পোস্টার লাগাতে ওয়ার্ডভিত্তিক স্থান নির্ধারণ করে দেবে উত্তর সিটি

যত্রতত্র পোস্টার-ব্যানার-ফেস্টুন লাগানোর ফলে রাজধানীর সৌন্দর্য ব্যাহত হচ্ছে। এই অবস্থায় পোস্টার লাগানোর জন্য ওয়ার্ডভিত্তিক জায়গা নির্ধারণ করে দেওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছে ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশন (ডিএনসিসি)। যেখানে-সেখানে পোস্টার লাগিয়ে সৌন্দর্যহানির বিরুদ্ধে কঠোর অবস্থানে যাচ্ছে সংস্থাটি।

বুধবার (১৮ জানুয়ারি) ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশনের (ডিএনসিসির) সচিব ড. মোহাম্মদ মাহে আলম স্বাক্ষরিত এক বিজ্ঞপ্তিতে এই তথ্য জানানো হয়।

বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, ঢাকা শহরে যত্রতত্র অবৈধভাবে পোস্টার, রেক্সিন, দেওয়ালে লেখা, সাইনবোর্ড, ব্যানার লাগানোর ফলে নগরীরে সৌন্দর্য ব্যাহত হচ্ছে। নগরীর অপরিচ্ছন্ন হয়ে পড়ছে। ঢাকা শহরের সৌন্দর্য রক্ষা এবং একটি স্মার্ট সিটি হিসেবে গড়ে তুলতে হলে যত্রতত্র পোস্টার বন্ধ করতে হবে।

আরও বলা হয়, পোস্টার, ব্যানার ও পেস্টুন লাগানোর বিষয়ে সুনির্দিষ্ট আইন রয়েছে। নির্ধারিত স্থান ব্যতীত অন্য স্থানে পোস্টার-ব্যানার লাগানো আইনগত দণ্ডনীয় অপরাধ।

এর আগে গত ৭ জানুয়ারি ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশনের (ডিএনসিসির) দ্বিতীয় পরিষদের ১৯তম করপোরেশন সভায় বিষয়টি তোলা হয়। যেখানে কাউন্সিলরদের সর্বসম্মতিতে দ্রুত ব্যবস্থা নিতে সিদ্ধান্ত হয়।

সেদিন ১৯তম করপোরেশন সভায় মেয়র আতিকুল ইসলাম বলেন, ঢাকা শহরের সৌন্দর্য রক্ষায় এবং একটি স্মার্ট সিটি গড়ে তুলতে হলে এসব বন্ধ করতে হবে। অবৈধভাবে পোস্টার, ব্যানার লাগালে আইনানুগ ব্যবস্থা নেওয়া হবে। ডিএনসিসির প্রতিটি ওয়ার্ডে পোস্টার লাগানোর স্থান নির্ধারণ করে দেওয়া হবে। নির্ধারিত স্থানেই কেবল পোস্টার লাগানো যাবে। নির্ধারিত স্থান ছাড়া অন্য কোথাও কেউ পোস্টার লাগাতে পারবে না।

ডিএনসিসি মেয়র বলেন, ‘যত্রতত্র পোস্টার লাগানো বন্ধে আইন রয়েছে। আমরা ডিএনসিসি থেকে এ বিষয়ে গণবিজ্ঞপ্তি দিয়েও জনগণকে সাবধান করেছি। তারপরও অবৈধভাবে পোস্টার লাগিয়ে শহর নোংরা করা হচ্ছে। এটি আর হতে দেওয়া যাবে না। আমরা ইতোমধ্যে অভিযান শুরু করেছি। অবৈধ পোস্টার-ব্যানার লাগালে কোনো ছাড় নয়।’

মেয়র আরও বলেন, ‘মেট্রোরেল আমাদের রাষ্ট্রীয় সম্পদ। এটি জনগণের সম্পদ। আমাদের মাননীয় প্রধানমন্ত্রী মেট্রোরেলে পরে থাকা ময়লা নিজ হাতে কুড়িয়ে পরিষ্কার করেছেন। প্রধানমন্ত্রীর কাছ থেকে শিক্ষা নিয়ে, তাঁকে অনুসরণ করে আমাদের স্বপ্নের মেট্রোরেল পরিষ্কার-পরিচ্ছন্ন রাখতে হবে।’

সর্বশেষ