সংবাদ__সাংবাদিকতা __Yellow journalism

প্রেস কাউন্সিল এ্যাক্ট-এ সাংবাদিকের একটা সংজ্ঞা দেয়া আছে। এতে বলা হয়েছে : Working journalist means the activity or profession of writing for newspapers, magazines, or news websites or preparing news to be broadcast by a person who is employed as such in, or in relation to, any newspaper establishment and includes an editor, a leader writer, news editor, sub-editor, feature writer, reporter, correspondent, copy tester, cartoonist, news photography, caliograpist and proof reader.

তাহলে স্পষ্টত ধরে নেয়া যায়, সংবাদপত্র অফিসে কর্মরত সম্পাদক, উপ-সম্পাদকীয় লেখক, বার্তা সম্পাদক, সহ-সম্পাদক, ফিচার সম্পাদক, প্রতিবেদক, প্রতিনিধি, লিপিবদ্ধকার, কার্টুনিস্ট, আলোকচিত্রী ও প্রুফ রিডার-, বিভিন্ন জেলা উপজেলা প্রতিনিধি সকলেই সাংবাদিক। এঁরা খবরের সন্ধান করেন, খবরের পেছনে ছোটেন, খবর নির্বাচন করেন, সম্পাদনা করেন, সংশোধন করেন। সাংবাদিকরা যা করেন, তা হচ্ছে সাংবাদিকতা। অন্যদিকে সাংবাদিকতা হচ্ছে কাজ। এঁদের কাজ হচ্ছে তথ্য সংগ্রহ করা, প্রতিবেদন লেখা এবং সম্পাদনা করা।

খবর কাকে বলে:
খবর বা সংবাদ-এর নির্দিষ্ট কোনো সংজ্ঞা নেই। তবে এক কথায় বলা যায় সংবাদ হলো চলতি ঘটনার বস্তুনিষ্ঠ বিবরণ, যা পাঠকের আগ্রহ উদ্দীপিত করে এ কথাটাকে একটু কঠিন করে বললে এভাবে বলা যায়: স্থিতাবস্থার পরিবর্তনে সৃষ্ট ঘটনা, যাতে সমাজে প্রতিক্রিয়ার সৃষ্টি হয় এবং যা অবশ্যই সত্য, বস্তুনিষ্ঠ ও গুরুত্বপূর্ণ, তাকে খবর বা সংবাদ বলে। NEWS means:- North,East,West and South. উত্তর দক্ষিণ পূর্ব পশ্চিম অর্থাৎ আমাদের চারপাশে যা কিছু ঘটে তার উপর সঠিক বস্তুনিষ্ঠ তথ‍্য সংগ্রহ করে তার উপর প্রতিবেদন তৈরি করা। আরেক বাসায় বলা হয় 5_ w _ 1_ h

খবরের বিশেষত্ব what:
আমাদের মনে রাখতে হবে-যা দেখি, তা খবর; যা জানি, তা প্রেক্ষাপট (background) এবং যা অনুভব করি, তা মতামত।

খবরের যে কয়েকটি গুরুত্বপূর্ণ বিশেষত্ব আছে, তার মধ্যে উল্লেখযোগ্য হচ্ছে :
ক. সংবাদ কোনো ঘটনা নয়, ঘটনার প্রতিবেদন মাত্র; খ. খবর সাধারণত কোনো নতুন বা সাম্প্রতিক ঘটনার প্রতিবেদন
গ. সংবাদ অবশ্যই নির্ভুল হতে হবে
ঘ. সংবাদের তথ্যগুলোকে অবশ্যই বস্তুনিষ্ঠ হতে হবে ঙ. প্রতিটি প্রতিবেদনই হবে নিরপেক্ষ বা ভারসাম্যপূর্ণ চ. সংবাদ হতে হবে সংক্ষিপ্ত ও স্পষ্ট।
খবর সম্পাদনা :
খবর যাঁরা সম্পাদনা করেন তাঁদের বলা হয় সহ-সম্পাদক বা subeditor . Subbing মানে হচ্ছে বিন্যাস, আর editing মানে হচ্ছে সম্পাদনা। তাই খবর সম্পাদনা মানে পরিমার্জন, সংশোধন ও সংযোজন। রিপোর্টারদের বলা হয়ে থাকে রণক্ষেত্রের সৈনিক এবং সহ-সম্পাদকদের বলা হয় সংবাদপত্রের অভিনন্দিত নায়ক (Unseen Hero of Newspaper)। খবর নির্বাচন ও বাতিলের ক্ষেত্রে ‘নিউজ সেন্স’ (সংবাদ জ্ঞান)-ই মুখ্য ব্যাপার। সংবাদ জ্ঞানই সংবাদ মূল্য নির্ধারণ করে।
সাংবাদিকতার নীতিমালা:
সাংবাদিকতার নীতিমালা তৈরি হয় দেশের মানুষের মূল্যবোধ থেকেই। code of ethics (Ethics of journalism)-এ সাংবাদিকের দায়িত্ব ও কর্তব্য সম্পর্কে বলা থাকলেও আইনটা কোনো ব্যাপক নয়, দায়িত্ববোধই মূল ব্যাপার। সাংবাদিকের বিবেকই বলে দেবে-কোনটা ছাপবো, কোনটা ছাপবো না। সাংবাদিকদের সব সময় মনে রাখতে হয় সত্যই এ পেশার মানুষের একমাত্র লক্ষ্য।

