শেখ হাসিনার অধীনে সিএ সরকার গঠনের প্রস্তাব তমিজি হকের

নিজস্ব প্রতিবেদক:

হক গ্রুপের ব্যবস্থাপনা পরিচালক আদম তমিজি হক আজ সোমবার তার ফেসবুক স্ট্যাটাসে, বাংলাদেশের রাজনৈতিক দল ও সরকার ব্যবস্থা কেমন হওয়া উচিত, এ সংক্রান্ত তার মতামত প্রকাশ করেছেন।

তিনি লিখেছেন, “দল এবং সরকার দুইটা আলাদা হওয়া উচিত। বিএনপি’র ক্ষেত্রেও তাই যেমনটা কংগ্রেস। সোনিয়া গান্ধী দলের জন্য এবং দেশের জন্য পেছন থেকে অগ্রণী ভূমিকা পালন করে। ঠিক একইভাবে বিজেপির জন্য অমিত সাহা একই কাজ করে। সামনের সারিতে থেকে দল চালানো যায় না।”

তিনি বলেন, ইসরাক এবং তাবিদ কে বিএনপির কেন্দ্রীয় কমিটির সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক করা উচিৎ এবং কাজী জাফরুল্লাহ ও ফারুক খান আওয়ামীলীগ এর সভাপতি-সাধারণ সম্পাদক করা উচিৎ। তারপরে দুই বছর মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার অধীনে সি এ (চীফ এডভাইজার) সরকারের মাধ্যমে মাঠ একদম পরিষ্কার করে নির্বাচন অনুষ্ঠিত করা উচিৎ এবং তখনও আওয়ামী লীগ-ই জিতবে।

তিনি বলেন, “আমাদের ১০০০ পচা লোকের জন্য এক লাখ জনতা নষ্ট হতে পারে না। কিন্তু আওয়ামী লীগের -১% দরকার আর এইটার জন্য কিছু করছি।”

আদম তমিজি বলেন, “মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে এই দেশের স্বার্থে মানুষের কল্যাণে সরকার প্রধান হিসেবে থাকতেই হবে এখানে কোন সন্দেহ নাই। তোমরা (বিএনপি) এইসব স্বপ্ন দেখে ১৫ বছর পার করছো। এইসব ভুলভাল স্বপ্ন দেখা বাদ দাও। আওয়ামী লীগকে সরানোর মত বড় কোন লোকবল তোমাদের নাই।”

স্টাটাসে আদম তমিজি আরোও বলেন, “আমি বিশ্বাসঘাতক না মাননীয় প্রধানমন্ত্রী এইটা খুব ভালো করেই জানেন। তার ভালোবাসার প্রতি আমার সর্বোচ্চ পরিমাণ অগাধ বিশ্বাস রয়েছে সেই জন্য আমি সরাসরি তার বিপক্ষে গিয়েছি যাতে করে তার সকল শত্রু প্রকাশ্যে চলে আসে।

তিনি বলেন, আমি আবার আমার আগের অবস্থানে ফিরে যাই এবং তাদের গোলকধাঁধায় ফেলি। তারা চেয়েছিল আমাকে দল থেকে বের করে দিতে এবং বিভিন্ন মামলা দিয়ে আমাকে ফাঁসাতে। এত মরিয়া হয়ে লেগেছে আমাকে ফাঁসাতে কারণ আমি প্রধানমন্ত্রী কাছের একজন।

তিনি মনে করেন, নেত্রীর কাছের লোকজনকে তার থেকে দূরে সরিয়ে রাখা হয় এবং নেত্রীর ও তার কাছের লোকজনের মোবাইল পেগাসাস দ্বারা সার্বক্ষণিক ট্রেকিং এ রাখা হয়। আমি সবই জানি এখন শুধু জানানোর সময়। এই সমস্ত দুষ্ট লোকেরা ভেবেছিল আমি মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর বিরুদ্ধে গিয়েছি এবং এই সুযোগে তারা সবাই ওপেন হয়ে গেছে এবং আমি এটাই চেয়েছিলাম, খেলাটা এটাই ছিল।

আদম তমিজি বলেন, সর্বকালের সর্বশ্রেষ্ঠ মহামানব বাঙালির রাখাল রাজা জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান ভুল মানুষকে বিশ্বাসের মাধ্যমে নিজের অত্যন্ত কাছের লোকজনের ষড়যন্ত্রের শিকার হয়ে সপরিবারে শহীদ হন এবং সেই একই ষড়যন্ত্র মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর বিরুদ্ধেও করা হচ্ছে বলে মনে করি।

তিনি বলেন, আমি সম্ভবত মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর পছন্দের। তারপরও আমার ফ্যাক্টরি লুট করে, আমার রংপুরের বাসা দখল করার পরিকল্পনা করে, আর আমার বাকি সম্পত্তিও দখল করারও পরিকল্পনা করে রেখেছে। তোমরা দেখো, আমি সবাইকে চিনিয়ে দিয়েছি। এখন মাননীয় প্রধানমন্ত্রী সিদ্ধান্ত নেবেন কে কি?

সর্বশেষ