শেখ হাসিনা ভবিষ্যৎ প্রজন্মের জন্য কাজ করছেন : এনামুল হক শামীম

শরীয়তপুর প্রতিনিধি: সাবেক পানি সম্পদ উপমন্ত্রী একেএম এনামুল হক শামীম এমপি বলেছেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সরকার আধুনিক শিক্ষার মাধ্যমে শিক্ষার্থীদের স্মার্ট নাগরিক তৈরিতে নিরলসভাবে কাজ করছেন। দেশে দক্ষ মানব সম্পদ গড়ে তুলতে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা সরকার ডিজিটাল শিক্ষার মাধ্যমে শিক্ষার্থীদের স্মার্ট সিটিজেন তৈরিতে কাজ শুরু করেছেন। বঙ্গবন্ধু কন্যা শেখ হাসিনার নেতৃত্বে আগামী দিনের শিক্ষা হবে সম্পূর্ণ ডিজিটাল ও স্মার্ট।

শুক্রবার (৯ ফেব্রুয়ারি) বিকালে শরীয়তপুরের সখিপুর থানার চরকুমারিয়া উচ্চ বিদ্যালয়ে বার্ষিক ক্রীড়া ও সাংস্কৃতিক প্রতিযোগিতার পুরস্কার বিতরণী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।

তিনি আরও বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে বাংলাদেশের উন্নয়ন-অগ্রগতি বিশ্বকে চমকে দিয়েছে। বঙ্গবন্ধুকন্যা দেশকে মর্যাদার আসনে আসীন করেছেন বলেই বিশ্বের সব দেশ বাংলাদেশের সঙ্গে কাজ করার আগ্রহ প্রকাশ করেছে।

আওয়ামী লীগের সাবেক এই সাংগঠনিক সম্পাদক
প্রাথমিক শিক্ষা থেকে শুরু করে সর্বোচ্চ বিদ্যাপীঠ পর্যন্ত শিক্ষার মানোন্নয়নে কাজ করে চলেছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। তিনি প্রতিটি উপজেলা শহরে থাকা মাধ্যমিক শিক্ষা প্রতিষ্ঠানকে সরকারিকরণ করছে। শিক্ষার্থীদের আধুনিক বিশ^মানের করে গড়ে তুলতে প্রতিটি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে শেখ রাসেল ডিজিটাল ল্যাব স্থাপন করেছেন। পুরাতন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানগুলোতে নতুন নতুন ভবন করে দিচ্ছেন। তিনি জেলায় জেলায় নতুন নতুন বিশ্ববিদ্যালয় গড়ে তুলছেন। শিক্ষদানের মনোরম পরিবেশ নিশ্চিত করে শিক্ষকদের মর্যাদা বৃদ্ধি করেছেন। আগামীর আধুনিক বিশ্বের চ্যালেঞ্চ মোকাবেলায় যা যা করা প্রয়োজন তিনি তাই করছেন।

ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি শামীম বলেন,
প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ক্ষমতায় আছেই বলেই কোনো শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে অস্ত্রের ঝনঝনানি নেই, অস্ত্রের মহড়া নেই, নেই সেশন জট। জিয়াউর রহমান, খালেদা জিয়া ছাত্রদের অস্ত্র দিয়েছিলেন। তাদের আমলে দেশের শিক্ষা ব্যবস্থা ধ্বংসের দ্বারপ্রান্তে নিয়ে গিয়েছিলেন। তাদের আমলে দেশের বিশ্ববিদ্যালয়গুলো অস্ত্রের ঝনঝনানিতে পরিণত হয়েছিল। আর বঙ্গবন্ধু কন্যা শেখ হাসিনা ১৯৯৫ সালের ১২ সেপ্টেম্বর শাপলা চত্বরে ছাত্রদের হাতে বই-খাতা-কলম তুলে দিয়ে বলেছিলেন ‘অস্ত্র নয় বই কাগজ-কলমই হচ্ছে ছাত্রদের প্রকৃত হাতিয়ার।’ বঙ্গবন্ধু কন্যা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার মতো শিক্ষাবান্ধব সরকার পৃথিবীতে বিরল।

এনামুল হক শামীম বলেন, গত পাঁচ বছরে নড়িয়া-সখিপুরের সকল ননএমপিও ভুক্ত শিক্ষা প্রতিষ্ঠান এমপিওভুক্ত করা হয়েছে। নতুন নতুন ভবন নির্মান হয়েছে। শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে শেখ রাসেল ডিজিটাল ল্যা স্থাপন করা হয়েছে। শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে সীমানা প্রাচীর নির্মান করা হয়েছে। সখিপুরে এমপিওভুক্ত ৪টি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে শিক্ষার্থীদের বেতন কমানো হয়েছে। পাশাপাশি সখিপুরের সকল এমপিওভুক্ত শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে বেতন কমানো হবে। শ্রেণীকক্ষে কোনো শিক্ষক যাতে মোবাইল ফোন ব্যবহার না করে সেদিকে লক্ষ রাখতে হবে। এছাড়াও শ্রেণীকক্ষেই পড়া কম্পিলিট করাতে হবে। প্রাইভেট পড়ানো যাবে না। সবাইকে একসাথে কাজ করে দেশকে এড়িয়ে নিতে হবে।

ভেদরগঞ্জ উপজেলা চেয়ারম্যান ও চরকুমারিয়া উচ্চ বিদ্যালয়ের ম্যানেজিং কমিটির
সভাপতি হুমায়ুন কবির মোল্যার সভাপতিত্বে
অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি ছিলেন, ভেদরগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা রাজিবুল ইসলাম, জেলা পরিষদের প্যানেল চেয়ারম্যান এমএ কাইয়ুম, সখিপুর থানা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আতিকুর রহমান মানিক সরকার, চরকুমারিয়া ইউপি চেয়ারম্যান মোজাম্মেল হক মোল্যা।
এসময় শিক্ষক-শিক্ষার্থী, অভিভাবক ও স্থানীয় গণমান্য ব্যক্তিবর্গ উপস্থিত ছিলেন।

সর্বশেষ