ব্রাহ্মণবাড়িয়ার চাঞ্চল্যকর হত্যা মামলার আসামী সিলেট থেকে গ্রেফতার ২

ব্রাহ্মণবাড়িয়া প্রতিনিধি: ব্রাহ্মণবাড়িয়ার আশুগঞ্জে জমি সংক্রান্ত বিরোধে চাঞ্চল্যকর হত্যা মামলার প্রধান আসামীসহ ২জনকে গ্রেফতার করেছে র‌্যাব-৯। শনিবার (২৩ মার্চ) বিকাল ৪টা দিকে সিলেটের জৈন্তাপুর উপজেলা হতে তাদের গ্রেফতার করা হয়। গ্রেফতারকৃতরা হলেন, মোঃ খলিল মিয়া (৩৬) এবং মোছাঃ আকলিমা বেগম (২৮)। আসামী দুই জন আশুগঞ্জ উপজেলার আড়াইসিধা গ্রামের রঙ্গিলা বাড়ীর বাসিন্দা।

র‌্যাব-৯ সিলেট এর সহকারী পুলিশ সুপার মোঃ মশিহুর রহমান সুহেল এক প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে বলেন, চাঞ্চল্যকর হত্যার ঘটনাটি মিডিয়ার মাধ্যমে ব্রাহ্মণবাড়িয়াসহ দেশব্যাপী ব্যাপক আলোড়ন সৃষ্টি করেছে। এরই প্রেক্ষিতে আসামীদের আইনের আওতায় আনতে র‌্যাব-৯ হত্যাকান্ডের ছায়া তদন্ত এবং গোয়েন্দা তৎপরতা জোরদার করে। এক গোপন সংবাদের ভিত্তিতে র‌্যাব-৯, সিপিএসসি এবং সিপিসি-১, ব্রাহ্মণবাড়িয়া এর যৌথ অভিযানে ২৩ মার্চ বিকাল আনুমানিক ৪টা দিকে সিলেটের জৈন্তাপুর উপজেলা হতে হত্যা মামলার প্রধান আসামী খলিল মিয়াসহ ২জন আসামীকে গ্রেফতার করা হয়। এবং আশুগঞ্জ থানায় হস্তান্তর করা হয়। এছাড়াও এই মামলার অন্যান্য পলাতক আসামীদের গ্রেফতারের লক্ষ্যে র‌্যাব-৯ এর গোয়েন্দা তৎপরতা ও অভিযান অব্যাহত থাকবে।

উল্লেখ্যঃ গত ১০ ফেব্রুয়ারি ২০২৪ ইং রোজ শনিবার আনুমানিক ৪টা ৩০ মিনিটের দিকে জেলার আশুগঞ্জ উপজেলাধীন এলাকায় জমি সংক্রান্ত বিরোধের জেরে ভিকটিম সোহেল রানার বাবার সাথে বিবাদী পক্ষের লোকজনের
কথা কাটাকাটি হয়। কথা কাটাকাটির এক পর্যায়ে বিবাদীরা ভিকটিমের বাবাকে এলোপাতাড়ি মারধর শুরু করলে ভিকটিম তার বাবার চিৎকার শুনে এগিয়ে আসলে বিবাদীরা ভিকটিমকেও এলোপাতাড়ি মারধরের মাধ্যমে গুরুতর জখম করে দ্রুত ঘটনাস্থল ত্যাগ করে। পরবর্তীতে, পরিবারের লোকজন ভিকটিমকে মুমূর্ষু অবস্থায় উদ্ধার করে ব্রাহ্মণবাড়িয়া সদর হাসপাতালে নিয়ে গেলে সেখানে ভিকটিম চিকিৎসারত অবস্থায় মৃত্যুবরণ করেন। পরে এই ঘটনায় ভিকটিমের বাবা বাদী হয়ে ৬ জনের নাম উল্লেখসহ অজ্ঞাতনামা ২/৩ জনের নামে আশুগঞ্জ থানায় ১৩ ফেব্রুয়ারি একটি হত্যা মামলা দায়ের করেন।

সর্বশেষ