সুশাসন নিশ্চিতে সরকারি ক্রয় কার্যক্রমে নাগরিকদের অংশগ্রহণ জরুরি : সচিব

0
98

সুশাসন নিশ্চিত করতে সরকারি ক্রয় কার্যক্রমে নাগরিকদের অংশগ্রহণ জরুরি : বাস্তবায়ন পরিবীক্ষণ ও মূল্যায়ন বিভাগের সচিব

 

ঢাকা ১৮ নভেম্বর ২০২১ :

“সরকারি ক্রয় কার্যে নাগরিকরা যতবেশি অংশগ্রহণ করবে, তত বেশি সুশাসন নিশ্চিত করা সম্ভব হবে”-বলেছেন পরিকল্পনা মন্ত্রণালয়ের অধীন বাস্তবায়ন পরিবীক্ষণ ও মূল্যায়ন বিভাগের সচিব আবু হেনা মোরশেদ জামান।

আজ অনলাইনে জুম ভিডিও কনফারেন্সিং প্লাটফর্মের মাধ্যমে বরিশাল জেলায় সরকারি ক্রয় কার্যক্রমে নাগরিক সম্পৃক্ততা বিষয়ক এক আলোচনাসভায় সভাপতির বক্তব্যে তিনি এ কথা বলেন। তিনি আরও বলেন, “কোন সিদ্ধান্ত বাস্তবায়নের ক্ষেত্রে যদি নাগরিকদের কথা শোনা যায়, তাহলে সুশাসন প্রণয়ন করা সহজতর হয়।“ নাগরিক, স্থানীয় সরকার প্রতিনিধি, ঠিকাদারসহ সকল অংশীজনদের একই ছাতার নিচে আসার আহ্বান জানিয়ে তিনি বলেন, “সরকারি ক্রয় কার্যে নারীরাও সমানভাবে সম্পৃক্ত হয়েছেন। আমি একে সাধুবাদ জানাই।“ অনুষ্ঠানে তাঁর বক্তব্যে সেরা নাগরিকদলকে প্রণোদনা দেয়ার ব্যাপারটিও উঠে আসে।

বক্তারা বলেন, সরকারি ক্রয় কাজে নাগরিক সম্পৃক্ততা বাস্তবায়নের ক্ষেত্রে সরকার যে কৌশল প্রণয়ন করবে, তা বাস্তবায়নের দায়িত্ব কারো একার নয়, সবারই। সরকারি ক্রয় কার্যক্রমে সকলের অংশগ্রহণ নিশ্চিত করতে ও পূর্নতা আনার চিন্তা থেকেই উপজেলাগুলোতে কাজের সাইটে আশেপাশের লোকজনদের নিয়ে একটি নাগরিক পর্যবেক্ষণ দল তৈরি করা হয়েছে। তাদের দায়িত্ব হচ্ছে ওই কাজের অগ্রগতি পর্যবেক্ষণ করা এবং কোনো অনিয়ম দেখলে স্থানীয় দায়িত্ত্বপ্রাপ্ত সরকারি কর্মকর্তাকে জানানো। এই দলটি “নাগরিক পর্যবেক্ষক দল” নামে পরিচিত।

অনুষ্ঠানে বক্তারা আরও জানান, পরিকল্পনা মন্ত্রণালয়ের অধীন বাস্তবায়ন পরিবীক্ষণ ও মূল্যায়ন বিভাগের সেন্ট্রাল প্রকিউরমেন্ট টেকনিক্যাল ইউনিট (সিপিটিইউ), “Digitizing Implementation Monitoring and Public Procurement Project (DIMAPPP)” এর আওতায় দেশের ৪৮টি উপজেলায় পর্যায়ক্রমে সরকারি ক্রয় কার্যের বাস্তবায়নে স্থানীয় নাগরিকদের সম্পৃক্ততার বিষয়ে কাজ করছে। আর ব্র্যাক বিশ্ববিদ্যালয়ের ব্র্যাক ইন্সটিটিউট অফ্ গভর্ন্যান্স এন্ড ডেভেলপমেন্ট (বিআইজিডি) এ কাজের জন্য সিপিটিইউ’র পরামর্শক হিসাবে দায়িত্ব পালন করছে।

