিনি এসএমএস প্রদানের মাধ‌্যমে সচেতনতা সৃষ্টির ক্ষেত্রে সহযোগিতা করার আশ্বাস প্রদান করেন।

পরে মন্ত্রী থ‌্যালাসেমিয়া রোগী শনাক্তে ঢাকা, চট্টগ্রাম ও দিনাজপুর জেলায় পরিচালিত সমিতির স্ক্রিনিং প্রকল্পের উদ্বোধন করেন।

বাংলাদেশ থ‌্যালাসেমিয়া সমিতির ভারপ্রাপ্ত সভাপতি ড. এম এ মতিনের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে বাংলাদেশ থ‌্যালাসেমিয়া সমিতির উপদেষ্টা, প্রাক্তন মন্ত্রী সৈয়দ দীদার বখত; তথ‌্য ও সম্প্রচার মন্ত্রণালয় সংক্রান্ত সংসদীয় স্থায়ী কমিটির সদস‌্য মোহাম্মদ এবাদুল করিম-এমপি; এমিরেটাস অধ‌্যাপক, প্রধানমন্ত্রীর ব‌্যক্তিগত চিকিৎসক ডা. এবিএম আব্দুল্লাহ; জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান স্মৃতি জাদুঘরের কিউরেটর এন আই খান; স্বাস্থ‌্য সেবা বিভাগের অতিরিক্ত সচিব মোঃ এনামুল হক এবং ঢাকা মেডিক‌্যাল কলেজের অধ‌্যক্ষ ডা. মোহাম্মদ টিটু মিয়া বক্তৃতা করেন। মূল প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন প্রফেসর ডা. এম এ খান, ‍অনুষ্ঠানটি সঞ্চালনা করেন ঢাকা মেডিক‌্যাল কলেজের সহকারী অধ‌্যাপক ডা. মাফরুহা আক্তার । অনুষ্ঠানে থ‌্যালাসেমিয়া রোগ সম্পর্কে অভিব‌্যক্তি প্রকাশ করেন থ‌্যালাসেমিয়া আক্রান্ত রোগী নওশীন তাজনীন।

 

সুন্দর বাংলাদেশ বিনির্মাণে শেখ হাসিনার উপর আস্থা রাখার আহ্বান প্রাণিসম্পদ মন্ত্রীর

 

ঢাকা, ১২ জ্যৈষ্ঠ (২৬ মে) ২০২২ :

          ব-দ্বীপ পরিকল্পনা বাস্তবায়নের মাধ্যমে ভবিষ্যতের সুন্দর বাংলাদেশ বিনির্মাণে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার উপর আস্থা রাখার আহ্বান জানিয়েছেন মৎস্য ও প্রাণিসম্পদ মন্ত্রী শ ম রেজাউল করিম।

          আজ রাজধানীর একটি হোটেলে বাংলাদেশ ব-দ্বীপ পরিকল্পনা ২১০০ নিয়ে অনুষ্ঠিত আন্তর্জাতিক সম্মেলনের ‘ইনস্টিটিউশনাল চ্যালেঞ্জেস অ্যান্ড অপরচুনিটিস উইথ ইন্টারন্যাশনাল লেসন’ বিষয়ক প্যানেল ডায়ালগে বিভিন্ন অংশীজনদের আলোচনার প্রেক্ষিতে এ আহ্বান জানান মন্ত্রী।

          মন্ত্রী বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ব-দ্বীপ পরিকল্পনা প্রণয়ন করেছেন, যা সারা বিশ্বের কাজে আসবে। তিনি বলেন, ভবিষ্যত প্রজন্মের জন্য বাসযোগ্য পৃথিবী গড়ে তোলা আমাদের কর্তব্য। এ জন্য ব-দ্বীপ পরিকল্পনার যথাযথ বাস্তবায়ন খুবই গুরুত্বপূর্ণ। এ সময় ব-দ্বীপ পরিকল্পনা বাস্তবায়নের জন্য সরকার আইন প্রণয়ন করবে উল্লেখ করে মন্ত্রী বলেন, ব-দ্বীপ আইন কার্যকর  হলে এ বিষয়টির সাংবিধানিক ভিত্তি তৈরি হবে।

