যথাযোগ্য মর্যাদায় ‘পুলিশ মেমোরিয়াল ডে’ পালন-মিরপুর পিওএম এ

হাসানুজ্জামান সুমন,বিশেষ-প্রতিনিধি:

আজ শনিবার রাজধানীর মিরপুরে পুলিশ স্টাফ কলেজ চত্বরে নির্মিত পুলিশ মেমোরিয়াল স্মৃতিস্তম্ভে তাদের প্রতি বিনম্র শ্রদ্ধা জানানো হয়। গভীর শ্রদ্ধায় স্মরণ করা হয় কর্তব্যরত অবস্থায় আত্মত্যাগকারী পুলিশ সদস্যদেরকে।
এ সময় ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশের একটি চৌকস দল সশস্ত্র সালাম প্রদান করে। পরে পুলিশ সদস্যদের পরিবারের সদস্যদের স্বজনরাও স্মৃতিস্তম্ভে ফুল দিয়ে শ্রদ্ধা জানান। জননিরাপত্তা ও আইন-শৃঙ্খলা রক্ষাকালে কর্তব্যরত অবস্থায় জীবন উৎসর্গকারী পুলিশ সদস্যদের স্মরণে সারা দেশের ন্যায় মিরপুর পাবলিক অর্ডার ম্যানেজমেন্ট (পিওএম)- এ যথাযোগ্য মর্যাদায় পালিত হলো ‘পুলিশ মেমোরিয়াল ডে ২০২৪’।
দিবসটি পালন উপলক্ষে আজ মিরপুর পাবলিক অর্ডার ম্যানেজমেন্ট (পিওএম) পুলিশ লাইন্সে সম্মাননা প্রদান ও আলোচনা সভার আয়োজন করা হয়। অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশের অতিরিক্ত পুলিশ কমিশনার (প্রশাসন) এ কে এম হাফিজ আক্তার বিপিএম-বার (অতিরিক্ত আইজিপি পদে পদোন্নতিপ্রাপ্ত)। সভায় সভাপতিত্ব করেন ঢাকা রেঞ্জের ডিআইজি সৈয়দ নুরুল ইসলাম বিপিএম-বার, পিপিএম।
আলোচনা সভার শুরুতে কর্তব্যরত অবস্থায় জীবন উৎসর্গকারী শহীদ পুলিশ সদস্যদের স্মরণে এক মিনিট নীরবতা পালন করা হয়। এরপর কর্তব্যরত অবস্থায় ডিএমপি ও ঢাকা জেলার মৃত ৫ জন পুলিশ সদস্যদের পরিবারের মধ্যে শুভেচ্ছা উপহার সামগ্রী হস্তান্তর করা হয়।
অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে ডিএমপি’র অতিরিক্ত পুলিশ কমিশনার (প্রশাসন) এ কে এম হাফিজ আক্তার বিপিএম-বার (অতিরিক্ত আইজিপি পদে পদোন্নতিপ্রাপ্ত) বলেন,, মার্চ মাস আমাদের স্বাধীনতার মাস। ১৯৭১ সালের ২৫শে মার্চ কাল রাতে অনেক পুলিশ সদস্য পাক হানাদার বাহিনীর বিরুদ্ধে প্রথম প্রতিরোধ যুদ্ধে মৃত্যুবরণ করেছেন। এটা আমাদের গর্বের বিষয়।
তিনি বলেন, বাংলাদেশ পুলিশের প্রত্যেকটি সদস্য দেশ প্রেমিক। তারা যে কোন চ্যালেঞ্জ মোকাবেলায় কখনো পিছপা হয় না। নিজের জীবন বাজি রেখে কর্তব্য পালনে ঝাপিয়ে পড়েন। এতে অনেককেই জীবন উৎসর্গ করতে হয়। তাদের স্মরণে ২০১৭ সাল থেকে মেমোরিয়াল ডে পালিত হয়ে আসছে।
তিনি কর্তব্যরত অবস্থায় মৃত পুলিশ সদস্যদের পরিবারের উদ্দেশে বলেন, আপনারা একা নন। আপনাদের সাথে আমরা আছি। আপনাদের সন্তান আমাদেরই সন্তান। সন্তানদের পড়াশোনাসহ যে কোন প্রয়োজনে যখনই আমাদের সাহায্য বা সহযোগিতার প্রয়োজন হবে আমরা সব সময় আপনাদের পাশে থাকবো।সভাপতির বক্তব্যে ডিআইজি ঢাকা রেঞ্জ বলেন, দেশের জন্য যে সকল পুলিশ সদস্য আত্মত্যাগ করেছেন তাদের স্মরণে আজকের এই দিনটি আমরা পালন করি। কর্তব্যরত অবস্থায় যারা মারা গেছেন আমরা তাদের শ্রদ্ধার সাথে স্মরণ করি। তাদের সন্তানদেরকে মানুষ করার দায়িত্ব স্বজনদের পাশাপাশি আমাদেরও।
নিহত পুলিশ সদস্যদের স্বজনদের উদ্দেশে তিনি বলেন, তাদের সন্তানরা আমাদেরই সন্তান। তারা আমাদেরই পরিবারের সদস্য। তাদের জন্য আমাদের সাধ্যের অনূকূলে যা যা করণীয় আমরা সেগুলো করার জন্য তৈরি আছি।
এসময় ডিএমপি’র যুগ্ম পুলিশ কমিশনার, ঢাকা রেঞ্জের অতিরিক্ত ডিআইজি, পুলিশ সুপার ঢাকা জেলা ও ডিএমপির উপ-পুলিশ কমিশনারগণসহ অন্যান্য ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তাবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।
প্রসঙ্গত, কর্তব্যরত অবস্থায় মৃত বাংলাদেশ পুলিশের সদস্যদের আত্মত্যাগ ও গৌরবময় অবদানকে স্মরণ করে প্রতিবছর দেশব্যাপী সমস্ত পুলিশ ইউনিটে ২০১৭ সালর ১ মার্চ হতে ‘পুলিশ মেমোরিয়াল ডে’পালন করে আসছে বাংলাদেশ পুলিশ। তবে এ বছর পুলিশ সপ্তাহ ২০২৪ এর আনুষ্ঠানিকতার কারণে আজ শনিবার দিবসটি পালন করা হয়।

সর্বশেষ