বিদেশি সাংবাদিক তুলে ধরেছেন আলফাডাঙ্গা পৌরসভার সাবেক মেয়রের নগ্ন ভিডিও, নিন্দার ঝড়

বিদেশি সাংবাদিক তুলে ধরেছেন আলফাডাঙ্গা পৌরসভার সাবেক মেয়রের নগ্ন ভিডিও, নিন্দার ঝড়

নিজস্ব প্রতিবেদক:

নিজের গোপনাঙ্গ বের করে এক নারীর সঙ্গে ভিডিওকলে অশ্লীল কার্যক্রম করছিলেন ফরিদপুরের আলফাডাঙ্গার এক আওয়ামী লীগ নেতা। সেই ভিডিও সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ছড়িয়ে পড়েছে। আওয়ামী লীগের ওই নেতার নাম সাইফুর রহমান সাইফার; তিনি আলফাডাঙ্গা পৌর আওয়ামী লীগের সভাপতি ও সাবেক পৌর মেয়র। সাইফারের এমন ভিডিওতে বিব্রত ও ক্ষুব্ধ স্থানীয় আওয়ামী লীগ। তবে ভিডিও’র ওই নারীর সঙ্গে সাইফারের কী সম্পর্ক তা জানা যায়নি। স্থানীয়রা বলছেন, ভিডিও দেখে মনে হচ্ছে যৌনপিপাসু সাইফার ওই নারীকে ফাঁদে ফেলে এসব করেছেন। সাইফার আরও কত নারীকে সর্বনাশ করেছে তা খতিয়ে দেখার দাবি তাদের।

সম্প্রতি ভিডিওটি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে শেয়ার করেছেন প্রবাসী বাংলাদেশি সাংবাদিক জাওয়াত নির্ঝর। ভিডিও’র ক্যাপশনে তিনি লিখেছেন, “ফরিদপুরের আলফাডাঙ্গা পৌর আওয়ামী লীগের সভাপতি ও সাবেক পৌর মেয়র সাইফুর রহমান সাইফার এর লুচুপানার ভিডিও এটি।”

সেখানে মিরাজ আহমেদ নামে একজন মন্তব্য করেছেন, ‘ফরিদপুর জেলার উন্নয়ন, বিকৃত যৌনচারে অভ্যস্ত সাইফার।’ ইমতিয়াজ হাসান রাকিব লিখেছেন, ‘হালায় কামডা করছে কি??’। আরেকজন মন্তব্য করেছেন, ‘মেয়র থাকাকালে প্রতিনিয়ত নারী ও মদে আসক্ত ছিল এই সাইফার’। বিমল সরকার মন্তব্য করেছেন, ‘এই যদি হয় নেতা; তাহলে নারীরা কীভাবে পৌর এলাকায় সুরক্ষিত থাকবে?’।

ভাইরাল হওয়া ভিডিওটিতে দেখা যায়, মেয়র সাইফার ভিডিও চ্যাটিংয়ে তার বিশেষ অঙ্গ প্রদর্শন করছেন একজন নারীকে। ওই নারী তার শরীরের বিশেষ বিশেষ অঙ্গ আবার আওয়ামী লীগ নেতা সাইফারকে প্রদর্শন করছেন। উভয়ে যৌন উত্তেজক কথাবার্তাও বলছেন।

জানা গেছে, ২০২২ সালের ২৯ ডিসেম্বর মেয়র পদে নৌকা প্রার্থী সাইফুর রহমান সাইফার পরাজিত হন। সেখানে বিজয়ী হন স্বতন্ত্র প্রার্থী আলী আকসাদ ঝন্টু। সাইফার আলফাডাঙ্গা পৌরসভার মেয়র থাকাকালে অনিয়ম, দুর্নীতি ও অবৈধ সম্পদ অর্জনের অভিযোগ ছিল। যা দুদকের অনুসন্ধানে রয়েছে।

নগ্ন ভিডিও ইস্যুতে স্থানীয় আওয়ামী লীগের নেতারা বলছেন, সাবেক জনপ্রতিনিধির যৌন ভিডিও দেখে আমরা মর্মাহত। এটি আওয়ামী লীগ ও স্থানীয় জনগণের জন্য লজ্জার। আমরা এর রহস্য উদঘাটন করে বিচার চাইছি।

অশ্লীল অঙ্গভঙ্গির ভিডিও ভাইরাল হওয়া প্রসঙ্গে আলফাডাঙ্গা উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি এসএম আকরাম হোসেনের বলেন, ‘এটা দলের জন্য বিব্রতকর। ঘটনাটির জন্য আমিও লজ্জিত।’

এবিষয়ে সাবেক মেয়র সাইফারের বক্তব্য পাওয়া যায়নি।

সর্বশেষ