তবু নীতিমালায় যেসব বিষয় উল্লেখ আছে, তা এখানে সংক্ষিপ্তভাবে তুলে ধরছি:
ক. ভাষাকে অবশ্যই শোভনভাবে উপস্থাপন করতে হবে খ. অপরাধ সম্পর্কে লিখতে গিয়ে মনে রাখতে হবে যেন কদর্য বিষয় সংবাদে চলে না আসে
গ. সংবাদ যেন অতিরঞ্জিত না হয়
ঘ. অপরাধীদের প্রতি সহানুভূতিশীল হতে হবে
ঙ. ‘গুজব’-এর উপর নিউজ তৈরির আগে তা অবশ্যই যাচাই করতে হবে
চ. কারো ব্যক্তিগত জীবন নিয়ে ঘাঁটাঘাঁটি করা যাবে না। ব্যক্তিটি যদি পাবলিক ফিগার হয়, তাঁর জীবনের নানা বিষয়ে প্রশ্ন করা যাবে
ছ. অভিযুক্ত ব্যক্তির আত্মপক্ষ সমর্থনের অধিকার আছে, তাই তাঁর বক্তব্য বা প্রতিবাদ ছাপানোর ব্যবস্থা করতে হবে
জ. আদালতের প্রতি সম্মান প্রদর্শনপূর্বক অপরাধকে সবসময় নিরুৎসাহিত করতে হবে
ঝ. সমাজ গঠনে ভূমিকা রাখতে হবে
ঞ. সংবাদের কোনো তথ্য বা বক্তব্য যেন ধর্মীয় অনুভূতিতে আঘাত না করে, সেদিকে নজর রাখতে হবে ট. প্রভাবিত হয়ে কিংবা উদ্দেশ্যমূলকভাবে নিউজ করা থেকে বিরত থাকতে হবে (junket)
ঠ. স্ব স্ব পত্রিকার সম্পাদকীয় নীতি অনুসরণ করতে হবে।

(পুজিবাজার রিপোর্ট __সংবাদ___সাংবাদিকতা__হলুদ সাংবাদিক, হলুদ সাংবাদিক এক কথায় অর্থের বিনিময়ে কোন গোষ্ঠী , জাতি ধর্ম অথবা কোন ব্যক্তির লেখনীর মাধ্যমে সংবাদপত্রে প্রিন্ট ইলেকট্রনিক মিডিয়ায় সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে মিথ্যা বিভ্রান্তিমূলক তথ্য দিয়ে সংবাদ লেখকে প্রকাশ করা কে হলুদ সাংবাদিকতা বলা হয় । তার উদাহরণ শ্রীলঙ্কায় এক সাংবাদিক টকশো বিভিন্ন প্রিন্ট ও ইলেকট্রনিক মিডিয়ায় এবং সামাজিক যোগাযোগের মাধ্যমে বলছেন বর্তমান শ্রীলঙ্কা সিঙ্গাপুর হয়ে গেছে । এ ব্যাপারে সে খুব পারদর্শী ছিল এবং একাধিক জাতীয় পুরস্কার পেয়েছেন___পরবর্তীতে শ্রীলংকার জনতা তাকে রাজপথে দিগম্বর করে ঘুরিয়েছেন এবং গণধোলাই দিয়েছে।

দেশে এই অবস্থা বিরাজমান___যেকোনো সময় চাটুকার এবং মিথ্যা তথ্য দিয়ে যারা বিভ্রান্তকর সংবাদ পরিবেশন করেন তাদের পরিনীতি দেখার অপেক্ষায় আছে বাংলাদেশে।

বস্তুনিষ্ঠ সাংবাদিকতা করতে গিয়ে পাঁচটি চাঁদাবাজির মামলা আসামি হয়েছে, শ্রদ্ধেয় সাংবাদিক এবিএম আজরাফ টিপু, মাযহারুল পারভেজ , ও শফিকুল ইসলাম মতি ভাইয়ের সহযোগিতায় মামলা থেকে মুক্ত হয়েছে আর সাথে ছিল আমার প্রিয় সাংবাদিক সহকর্মী বন্ধুরা ।_আমার ২০ বছর সাংবাদিকতায় আমি কোনদিন মারামারির করলে পড়িনি লাঞ্ছিত হয়নি হেনস্থা হয়নি, এর প্রধান কারণ আমি এই ধরনের কাজে যাই না , চিন্তাভাবনা করে কাজ করি ,এবং আমি নরসিংদীর স্থানীয় বাসিন্দা, এবং আমি যে পত্রিকা গুলোতে কাজ করি এগুলো প্রথম সারির পত্রিকা এবং যে লোকাল পত্রিকায় কাজ করি সেটাও নরসিংদীর প্রথম সারির।

লেখক: মাসুদ রানা বাবুল, সাংবাদিক 

সর্বশেষ