গাজীপুরে মাদকের বিরুদ্ধে আলোচনা; মসজিদের ঈমামকে বিবস্ত্র করে নগ্ন ভিডিও ধারণ

মেহেদী হাসান শাহীন, স্টাফ রিপোর্টার:

জুমার বয়ানে মুসুল্লিদের সঙ্গে মাদকের কুফল সম্পর্কে আলোচনা করায় মসজিদের ইমামকে বিবস্ত্র করে নগ্ন ভিডিও ধারণ ও মারধরের অভিযোগ উঠেছে মাদক কারবারীদের বিরুদ্ধে।

গাজীপুর মহানগরের গাছা থানার চান্দরা আল-আকসা জামে মসজিদের হুজরাখানায় গত ২৬ জানুয়ারি এ ঘটনা ঘটে। এ ঘটনায় পর্নোগ্রাফি আইনে জিএমপি’র গাছা থানায় শুক্রবার একটি মামলা দায়ের করেছেন ভুক্তভোগী ঈমাম মুফতি শফিকুল ইসলাম তালুকদার।

মামলার আসামি সাবেক গাছা ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মশিউর রহমান মুকুলকে গ্রেফতার করেছে গাছা থানা পুলিশ। মামলার প্রধান আসামি মুকুলের ছোট ভাই মাদক কারবারী মফিজুর রহমান টুটুল পলাতক রয়েছে। প্রধান আসামি এখনো গ্রেফতার না হওয়ায় আতংকে রয়েছেন জানান; মুফতি শফিকুল ইসলাম তালুকদার।

ঘটনা সপ্তাহখানেক আগের হলেও ইজ্জতের ভয়ে প্রতিবেশী ও আশেপাশের মানুষদের এতদিন কিছু বলতে চাননি ভুক্তভোগী ইমাম শফিকুল ইসলাম তালুকদার। অন্যদিকে গাছা ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাবেক যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মুকুল’কে গ্রেফতারের পর বিষয়টি আলোচনায় উঠে আসে। এ ঘটনায় আলেম সমাজের মধ্যে তীব্র ক্ষোভের সৃষ্টি হয়েছে।

মসজিদের ঈমামের বিবস্ত্র করে নগ্ন ভিডিও ধারণ ও মারপিটের ভিডিও সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে ছড়িয়ে দেওয়ার ভয়ভীতি দেখিয়ে অভিযুক্তরা জোরপূর্বক ৫০ হাজার টাকাও আদায় করেছে বলে মামলায় অভিযোগ করেছেন ভুক্তভোগী ঈমাম শফিকুল ইসলাম তালুকদার।

মামলার বাদী মসজিদের ইমাম মুফতি শফিকুল ইসলাম তালুকদার জানান, তিনি মসজিদ সংলগ্ন দারুল হাবিব নামের মাদ্রাসা পরিচালনা করেন। উক্ত মাদ্রাসার পাশে মাদক কারবারিদের বিভিন্ন অপকর্মসহ মাদক বেচা-কেনা ও মাদকের নিয়মিত আড্ডা বসত। এতে মাদ্রাসার ছাত্রদের মনে নেতিবাচক প্রভাব পড়ছিল। তিনি জুমার খুতবায় গুরুত্বসহ মাদকের কুফল নিয়ে আলোচনা করতেন। জুমায় মাদক নিয়ে আলোচনার কারণে এলাকাবাসীর মধ্যে সচেতনতা সৃষ্টি হচ্ছিল। এর জেরে মাদক কারবারিরা বিভিন্ন সময় হুমকি দামকি দিয়ে আসছিলেন।

তিনি আরও জানান, এর জেরে এলাকার চিহ্নিত মাদক কারবারিরা ক্ষুব্ধ হয়ে মসজিদ-মাদ্রাসা বন্ধ করে দেওয়ার হুমকিসহ তাকে বিভিন্নভাবে ভয়ভীতি দেখিয়ে আসছিল। এসব হুমকি উপেক্ষা করে তিনি মানুষকে মাদকের কুফল সম্পর্কে সচেতন করতে মসজিদে নিয়মিত আলোচনা অব্যাহত রাখেন।

এতে একপর্যায়ে গত, ২৬ জানুয়ারি জুমার নামাজের আগের দিন দুপুর ১২টায় স্থানীয় যুবক মফিজুর রহমান টুটুলের (৩৭) নেতৃত্বে কয়েকজন মসজিদের হুজরাখানায় দেশীয় অস্ত্র শস্ত্র নিয়ে ঢুকে তার ওপর চড়াও হয়। এ সময় তাকে মারধর ও দিগম্বর করে মোবাইল ক্যামেরায় ভিডিও ধারণ করে। বিবস্ত্র ভিডিও সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে ছেড়ে দেওয়ার ভয়ভীতি দেখিয়ে ৫০ হাজার টাকা আদায় করে।

গাজীপুর মেট্রোপলিটনের গাছা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. ইব্রাহিম হোসেন ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, ভুক্তভোগী ইমাম দুইজনকে আসামি করে পর্নোগ্রাফিসহ ফৌজদারি অপরাধের বিভিন্ন ধারায় থানায় মামলা দায়ের করেছেন। আমরা ইতোমধ্যে মশিউর রহমান মুকুল নামে একজন আসামিকে গ্রেফতার করে আদালতে সোপর্দ করেছি। এ ঘটনায় অভিযান অব্যাহত রয়েছে।

সর্বশেষ