           রেজাউল করিম আরো বলেন, ইতোমধ্যে প্রয়োজনের ওপর ভিত্তি করে অর্থায়ন, আঞ্চলিক ও আন্তর্জাতিক সহযোগিতার বিষয়গুলো অন্তর্ভুক্তির মাধ্যমে আমাদের ব-দ্বীপ পরিকল্পনার বাস্তবায়ন কাজ এগিয়ে যাচ্ছে। এ প্রক্রিয়া অব্যাহত থাকবে। এ সময় মন্ত্রী ব-দ্বীপ পরিকল্পনা ২১০০ বাস্তবায়নে আগামী দিনে বাংলাদেশের চ্যালেঞ্জ ও সম্ভাবনা তুলে ধরেন এবং এক্ষেত্রে নেদারল্যান্ডসসহ বিশ্বের অন্যান্য দেশের সহযোগিতা কামনা করেন।

          বিশ্বব্যাংকের সাউথ এশিয়া সাসটেইনেবল ডেভেলপমেন্ট এর রিজিওনাল ডিরেক্টর জন রুম এবং ইন্টারন্যাশনাল সেন্টার ফর ক্লাইমেট চেঞ্জ অ্যান্ড ডেভেলপমেন্ট (আইসিসিএইসিডি) এর অধ্যাপক ড. সালেমুল হকের সঞ্চালনায় প্যানেল ডায়ালগে আরো উপস্থিত ছিলেন পরিবেশ, বন ও জলবায়ু পরিবর্তন মন্ত্রী মোঃ শাহাব উদ্দিন, বাংলাদেশে নিযুক্ত নেদারল্যান্ডসের রাষ্ট্রদূত অ্যান ভ্যান লিউয়েন, পানিসম্পদ প্রতিমন্ত্রী জাহিদ ফারুক, বিশ্বব্যাংকের কান্ট্রি ডিরেক্টর মার্সি টেম্বন, পরিকল্পনা কমিশনের সাধারণ অর্থনীতি বিভাগের সদস্য ড. মোঃ কাউসার আহাম্মেদ।

 

 

মাধ্যমিক ও উচ্চ শিক্ষা বিভাগের সকল অফিসে অভিযোগ বাক্স সচল রাখার নির্দেশ সচিবের

 

ঢাকা, ১২ জ্যৈষ্ঠ (২৬ মে)  ২০২২ : 

            সেবা গ্রহিতাদের হয়রানি বন্ধ এবং দুর্নীতি প্রতিরোধের লক্ষ্যে মাধ্যমিক ও উচ্চ শিক্ষা বিভাগ এবং এর অধীন সকল দপ্তর ও সংস্থায় অভিযোগ বাক্সগুলো সচল করার নির্দেশ দিয়েছেন মাধ্যমিক ও উচ্চ শিক্ষা বিভাগের সচিব মোঃ আবু বকর ছিদ্দীক। তিনি বলেন, অভিযোগ বাক্সের চাবি থাকবে অফিস প্রধানের কাছে যা মাসে একবার খোলা হবে, খোলার পরে কোনো কিছু না পড়েই প্রত্যেক অভিযোগ রেজিস্টারে লিপিবদ্ধ করতে হবে এবং প্রত্যেক মাসে অভিযোগের বিষয়ে কী ব্যবস্থা নেয়া হয়েছে তা বিভাগের মাসিক সমন্বয় সভায় আলোচনা করতে হবে মর্মে নির্দেশনা প্রদান করেন মাধ্যমিক ও উচ্চ শিক্ষা সচিব।

          দুর্নীতি দমন কমিশন কর্তৃক প্রদত্ত মাধ্যমিক ও উচ্চ শিক্ষা বিভাগের দুর্নীতির  প্রতিবেদন এবং তা প্রতিরোধে করণীয় সংক্রান্ত সুপারিশমালার বিষয়ে করণীয় নির্ধারণের লক্ষ্যে আজ মন্ত্রণালয়ের সম্মেলন কক্ষে অনুষ্ঠিত এক সভায় সচিব এই নির্দেশ দেন। সচিব মোঃ আবু বকর ছিদ্দীকের সভাপতিত্বে সভায় মাধ্যমিক ও উচ্চ শিক্ষা বিভাগের সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তা এবং অধীনস্ত বিভিন্ন দপ্তর ও সংস্থার প্রধানগণ উপস্থিত ছিলেন।

