পরিস্থিতি কখন কী হয় বলা যায় না : কাদের

সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী এবং আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের বলেছেন, পরিস্থিতি কখন কী হয় বলা যায় না। যুক্তরাষ্ট্রের নির্বাচনে কী হবে সেটি বোঝা যাচ্ছে না। সবকিছু মিলে ২০২৪ সালে কী রেজাল্ট হচ্ছে তা বলা যাচ্ছে না। গতকাল সচিবালয়ের বাংলাদেশে নিযুক্ত রাশিয়ার রাষ্ট্রদূত আলেকজান্ডার ভি মান্টিটস্কির সঙ্গে বৈঠক শেষে সাংবাদিকদের সঙ্গে আলাপকালে তিনি এসব কথা বলেন। দ্রব্যমূল্য নিয়ন্ত্রণ নিয়ে এক প্রশ্নের জবাবে মন্ত্রী বলেন, সরকার দ্রব্যমূল্য নিয়ন্ত্রণের জন্য সর্বাত্মকভাবে চেষ্টা করছে। তবে রাতারাতি বাজার নিয়ন্ত্রণ করা যায় না। বিশ্ব পরিস্থিতির ওপর অনেক কিছু নির্ভর করে। রাষ্ট্রদূতের সঙ্গে বৈঠকের বিষয়ে ওবায়দুল কাদের বলেন, এ মুহূর্তে রাশিয়ার সঙ্গে সহজে লেনদেন করা কঠিন। আমাদের অবকাঠামোগত উন্নয়নের প্রক্রিয়া আছে। আমরা একটি বড় পরিকল্পনা করতে যাচ্ছি। তারা অবকাঠামোগত উন্নয়নে অংশ নিতে চায়। সেতুমন্ত্রী বলেন, তাদের ওখানে আমাদের কৃষিপণ্য যায়, তারা যেগুলো আমদানি করে, সেগুলো যাতে সহজলভ্য হয়, সে বিষয়ে অনুরোধ করেছেন। বাংলাদেশ থেকে আরও পণ্য নিতে চায় রাশিয়া। একই সঙ্গে বাংলাদেশ থেকে এলএনজি আমদানি করতে চায় তারা।

রাশিয়ার সঙ্গে আমাদের বন্ধুত্ব থাকবে কিন্তু আমেরিকাকে সরাসরি হোস্টাইল (বৈরী) করে বন্ধুত্ব আমরা চাই না। কারও সঙ্গে শত্রুতা নয়, সবার সঙ্গে বন্ধুত্ব চায় বাংলাদেশ। আমরা সবার সঙ্গে সম্পর্ক রাখতে চাই। আমাদের যে সম্পর্ক আছে, তার উন্নয়ন করতে চাই। আমেরিকার প্রেসিডেন্ট বাইডেন (জো বাইডেন) চিঠি দিয়ে বাংলাদেশের সঙ্গে একসঙ্গে কাজ করার কথা বলেছেন। এখানে একটি অঙ্গীকার আছে।

মন্ত্রিসভার পরিধি বাড়ছে কি না জানতে চাইলে আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক বলেন, এটা প্রধানমন্ত্রী বলতে পারেন। তবে কিছু জায়গায় যেমন শ্রম মন্ত্রণালয় ও সংস্কৃতি মন্ত্রণালয়ে কোনো না কোনো সময় মন্ত্রী আসবে। এটা আমার মনে হয় সংরক্ষিত মহিলা আসনগুলো আসার পরে মন্ত্রী আসতে পারে। সেখানে মহিলাও আসতে পারে। সেই হিসেবে এর পরে চিন্তা-ভাবনা। মেট্রোরেল নিয়ে এক প্রশ্নের জবাবে মন্ত্রী বলেন, বাংলাদেশে মেট্রোরেল চালু করতে পারব, কয়েক বছর আগেও এটা আমাদের কাছে স্বপ্নের মতো ছিল। মেট্রো তো বাংলাদেশ রেলওয়ে না যখন তখন বগি বাড়ানো যাবে। যখন তখন একটা চেঞ্জ করা যাবে। পৃথিবীর কোনো দেশে মেট্রোর বগির সংখ্যা পাঁচের বেশি নয়। আমাদের এখানে অলরেডি ছয়টা কাজ করছে। এর বেশি বাড়ানোর আর কোনো সুযোগ নেই।? ফ্রিকোয়েন্সিটা দুই মিনিট করে কমানোর একটা ব্যবস্থা হচ্ছে।

সর্বশেষ