বজ্রসহ বৃষ্টির সম্ভাবনা

 

 

নরসিংদীর রায়পুরায় ও বেলাবোতে বজ্রপাতে এক নারীসহ ৩ জন নিহত হয়েছেন। আহত হয়েছেন আরো ১ জন। বৃহস্পতিবার দুপুরে রায়পুরার অলিপুরা ইউনিয়নের লোচনপুর গ্রামে ও বেলাবো উপজেলার চর লক্ষীপুর গ্রামের ৮নং ওয়ার্ডে এ ঘটনা ঘটে।

নিহতরা হলো- রায়পুরার উত্তরবাখরনগর ইউনিয়নের লোচনপুর গ্রামের জালাল উদ্দীনের ছেলে আহাদ মিয়া (২১) ও একই গ্রামের বাছেদ মিয়ার ছেলে রানা মিয়া (২০)। এ ঘটনায় আহত হয়েছে একই গ্রামের নাছির উদ্দিনের ছেলে শিমন মিয়া (২০)। নিহত রানা ও আহাদ মিয়া ঢাকায় একটি শপিং ব্যাগ কারখানায় কাজ করতো। এছাড়া বজ্রপাতে নিহত হয়েছেন বেলাবো উপজেলার চর লক্ষিপুর নামা পাড়া গ্রামের তাজু মিয়ার স্ত্রী হেলেনা বেগম(৩৮)।

এলাকাবাসী ও নিহত রানার বড় ভাই রুবেল মিয়া, নিহত আহাদ, রানা ও শিমন তারা তিনজন বন্ধু। আমার ভাইসহ তারা তিন জনই ঢাকায় একটি শপিং ব্যাগ তৈরীর কারখানায় কাজ করে। এবার ঈদের ছুটিতে ৩ জনই বাড়িতে আসে। বৃহস্পতিবার দুপুরে তারা ৩ বন্ধু ঝাল মুড়ি খাওয়ার জন্য স্থানীয় বাজারের দিকে যাচ্ছিল। ওই সময় আকাশ মেঘাচ্ছন্ন হয়ে বৃষ্টি সাথে সাথে বজ্রপাত শুরু হয়। ওই সময় বজ্রপাত তাদের উপর পড়ে। এসময়  তারা মাটিতে লুটিয়ে পড়েন। পরে স্থানীয়রা তাদের উদ্ধার করে হাসপাতালে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসক আহাদ ও রানাকে মৃত ঘোষনা করেন। আহতবস্থায় শিমনকে ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে প্রেরন করেন। এদিকে বেলাবোতে নিহত হেলেনা বেগম ছাগলকে ঘাস খাওয়ানোর জন্য মাঠে গিয়েছিল। ওই সময় হঠাৎ বজ্রপাত শুরু হয়। তখন বজ্রপাতে হেলেনা বেগম মারা যায়।উত্তর বাখন নগর ইউনিয়নের চেয়ারম্যান হাবিুবুর রহমান, খবর পেয়ে সাথে সাথে নিহতদের বাড়িতে ছুটি আসি। এসে দেখি বজ্রপাতে দুই জনের মৃত্যু হয়েছে।

বেলাব থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. তানভীর আহমেদ ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, আমরা ঘটনাস্থলে এসেছি। নিহত হেলেনা বেগম বজ্রপাতে মারা যায়।

সর্বশেষ