           সচিব বলেন, শিক্ষা সব কিছুর ওপরে। শিক্ষাসংশ্লিষ্ট ব্যক্তিরা যদি আলোকিত না হয় তাহলে অন্যরা কিভাবে আলোকিত হবে। আমাদের উদাহরণ স্থাপন করতে হবে। আমাদের সততা, নিষ্ঠা ও আন্তরিকতার সাথে কাজ করতে হবে। তিনি এ সময় মাধ্যমিক ও উচ্চ শিক্ষা বিভাগের বিভিন্ন দপ্তর, সংস্থার দুর্নীতির বিষয়ে দুর্নীতি দমন কমিশনের প্রদত্ত প্রতিবেদনের বিভিন্ন ইস্যু নিয়ে আলোচনা করেন এবং সংশ্লিষ্ট সংস্থা ও বিভাগকে ব্যবস্থা নিতে নির্দেশ দেন।

 

সনাতন কৃষি আধুনিক কৃষিতে রূপান্তরিত হচ্ছে : কৃষিমন্ত্রী

 

ঢাকা, ১২ জ্যৈষ্ঠ (২৬ মে) ২০২২ :     

 

 কৃষিমন্ত্রী ও আওয়ামী লীগের প্রেসিডিয়াম সদস্য ড. মোঃ আব্দুর রাজ্জাক বলেছেন, কৃষিতে এখন সরকারের মূল লক্ষ্য হলো কৃষিকে বাণিজ্যিক ও আধুনিক করা। সেজন্য, কৃষির রূপান্তরে সরকার কাজ করছে। যান্ত্রিকীকরণে বিশাল ভর্তুকি দেয়া হচ্ছে। এছাড়া, এগ্রো- প্রসেসিং, ফসলের উন্নত জাত ও প্রযুক্তি উদ্ভাবন এবং জলবায়ু পরিবর্তনসহনশীল কৃষিতে অত্যন্ত গুরুত্ব দেয়া হচ্ছে। ফলে, সনাতন কৃষি আধুনিক কৃষিতে রূপান্তরিত হচ্ছে। 

আজ ঢাকায় হোটেল সোনারগাঁওয়ে বাংলাদেশ ডেল্টা প্ল্যান ২১০০ আন্তর্জাতিক কনফারেন্সে ‘কৃষির রূপান্তর’ শীর্ষক সেশনে মন্ত্রী এসব কথা বলেন।

মন্ত্রী বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার কৃষিবান্ধব উদ্যোগের ফলে বিগত ১৩ বছরে দেশের কৃষিতে বিস্ময়কর সাফল্য অর্জিত হয়েছে। যে দেশটি একসময় খাদ্য ঘাটতির দেশ হিসাবে বিশ্বে পরিচিত ছিল, তা আজ খাদ্যে স্বয়ংসম্পূর্ণ। করোনা ও যুদ্ধসহ বর্তমান কঠিন বৈশ্বিক পরিস্থিতিতেও দেশে খাদ্য সংকট দেখা দেয়নি।

দেশে কৃষি ও খাদ্য নিরাপত্তায় আগামী দিনের চ্যালেঞ্জ তুলে ধরে মন্ত্রী বলেন, সীমিত সম্পদের সর্বোচ্চ ব্যবহারের মাধ্যমে খাদ্য নিরাপত্তাকে টেকসই করতে আমরা গুরুত্ব দিচ্ছি। পতিত জমিকে চাষের আওতায় আনা, খরা, লবণাক্ততাসহ বিভিন্ন প্রতিকূল এলাকায় ফসলের চাষ, শস্য নিবিড়তা বৃদ্ধি, বেশি উৎপাদনশীল জাতের উদ্ভাবন ও চাষ, ভূ-উপরিস্থ পানির ব্যবহার বৃদ্ধি এবং জলবায়ু পরিবর্তনসহনশীল কৃষির জন্য কাজ করছি। 

সেশনে মূল প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন নেদারল্যান্ডসের ওজেনিনজেন ইউনিভার্সিটি অ্যান্ড রিসার্চের প্রেসিডেন্ট লুইসি ফ্রেসকো। স্বাগত বক্তব্য রাখেন কৃষি মন্ত্রণালয়ের অতিরিক্ত সচিব মো. রুহুল আমিন তালুকদার। এ সময় ঢাকায় নিযুক্ত নেদারল্যান্ডসের রাষ্ট্রদূত অ্যান ভ্যান লিউয়েন, এফএওর বাংলাদেশ প্রতিনিধি রবার্ট সিম্পসন, বিশ্বব্যাংকের সিনিয়র রুরাল ডেভেলপমেন্ট স্পেশালিস্ট ক্রিশ্চিয়ান বার্জার উপস্থিত ছিলেন।

