বিসিকে ওয়ান স্টপ সার্ভিস সেবা চালুকরণে বিজনেস অটোমেশনের সাথে সমঝোতা স্বারক স্বাক্ষর
ঢাকা, ১২ এপ্রিল ২০২১
শিল্প মন্ত্রণালয়ের আওতাধীন সংস্থা বাংলাদেশ ক্ষুদ্র ও কুটির শিল্প করপোরেশন (বিসিক)-এ ওয়ান স্টপ সার্ভিস সেবা চালুকরণে নিমিত্তে ওয়ান স্টপ সার্ভিস সেবা প্রদানকারী প্রতিষ্ঠান বিজনেস অটোমেশন লিঃ সাথে এক সমঝোতা স্মারক স্বাক্ষরিত হয়েছে।
আজ ১২ এপ্রিল ২০২১ তারিখে বিসিক বোর্ড রুমে এ সমঝোতা স্মারক স্বাক্ষরিত হয়।
বিসিক চেয়ারম্যান মোঃ মোশতাক হাসান, এনডিসি-এর সভাপতিত্বে উক্ত অনুষ্ঠানে বিসিকের পরিচালকগণ, সচিব ও বিভিন্ন পর্যায়ের কর্মকর্তা-কর্মচারীগণ উপস্থিত ছিলেন।
চুক্তিতে বিসিকের পক্ষে স্বাক্ষর করেন মো: মফিদুল ইসলাম, সচিব, বিসিক ও বিজনেস অটোমেশন লি: এর পক্ষে সোয়েব আহমেদ মাসুদ, পরিচালক, বিজিনেস অটোমেশন লি:।
চেয়ারম্যান, বিসিক উল্লেখ করেন যে, ওয়ান স্টপ সার্ভিস বিসিক এর জন্য একটি মাইলফলক। এটি বাস্তবায়ন করা গেলে উদ্যোক্তা তথা নাগরিক সেবায় বিসিক অনেকদুর এগিয়ে যাবে। ।
বিসিক চেয়ারম্যান চলতি মাসেই কয়েকটি সেবা প্রদানের মাধ্যমে বিসিক ওয়ান স্টপ সার্ভিস এর কার্যক্রম উদ্বোধন করা হবে বলে আশাবাদ ব্যক্ত করেন।
দেশি-বিদেশি বিনিয়োগকে আকৃষ্ট করতে শিল্প মন্ত্রণালয়ের আওতাধীন বাংলাদেশ ক্ষুদ্র ও কুটির শিল্প করপোরেশনকে ওয়ান স্টপ সার্ভিস আইন, ২০১৮ এর অন্তর্ভুক্ত করা হয়েছে।
উল্লেখ্য, বাংলাদেশ বিনিয়োগ উন্নয়ন কর্তৃপক্ষ (বিডা), বাংলাদেশ অর্থনৈতিক অঞ্চল কর্তৃপক্ষ (বেজা), বাংলাদেশ রপ্তানি প্রক্রিয়াকরণ এলাকা কর্তৃপক্ষ (বেপজা) এবং বাংলাদেশ হাই-টেক পার্ক কর্তৃপক্ষের পর পঞ্চম প্রতিষ্ঠান হিসেবে বাংলাদেশ ক্ষুদ্র ও কুটির শিল্প করপোরেশন (বিসিক)-কে এ আইনে অন্তর্ভুক্ত করা হয়।
ওয়ান স্টপ সার্ভিস আইন, ২০১৮তে অন্তর্ভুক্তির ফলে অতি ক্ষুদ্র, ক্ষুদ্র, কুটির ও মাঝারি শিল্পোদ্যোক্তারা বিসিকের মাধ্যমে ট্রেড লাইসেন্স, জমি নিবন্ধন, নামজারি, পরিবেশ ছাড়পত্র, নির্মাণ অনুমোদন, বিদ্যুৎ, গ্যাস ও পানি সংযোগ, টেলিফোনই সংযোগ, বিস্ফোরক লাইসেন্স, বয়লার সার্টিফিকেটসহ সংশ্লিষ্ট সকল সেবার জন্য অনলাইনে আবেদন এবং এক জায়গা থেকেই এসব সেবা পাবেন। ফলে কোনো বিনিয়োগকারীকে প্রাথমিক অনুমোদন ও অন্যান্য সেবার জন্য আর সংশ্লিষ্ট সরকারি দপ্তরগুলোতে যেতে হবে না।
বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের হাতে গড়া প্রতিষ্ঠান বিসিক শুরু থেকেই তৃণমূল পর্যায়ে ক্ষুদ্র ও কুটির শিল্প বিকাশে মুখ্য প্রতিষ্ঠান হিসেবে কাজ করছে। শিল্পনগরী প্রতিষ্ঠা, ক্ষুদ্র ও কুটির শিল্পের নিবন্ধন প্রদান, লবণ শিল্পের উন্নয়ন, প্রকল্প বাস্তবায়ন, উদ্যোক্তা উন্নয়নে প্রশিক্ষণ, নতুন উদ্যোক্তা সৃষ্টি, শিল্পায়নের মাধ্যমে কর্মসংস্থান সৃষ্টি, উদ্যোক্তাদের নিজস্ব তহবিল থেকে ঋণ প্রদান ও উৎপাদিত পণ্য বিপণনের জন্য দেশে-বিদেশে মেলার আয়োজন, নতুন নকশা ও নমুনা উদ্ভাবন, উদ্ভাবিত নকশা ও নমুনা বিতরণ, মধু শিল্পের উন্নয়নসহ সম্প্রসারণমূলক নানামুখী কর্মসূচি বাস্তবায়ন করে থাকে বিসিক।
বর্তমানে সারাদেশে বিসিকের ৭৯টি শিল্পনগরী রয়েছে। এছাড়া ২০৩০ সালের মধ্যে অর্থনৈতিকভাবে গুরত্বপূর্ণ এলাকায় ২০ হাজার একর জমিতে ৫০টি পরিবেশবান্ধব শিল্পপার্ক স্থাপনের মহাপরিকল্পনা হাতে নিয়েছে বিসিক। ওয়ান স্টপ সার্ভিস আইনে বিসিকের অন্তর্ভুক্তির ফলে এসব শিল্পনগরীতে দেশি-বিদেশি বিনিয়োগ বৃদ্ধির পথ সুগম হবে।