সফটওয়্যারের মাধ্যমে সাপ্লাই চেইন মনিটর করা হবে : বাণিজ্য প্রতিমন্ত্রী

সফটওয়্যারের মাধ্যমে সাপ্লাই চেইন মনিটর করার উদ্যোগে নেওয়া হয়েছে বলে জানিয়েছেন বাণিজ্য প্রতিমন্ত্রী আহসানুল ইসলাম টিটু।
তিনি জানান, আগামীকাল এই সফটওয়্যারের উদ্বোধন করা হবে।
বিশ্ব ভোক্তা অধিকার দিবস উপলক্ষে আজ বৃস্পতিবার বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ের সভাকক্ষে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে তিনি এ কথা বলেন।
কনজুমার কমপ্লেইন ম্যানেজমেন্ট সিস্টেম প্রসঙ্গ উল্লেখ করে- আহসানুল ইসলাম বলেন, “১৬১২১ নম্বরে অভিযোগ করলে সঙ্গে সঙ্গে আমরা ব্যবস্থা নিচ্ছি। আমাদের ভোক্তা অধিদপ্তর সাপ্লাই চেইন মনিটরিং সিস্টেম শক্তিশালী করছে। আমরা একটি সফটওয়্যার ডেভেলপের চেষ্টা করছি, যাতে সাপ্লাই চেইন মনিটর করতে পারি। আগামীকাল এর উদ্বোধন হবে।”
ভোক্তাদের সুপারশপে গিয়ে নির্ধারিত মূল্যে নিত্যপণ্য কেনার পরামর্শ দিয়ে- বাণিজ্য প্রতিমন্ত্রী বলেন, “সবাই ভাবে মধ্যবিত্ত বা উচ্চবিত্তের জন্য সুপার মার্কেট। সুপার মার্কেট অ্যাসোসিয়েশন কালকে আমাকে চিঠি দিয়েছে যে, রোজার মধ্যে নিত্যপ্রয়োজনীয় কোন পণ্য কত দামে বিক্রি করবে। এটা একটা উদাহরণ হতে পারে। নির্ধারিত দামে সেখানে নিত্যপণ্য পাওয়া যাবে।’
পণ্যের নির্ধারিত দাম গণমাধ্যমে প্রকাশ করার আহ্বান জানিয়ে তিনি বলেন, “যদি একটা সুপার মার্কেটে ৩০ টাকায় আলু থাকে, অনেকে মনে করে দরদাম করলে বুঝি দুই টাকা সাশ্র হবে- এই জন্য যায় কাঁচাবাজারে। সুপারশপ আমাদের নির্ধারিত দামের কমে তেল বিক্রি করছে, অন্যান্য জিনিসও তারা মোটামুটি চেষ্টা করছে।”
পাইকারি ব্যবসায়ীদের নিয়ন্ত্রণের মধ্যে আনতে হবে মন্তব্য করে বাণিজ্য প্রতিমন্ত্রী বলেন, “তারা অবশ্যই ভাউচার দেয়, কত দামে খুচরা বিক্রেতার কাছে (পণ্য) দিলো। আমরা যখন যাই, খুচরা বিক্রেতার কাছে জিজ্ঞাসা করি, তারা পায় না। কারণ তারা আড়তদারের কাছ থেকে না, পাইকারি বাজারের রাস্তা থেকে কিনছে।”
আহসানুল ইসলাম সাংবাদিকদের আরও বলেন, ‘বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ের বাজার পরিস্থিতি উন্নত করার যে চেষ্টা এবং ভোক্তার অধিকার রক্ষায় ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ অধিদপ্তর যেভাবে কাজ করে যাচ্ছে, বিভিন্ন মহল থেকে আমরা এ বিষয়ে অনেক সাধুবাদ পেয়েছি। আমরা এ কাজটা কন্টিনিউ করতে চাই। আমি সবসময় বলি যে, আমাদের ছোটখাটো ভুলগুলোকে হাইলাইট না করে, এফোর্ডগুলোকে একটু হাইলাইট করা হলে ভালো হয়।’
খেজুরের দাম নির্ধারণ করে দেওয়ার ক্ষেত্রে বাণিজ্য মন্ত্রণালয় নিম্নমানের খেজুর উল্লেখ করায় সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে সমালোচনা হচ্ছে। এর পরিপ্রেক্ষিতে ‘নিম্নমানের খেজুর’ এর নাম সংশোধন করে ‘সাধারণ মানের খেজুর’ করে নতুন চিঠি দিয়েছে মন্ত্রণালয়টি। এই ভুলের জন্য ক্ষমা চান বাণিজ্য প্রতিমন্ত্রী।
তিনি বলেন, তাড়াহুড়া করতে গিয়ে এই এ ধরনের ভুল হয়েছে। তবে আমরা দ্রুত এটি সংশোধন করেছি। তিনি অনিচ্ছাকৃত এধরনের ভুলকে হাইলাইট না করার জন্য গণমাধ্যমের প্রতি অনুরোধ জানান।

সর্বশেষ