 

কৃষি উৎপাদন ব‍্যবস্থায় প্রযুক্তির ব‍্যবহার বৃদ্ধি করতে হবে : পল্লী উন্নয়ন ও সমবায় প্রতিমন্ত্রী

 

ঢাকা, ১২ জ্যৈষ্ঠ (২৬ মে) ২০২২ :

পল্লী উন্নয়ন ও সমবায় প্রতিমন্ত্রী স্বপন ভট্টাচার্য্য বলেছেন, কৃষি উৎপাদন ব‍্যবস্থায় প্রযুক্তির ব‍্যবহার বৃদ্ধি করতে হবে। প্রযুক্তিকে বাদ দিয়ে টেকসই কৃষি উৎপাদন ব্যবস্থা নিশ্চিত করা সম্ভব নয়। তিনি বলেন, প্রান্তিক কৃষক পর্যায়ে উন্নত প্রযুক্তির ব্যবহার বাড়াতে সরকারি বেসরকারি পর্যায়ে সমন্বিত উদ্যোগ নিতে হবে।

আজ রাজধানীর ইন্টারন্যাশনাল কনভেনশন সিটি বসুন্ধরায় তিন দিনব্যাপী দশম আন্তর্জাতিক কৃষি প্রযুক্তি মেলার উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে প্রতিমন্ত্রী এসব কথা বলেন।

প্রতিমন্ত্রী বলেন, দেশের সংকটকালীন মুহূর্তে বঙ্গবন্ধু কৃষির উন্নয়নে রূপরেখা প্রদান করেছিলেন যার ফলে পরবর্তীতে দেশ খাদ্য নিরাপত্তা ও স্বয়ংসম্পূর্ণতা অর্জনে সক্ষম হয়েছিল। তাঁরই সুযোগ্য কন্যা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বেও আধুনিক ও সমৃদ্ধ দেশ গড়ার প্রত্যয়ে বর্তমানে দেশে কৃষি ও কৃষকদের উন্নয়নে বিভিন্ন কর্মসূচি বাস্তবায়িত হচ্ছে ।

স্বপন ভট্টাচার্য্য বলেন, কৃষকদের ধান কাটার জন্যে কম্বাইন হারভেস্টর কেনার ক্ষেত্রে ভর্তুকি দিচ্ছে সরকার। এর সবচেয়ে বড় সুবিধা হলো, যেসব কৃষি উদ্যোক্তা অথবা কৃষক সমিতি হারভেস্টর কেনে, তাদের মোট দামের অর্ধেক ভর্তুকি দেয় সরকার। হাওড় অঞ্চলে এই ভর্তুকির পরিমাণ ৭০ শতাংশ।

এ মেলা আধুনিক কৃষি যন্ত্রপাতির বাজার সম্প্রসারণের মাধ্যমে দেশীয় প্রযুক্তির প্রসার ও প্রচারে সফল হবে এবং জাতীয় অর্থনীতিতেও গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখতে সক্ষম হবে বলে এ সময় আশাবাদ ব‍্যক্ত করেন প্রতিমন্ত্রী।

পল্লী উন্নয়ন একাডেমি বগুড়া’র মহাপরিচালক খলিল আহমেদের সভাপতিত্বে উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে অন‍্যান‍্যের মধ‍্যে বক্তব্য রাখেন বাংলাদেশ কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রফেসর ড.মন্জুরুল আলম, আরডিএ-এর পরিচালক ড. ফেরদৌস হোসেন খান এবং লিমরা ট্রেড ফেয়ারস্ এন্ড এক্সিবিশনস্ লি. ঢাকা’র পরিচালক কাজী ছারোয়ার উদ্দীন। এছাড়া অনুষ্ঠানে মূল প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন একুশে পদকপ্রাপ্ত বিশিষ্ট শিক্ষাবিদ প্রফেসর ড. জাহাঙ্গীর আলম।

উল্লেখ্য, মেলা আজ ২৬ মে থেকে ২৮ মে পর্যন্ত চলবে।                                                

 

ডিআরইউ’র প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীতে তথ্য ‍ও সম্প্রচার মন্ত্রী

