নবায়নযোগ্য জ্বালানির ব্যাপকতা বাড়াতে প্রয়োজন গবেষণায় বিনিয়োগ : বিদ্যুৎ প্রতিমন্ত্রী

ঢাকা, ১২ এপ্রিল ২০২১ :

বিদ্যুৎ, জ্বালানি ও খনিজ সম্পদ প্রতিমন্ত্রী নসরুল হামিদ বলেছেন, নবায়নযোগ্য জ্বালানির ব্যাপকতা বাড়াতে প্রয়োজন গবেষণায় বিনিয়োগ। সৌরবিদ্যুতের জন্য জমির পরিমাণ কমানোকল্পে প্রযুক্তি আবিষ্কার করা সময়ের দাবি। বর্জ্য থেকে বিদ্যুৎ বা বায়ু থেকে বিদ্যুৎ প্রকল্পে বিনিয়োগ ও গবেষনাকে স্বাগত জানানো হবে।

প্রতিমন্ত্রী আজ অনলাইনে ÔSecond Virtual Ministerial Meeting of the COP26 Energy Transition council (CoP26 ETC)Õ – বক্তব্যকালে এসব কথা বলেন। তিনি বলেন, এনার্জি ট্রানজিশন কাউন্সিল পারষ্পরিক সহযোগিতা ও অভিজ্ঞতা বিনিময়ের মাধ্যমে ক্লিন এনার্জি ব্যবহার করে টেকসই বিদ্যুৎ ব্যবস্থা গড়তে কাজ করছে। বাংলাদেশ ক্লিন এনার্জি ব্যবহারে অত্যন্ত ইতিবাচক। নবায়নযোগ্য জ্বালানি, ক্লিন ও গ্রিন এনার্জি নিয়ে গবেষণা ও সক্ষমতা বৃদ্ধির জন্য বাংলাদেশ জ্বালানি ও বিদ্যুৎ গবেষণা কাউন্সিল ২০১৫ সাল থেকে কাজ করছে। জ্বালানি দক্ষতা, নবায়নযোগ্য জ্বালানি উন্নয়ন ও ব্যবহার বৃদ্ধির জন্য ২০১৪ সাল থেকে টেকসই এবং নাবায়নযোগ্য জ্বালানি উন্নয়ন কর্তৃপক্ষ অংশীজনদের নানাভাবে সহযোগিতা করছে। সচেতনতা বাড়াতে ২০১০ সাল থেকে আয়োজন করা হচ্ছে বিদ্যুৎ সপ্তাহ।

বিদ্যুৎ প্রতিমন্ত্রী আরো বলেন, উন্নয়নশীল থেকে মধ্যম আয়ের দেশ, মধ্যম আয়ের দেশ থেকে উন্নত দেশ, জীবাশ্ম জ্বালানি থেকে নবায়নযোগ্য জ্বালানি, চাকরি থেকে উদ্যোক্তা, ডিজিটালাইজেশন থেকে শিল্প বিপ্লব প্রভৃতির মধ্য দিয়ে বাংলাদেশ এগিয়ে যাচ্ছে। রূপকল্প -২০২১, রূপকল্প -২০৪১, অষ্টম পঞ্চবার্ষিকী পরিকল্পনা, বদ্বীপ পরিকল্পনার সাথে সমন্বয় করে জ্বালানি বৈচিত্র্য, ক্লিন এনার্জি ও জলবায়ু পরিবর্তন বিবেচনায় রেখে পাওয়ার সিস্টেম মাস্টার প্লান করা হয়েছে। যা সময় সময় পারিপার্শ্বিকতার প্রেক্ষিতে হালনাগাদ করা হয়। ২০৪১ সালের মধ্যে মোট উৎপাদিত বিদ্যুতের ১৭ শতাংশ নবায়নযোগ্য জ্বালানি হতে উৎপাদন করা হবে। ৫ দশমিক ৮ মিলিয়ন সোলার হোম সিস্টেমের মাধ্যমে ২০ মিলিয়ন গ্রামীণ জনগণকে বিদ্যুতায়নের আওতায় আনা হয়েছে। জমির স্বল্পতার জন্য বড় আকারে সৌরবিদ্যুৎ কেন্দ্র করা সম্ভব হচ্ছে না। জমি কম লাগে এমন প্রযুক্তিকে বাংলাদেশ স্বাগত জানাবে।

CoP26 ETC- এর সহ -সভাপতি Damilola Ogunbiyi-এর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত ভার্চুয়াল এই অনুষ্ঠানে অন্যান্যের মাঝে ভারতের বিদ্যুৎ প্রতিমন্ত্রী R K Singh, নাইজেরিয়ার বিদ্যুৎ প্রতিমন্ত্রী Goddz Jedz Agba, মিশরের বিদ্যুৎ ও নবায়নযোগ্য জ্বালানি মন্ত্রী Ahmed Kudian, মরক্কোর বিদ্যুৎ মন্ত্রী Aziz Rabbahসহ ইন্দোনেশিয়া, কেনিয়া, লাউস, পাকিস্তান, ফিলিপাইন্স, দক্ষিণ আফ্রিকা ও ভিয়েতনামের প্রতিনিধিবৃন্দ সংযুক্ত থেকে বক্তব্য রাখেন।