DIMAPPP প্রকল্পের আওতায় প্রথম বছরে ১৬টি এবং দ্বিতীয় বছর থেকে আরও ৩২টি উপজেলাসহ মোট ৪৮টি উপজেলায় নাগরিকদের মাধ্যমে এই চুক্তি বাস্তবায়ন পরিবীক্ষণ চালু করা হয়েছে। ব্র্যাক এর কমিউনিটি এম্পাওয়ারমেন্ট অ্যান্ড লিগ্যাল প্রটেকশান (সেলপ) এই কাজে মাঠ পর্যায়ে বিআইজিডিকে সহযোগীতা করছে।

এই অনুষ্ঠানে অংশগ্রহণকারীরা মাঠ পর্যায়ে তাদের অর্জিত অভিজ্ঞতা বিনিময় করেন এবং সংশ্লিষ্ট স্টেকহোল্ডারগণের মতামত নেন।

সিপিটিইউ’র পরিচালক মোঃ আজিজ তাহের খান তাঁর সূচনা বক্তব্যে বলেন, “কোভিডের কারণে কিছু সমস্যার মুখোমুখী হলেও আমরা ভার্চুয়ালি কাজ করেছি। একইসাথে জনগণ যাতে সকল তথ্য পায়, ডিজিটাল পদ্ধতিতে সে ব্যবস্থাও নেয়া হচ্ছে।”

বিশেষ অতিথির বক্তব্যে বরিশালের জেলা প্রশাসক ও জেলা ম্যাজিস্ট্রেট জনাব জসীম উদ্দীন হায়দার বলেন, “ সরকার কর্তৃক যে ধরণের নির্দেশনা দেয়া হবে, জেলা প্রশাসন তা বাস্তবায়নে সর্বোচ্চ চেষ্টা করবে।”

অনুষ্ঠানে “সরকারি ক্রয় প্রক্রিয়ায় নাগরিক সম্পৃক্ততা ও কর্মশালার পরিপ্রেক্ষিত” শীর্ষক একটি পাওয়ার পয়েন্ট উপস্থাপনা করেন ডঃ মির্জা হাসান, সিনিয়র রিসার্চ ফেলো, বিআইজিডি।

সমাপনী বক্তব্যে অনুষ্ঠানের সভাপতি, সেন্ট্রাল প্রকিউরমেন্ট টেকনিক্যাল ইউনিট (সিপিটিইউ)-এর মহাপরিচালক জনাব মোঃ শোহেলের রহমান চৌধুরী উপস্থিত সবাইকে ধন্যবাদ জানিয়ে ভবিষ্যতে আরও কার্যকর কর্মপদ্ধতির আশাবাদ ব্যক্ত করেন। তিনি জানান যে, অনেকেই ই-জিপি এবং ক্রয় প্রক্রিয়ায় বিভিন্ন সমস্যা ও দুর্বলতা তুলে ধরেন। তিনি আশ্বাস দেন যে প্রতিটি ব্যাপারে তিনি যথাসম্ভব গুরুত্বারোপ করবেন এবং খতিয়ে দেখবেন।

অনুষ্ঠানে আরও উপস্থিত ছিলেন সিপিটিইউ’র উপপরিচালক মোঃ নাছিমুর রহমান শরীফ এবং প্রিন্সিপাল প্রোজেক্ট ম্যানেজমেন্ট কনসালটেন্ট মোস্তা গাউসুল হক। এছাড়া উক্ত অনুষ্ঠানে স্থানীয় পর্যায়ে সরকারি ক্রয়কারী প্রতিষ্ঠানের প্রতিনিধি, স্থানীয় দরদাতা ও জিটিএফ প্রতিনিধি, স্থানীয় সরকার প্রতিনিধি, নাগরিক সমাজের প্রতিনিধি এবং নাগরিক পর্যবেক্ষক দলের সদস্যরা উপস্থিত ছিলেন।

অনুষ্ঠানটি উপস্থাপনা করেন সিপিটিইউ’র সিনিয়র কমিউনিকেশন কনসালটেন্ট মোঃ সফিউল আলম।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here