রাষ্ট্রের চতুর্থ স্তম্ভ গণমাধ্যম সঠিকভাবে কাজ করলে রাষ্ট্র বিকশিত হয়

 

ঢাকা, ১২ জ্যৈষ্ঠ (২৬ মে) :

 

ঢাকা রিপোর্টার্স ইউনিটি প্রাঙ্গণে তথ্য ও সম্প্রচার মন্ত্রী জাতীয় পতাকা এবং ডিআরইউ সভাপতি সংগঠনের পতাকা উত্তোলনের মাধ্যমে ডিআরইউ’র প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীর অনুষ্ঠানের সূচনা করেন। পায়রা ও বেলুন উড়িয়ে বক্তৃতাপর্ব শেষে বর্ণাঢ্য র‌্যালিতে যোগ দেন মন্ত্রী। ডিআরইউ সভাপতি নজরুল ইসলাম মিঠুর সভাপতিত্বে ও সাধারণ সম্পাদক নূরুল ইসলাম হাসিবের সঞ্চালনায় জাতীয় প্রেসক্লাবের সভাপতি ফরিদা ইয়াসমিনসহ বিশিষ্ট সাংবাদিক নেতৃবৃন্দ এ সময় উপস্থিত ছিলেন। 

হাছান মাহ্‌মুদ তাঁর বক্তৃতায় বলেন, ২৭ বছরের পথ পরিক্রমায় ঢাকা রিপোর্টার্স ইউনিটি ঐক্যবদ্ধ থেকেছে, রাজনীতি থেকে দূরে থেকেছে, রাজনৈতিকভাবে বিভক্ত হয়নি, যা অত্যন্ত বড় সাফল্য বলে আমি মনে করি। আশা করি আগামী ৫০ বছর পরেও ঢাকা রিপোর্টার্স ইউনিটি ঐক্যবদ্ধ থাকবে। 

মন্ত্রী বলেন, ‘রাষ্ট্রের চতুর্থ স্তম্ভ গণমাধ্যম সঠিকভাবে কাজ করলে রাষ্ট্র বিকশিত হয়, সমাজ বিকশিত হয়, উপকৃত হয়। সেই কথাটি মাথায় রেখেই প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা গণমাধ্যমের উন্নয়নের জন্য অনেক পদক্ষেপ গ্রহণ করেছেন। গত সাড়ে ১৩ বছরে বাংলাদেশে গণমাধ্যমের ব্যাপক বিকাশ ঘটেছে।                

আজ থেকে ১৩ বছর আগে ১০টি টেলিভিশন চ্যানেল ছিলো, এখন প্রায় ৩৮টি প্রাইভেট টেলিভিশন চ্যানেল সম্প্রচারে আছে। আরো কয়েকটি সম্প্রচারে আসছে। বেসরকারি রেডিও ছিলো না, এখন ১২টির বেশি এফএম রেডিও এবং ১৮টির মতো কমিউনিটি রেডিও সম্প্রচারে আছে। পত্রিকার সংখ্যা সাড়ে ৪শ’ থেকে সাড়ে ১২শ’তে উন্নীত হয়েছে। অনলাইন গণমাধ্যম কত হাজার সেটি পরীক্ষা-নিরীক্ষার বিষয়, তবে আমাদের কাছে ৫ হাজারের বেশি আবেদন পড়েছে রেজিস্ট্রেশনের জন্য। আমরা গণমাধ্যমের বিকাশের স্বার্থে কাজ করছি। বাংলাদেশে গণমাধ্যম যেভাবে স্বাধীনভাবে কাজ করে, বাংলাদেশের গণমাধ্যমের যেভাবে বিকাশ হয়েছে, সেটি অনেক উন্নয়নশীল দেশের জন্য উদাহরণ।’ 

‘আমি সবসময় আপনাদের পাশে আছি, যখন মন্ত্রী ছিলাম না তখনও পাশে ছিলাম, এখন মন্ত্রী হিসেবে পাশে আছি, সবসময় তো কেউ মন্ত্রী থাকে না, তখনও আমি আপনাদের পাশে থাকবো’ বলেন ড. হাছান। 

ডিআরইউ সভাপতি নজরুল ইসলাম মিঠু তার শুভেচ্ছা বক্তৃতায় বলেন, যতদিন বাংলাদেশ থাকবে ততদিন দেশের গণতন্ত্রের অভিযাত্রায় ঢাকা রিপোর্টার্স ইউনিটি অগ্রণী ভূমিকা রেখে এগিয়ে যাবে। 

