গাজায় ২৪ ঘণ্টায় নিহত ৬৪ ফিলিস্তিনি

অবরুদ্ধ গাজা উপত্যকার মধ্যাঞ্চলে বাড়ি-ঘরে হামলা চালিয়েছে ইসরাইলি বাহিনী। গত ২৪ ঘণ্টায় এসব হামলায় কমপক্ষে ৬৪ জন নিহত হয়েছে। আহত হয়েছে আরও ১৮৬ জন। খবর আল জাজিরার। এদিকে ইসরাইলি প্রধানমন্ত্রী বেনিয়ামিন নেতানিয়াহু গাজায় লড়াই চালিয়ে যাওয়ার প্রতিজ্ঞা করেছেন। এ বিষয়ে ইসরাইলের যুদ্ধ বিষয়ক মন্ত্রিসভায় আলোচনা হওয়ার কথা রয়েছে।

শনিবার তিনি আভাস দিয়েছেন, ফিলিস্তিনি এই উপত্যকা এবং অন্যান্য স্থানে লড়াই আরও কয়েক মাস চলতে পারে। এক সংবাদ সম্মেলনে অংশ নিয়ে নেতানিয়াহু বলেন, গাজার ক্ষমতাসীন হামাস সংগঠনের বিরুদ্ধে তাদের লড়াই ১৩ সপ্তাহে প্রবেশ করেছে।

তবে ফিলিস্তিনি স্বাধীনতাকামী সংগঠন হামাসের সঙ্গে ইসরাইলি বাহিনীর লড়াই শুধু ওই অঞ্চলেই নয় বরং তা লেবানন, সিরিয়া, ইরাক এবং ইয়েমেনকেও জড়িয়ে ফেলেছে। এখন এসব দেশের সঙ্গেও ইসরাইলের সংঘর্ষের খবর পাওয়া যাচ্ছে। নেতানিয়াহু বলেন, দ্য ফিলাডেলফি করিডোর এবং আরও পরিষ্কার করে বলতে গেলে গাজার দক্ষিণাঞ্চলীয় সীমান্তের নিয়ন্ত্রণ আমাদের হাতে থাকা উচিত। ইসরাইল বলছে, আর যেন ৭ অক্টোবরের হামলার ঘটনার পুনরাবৃত্তি না ঘটে সেজন্য গাজা থেকে হামাসকে পুরোপুরি নির্মূলের পরিকল্পনা রয়েছে তাদের।
গত ৭ অক্টোবর ইসরাইলের সীমান্তে আকস্মিক হামলা চালায় হামাস। এতে ১২০০ জন নিহত হয়।

এর প্রতিশোধ নিতে গাজায় পাল্টা আক্রমণ শুরু করে ইসরাইল যা এখনও চলমান রয়েছে। হামাসকে নির্মূলের অজুহাতে গাজার বিভিন্ন স্থানে হামলা চালিয়ে হাজার হাজার নিরীহ ফিলিস্তিনিকে হত্যা করছে ইসরাইলি সেনারা।হামাস-নিয়ন্ত্রিত স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় জানিয়েছে, দখলদার ইসরাইলি বাহিনীর হামলায় গাজায় ২১ হাজার ৬৭২ জনের বেশি মানুষ নিহত হয়েছে। এছাড়া আহত হয়েছে আরও ৫৬ হাজার ১৬৫ জন।

সূত্র: যুগান্তর

সর্বশেষ