 

 

 

জনগণের দাবি খালেদা জিয়াকে আবার কারাগারে পাঠানো : তথ্য ও সম্প্রচার মন্ত্রী

 

ঢাকা, ১২ জ্যৈষ্ঠ (২৬ মে) ২০২২ :   

 

তথ্য ও সম্প্রচার মন্ত্রী এবং আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক ড. হাছান মাহ্‌মুদ বলেছেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার মহানুভবতা অনুধাবনে বিএনপির ব্যর্থতার কারণে জনগণ মনে করে খালেদা জিয়াকে আবারও কারাগারে পাঠানো উচিত।  

          আজ রাজধানীর সেগুনবাগিচায় ঢাকা রিপোর্টার্স ইউনিটি-ডিআরইউয়ের ২৭তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীর অনুষ্ঠানমালা উদ্বোধনে প্রধান অতিথির বক্তৃতা শেষে সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে মন্ত্রী একথা বলেন। 

ড. হাছান বলেন, ‘আমি কিছুক্ষণ আগে ফেইসবুকে দেখলাম, বেগম খালেদা জিয়া, মির্জা ফখরুল সাহেবরা সাঁতরে পদ্মা নদী পার হচ্ছেন। এর অর্থ হচ্ছে, অনেক মানুষ মনে করে তারা যেহেতু পদ্মা সেতুর বিরোধিতা করেছিলো, সেতুর বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্র করেছিলো, আওয়ামী লীগ সরকার সেটি করতে পারবে না বলে আস্ফালন করেছিলো, সেজন্য তাদের সাঁতরে পদ্মা পার হওয়া উচিত, সেতুর উপর দিয়ে নয়।’ 

‘বঙ্গবন্ধুকন্যা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা সব মানুষের জন্য এই পদ্মা সেতু নির্মাণ করেছেন, তবে যারা এর বিরোধিতা করেছিলো তাদের ক্ষমা চাওয়া উচিত’ বলেন মন্ত্রী। তিনি বলেন, ‘আজকে বিএনপি বিক্ষোভ প্রদর্শন করছে অথচ বেগম খালেদা জিয়াতো প্রধানমন্ত্রীকে হত্যা করার অপচেষ্টা চালিয়েছেন, ২১ আগস্ট গ্রেনেড হামলা সেটির প্রমাণ। সেই খালেদা জিয়া দণ্ডপ্রাপ্ত আসামি হওয়া সত্ত্বেও দু’বছর তাকে কারাগারের বাইরে রেখে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা যে মহানুভবতা দেখিয়েছেন, সেটি নিয়েই এখন অনেকে প্রশ্ন করছেন- এই মহানুভবতার মূল্য যারা দিতে জানে না, তাদের প্রতি এই মহানুভবতা কেন দেখাচ্ছেন, বেগম খালেদা জিয়াকে আবার কারাগারে পাঠানো উচিত।’ 

 

স্পিকারের সাথে সার্বিয়ার পররাষ্ট্রমন্ত্রীর সাক্ষাৎ

 

ঢাকা, ১২ জ্যৈষ্ঠ (২৬ মে) ২০২২ :

 

জাতীয় সংসদের স্পিকার ড. শিরীন শারমিন চৌধুরীর সাথে আজ সংসদ ভবনের কার্যালয়ে সার্বিয়ার পররাষ্ট্রমন্ত্রী নিকোলা সেলাকোভিচ সাক্ষাৎ করেন।

সাক্ষাৎকালে সার্বিয়া-বাংলাদেশ বন্ধুত্বপূর্ণ সম্পর্ক, সংসদীয় কূটনীতি, বাংলাদেশে চলমান উন্নয়ন কার্যক্রম, দক্ষ জনশক্তি, কোভিড পরবর্তী স্স্থিতিশীল অর্থনৈতিক অবস্থা, সার্বিয়ায় বাংলাদেশি শিক্ষার্থীদের স্কলারশিপ, ব্যবসা-বাণিজ্যের প্রসারসহ দ্বিপাক্ষিক বিভিন্ন বিষয় নিয়ে তারা আলোচনা করেন।

স্পিকার বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা এদেশের মানুষের মৌলিক চাহিদা ও জীবনমান উন্নয়নে নিরলস কাজ করছেন। সামাজিক নিরাপত্তা কর্মসূচি, খাদ্য নিরাপত্তা, আশ্রয়ণ প্রকল্পের মাধ্যমে ভূমিহীন ও গৃহহীনদের ঘর তৈরি, জলবায়ু পরিবর্তন মোকাবিলায় যুগোপযোগী পদক্ষেপ, দক্ষ দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা, নিজস্ব অর্থায়নে পদ্মা সেতু নির্মাণের মাধ্যমে দেশের অর্থনৈতিক সক্ষমতা বৃদ্ধি ও প্রধানমন্ত্রীর বহুমুখী উদ্যোগ দেশকে এগিয়ে নিয়ে যাচ্ছে।

পদ্মা সেতু নির্মাণ সফলভাবে সম্পন্ন হওয়ায় প্রধানমন্ত্রীকে অভিনন্দন জানিয়ে সার্বিয়ার পররাষ্ট্রমন্ত্রী নিকোলা সেলাকোভিচ বলেন, বাংলাদেশের অর্থনৈতিক, অবকাঠামোগত উন্নয়ন এবং নারীর ক্ষমতায়ন সত্যিই দৃশ্যমান ও অনুকরণীয়। বাংলাদেশের দক্ষ জনশক্তি সার্বিয়ায় সুনামের সাথে কাজ করছে। সংসদীয় মৈত্রী গ্রুপের মাধ্যমে দুদেশের সংসদের মধ্যে সম্পর্ক উন্নয়ন করা যেতে পারে। বাংলাদেশি শিক্ষার্থীদের জন্য স্কলারশিপ এবং বাংলাদেশ থেকে আরো দক্ষ জনশক্তি আমদানির আগ্রহ প্রকাশ করেন নিকোলা সেলাকোভিচ।

এসময় সার্বিয়ার দ্বিপাক্ষিক সম্পর্ক বিষয়ক এসিস্ট্যান্ট মিনিস্টার ভ্লাদিমির মারিক, সার্বিয়ার পররাষ্ট্রমন্ত্রীর বিশেষ উপদেষ্টা ইভান জাকসিক ও সংসদ সচিবালয়ের উর্ধ্বতন কর্মকর্তাগণ উপস্থিত ছিলেন।

 

 

রংপুরে ড. এম এ ওয়াজেদ মিয়া হাই-টেক পার্ক’-এর ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন

 

রংপুর, ১২ জ্যৈষ্ঠ (২৬ মে) ২০২২ :     

 

রংপুরের হারাগাছ উপজেলায় খলিশাকুড়িতে বাংলাদেশ ড. এম এ ওয়াজেদ মিয়া হাইটেক পার্ক –এর ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন হলো আজ। স্পিকার ড. শিরীন শারমিন চৌধুরী ভার্চুয়ালি যুক্ত হয়ে এবং তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ পলক সশরীরে উপস্থিত হয়ে এই ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন করেন।

বাংলাদেশ হাইটেক পার্ক এর অধীন জেলা পর্যায়ে আইটি হাইটেক পার্ক স্থাপন প্রকল্পের আওতায় এই পার্ক নিমির্ত হবে।

অনুষ্ঠানে স্পিকার প্রধান অতিথি হিসেবে ঢাকা থেকে অনলাইনে যুক্ত হয়ে শুভেচ্ছা বক্তব্য রাখেন।

এই হাই-টেক পার্ক রংপুরের তরুণ প্রজন্মের কর্মসংস্থানের ঠিকানা উল্লেখ করে প্রতিমন্ত্রী বলেন, এই পার্ক বাংলাদেশকে শ্রমনির্ভর অর্থনীতি থেকে জ্ঞান-নির্ভর, উন্নত অর্থনীতির স্মার্ট বাংলাদেশ বিনির্মাণে গুরুত্বপূর্ণ অবদান রাখবে।

অনুষ্ঠানে অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন বাংলাদেশ হাইটেক পার্ক এর ব্যবস্থাপনা পরিচালক বিকর্ণ কুমার ঘোষ।

জেলা পর্যায়ে আইটি হাইটেক পার্ক স্থাপন প্রকল্পের আওতায় ‘ড. এম এ ওয়াজেদ মিয়া হাই-টেক পার্কটি দশ একর জায়গার ওপর ১৭০ কোটি টাকা ব্যয়ে নির্মিত হচ্ছে।

 

 

প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয় ও যুক্তরাষ্ট্রের হার্ভার্ড কেনেডি স্কুলের মধ্যে সমঝোতা স্মারক স্বাক্ষর

 

ম্যাসাচুসেটস, ২৬ মে ২০২২ : 

প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের গভর্নেন্স ইনোভেশন ইউনিট এবং যুক্তরাষ্ট্রের হার্ভার্ড কেনেডি স্কুলের অ্যাশ সেন্টার ফর ডেমোক্রেটিক গভর্ন্যান্স অ্যান্ড ইনোভেশন-এর মধ্যে বাংলাদেশের জনপ্রশাসনের সক্ষমতা বৃদ্ধি ও শক্তিশালী করার লক্ষ্যে গতকাল ক্যামব্রিজের হার্ভার্ড কেনেডি স্কুলে একটি সমঝোতা স্মারক স্বাক্ষরিত হয়েছে। স্মারকটিতে বাংলাদেশ সরকারের পক্ষে প্রধানমন্ত্রীর মুখ্য সচিব ড. আহমদ কায়কাউস এবং হার্ভার্ড কেনেডি স্কুলের অ্যাশ সেন্টারের পক্ষে অধ্যাপক ডগলাস ডব্লিউ. এলম্যানডর্ফ স্বাক্ষর করেন। সমঝোতা স্মারক স্বাক্ষর অনুষ্ঠানে অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন অর্থ বিভাগের সিনিয়র সচিব আবদুর রউফ তালুকদার, জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়ের সিনিয়র সচিব কে এম আলী আজম, নিউইয়র্কে বাংলাদেশের কনস্যুলেট জেনারেলের কনসাল জেনারেল ড. মোহাম্মদ মনিরুল ইসলাম প্রমুখ।

চুক্তি স্বাক্ষর অনুষ্ঠানে ড. কায়কাউস প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে বাংলাদেশের আর্থসামাজিক উন্নয়নের অগ্রযাত্রাকে তুলে ধরেন এবং ‘এসডিজি ২০৩০’ ও ‘রূপকল্প-২০৪১’ বাস্তবায়নের মাধ্যমে বাংলাদেশকে একটি উন্নত, সমৃদ্ধ দেশে পরিণত করার লক্ষ্যে সরকারের প্রচেষ্টা এবং প্রতিশ্রুতি ব্যক্ত করেন। তিনি আশা প্রকাশ করেন অ্যাশ সেন্টারের সাথে সহযোগিতা বাংলাদেশের জনপ্রশাসনে দক্ষ মানবসম্পদ তৈরিতে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করবে, যা জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের স্বপ্নের ‘সোনার বাংলা’ বিনির্মাণে তাৎপর্যপূর্ণ অবদান রাখবে। এ বছরটি বাংলাদেশ ও মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের কূটনৈতিক সম্পর্কের ৫০তম বার্ষিকী উদযাপনের কথা উল্লেখ করে ড. কায়কাউস দুই দেশের মধ্যকার বিরাজমান সহযোগিতামূলক সম্পৃক্ততা আরো শক্তিশালী করার প্রয়োজনীয়তার ওপর জোর দেন। শিক্ষা, গবেষণা ও উদ্ভাবনের ক্ষেত্রে বাংলাদেশ সরকার এবং হার্ভার্ড কেনেডি স্কুলের মধ্যকার সম্পৃক্ততা, আরো প্রসারিত ও গভীর হবে বলে তিনি আশাবাদ ব্যক্ত করেন।  

বাংলাদেশের উন্নয়ন অগ্রযাত্রার অংশীদার হওয়া অ্যাশ সেন্টারের জন্য বিশেষ গুরুত্ববহন করে উল্লেখ করে অধ্যাপক ডগলাস ডব্লিউ. এলম্যানডর্ফ এই সমঝোতা স্মারক বাস্তবায়নে বাংলাদেশ সরকারের সাথে ঘনিষ্ঠভাবে কাজ করার প্রত্যয় ব্যক্ত করেন। তিনি সাম্প্রতিককালে বাংলাদেশের অভূতপূর্ব আর্থসামাজিক অর্জন এবং এই সাফল্যের পেছনে বাংলাদেশের সক্রিয়, বাস্তববাদী নীতি ও কৌশলের পাশাপাশি দূরদর্শী নেতৃত্বের প্রশংসা করেন।

RELATED ARTICLES

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

Most Popular