বিশ্বকাপে খেলতে না পারা হতাশার! তবে স্কোয়াড়ে থাকাটা চমৎকার

বিশ্বকাপে খেলতে না পারা হতাশার! তবে স্কোয়াড়ে থাকাটা চমৎকার

আকাশ দাশ, নিজস্ব প্রতিবেদকঃ

অস্ট্রেলিয়ায় শেষ হওয়া টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপে ইংলিশদের হয়ে একটি ম্যাচ ও খেলতে না পারাকে হতাশা বলে মনে করছেন পেসার টাইমাল মিলস। তবে খেলতে না পারলেও দলের সাথে থাকাকে চমৎকার বলছেন এই পেসার।

বিশ্বকাপের শেষে দীর্ঘদিন ক্রিকেটের বাইরে ছিলেন মিলস। পারিবারিক সমস্যার কারণে অস্ট্রেলিয়ার বিগ ব্যাশ লিগে খেলা হয়নি তার। পার্থ স্কর্চাসের সঙ্গে খেলার কথা থাকলে ও মেয়ের অসুস্থতায় সরে দাঁড়ান। সেই দুঃসহ অতীত ভুলে এবার মাঠে নিজের সামর্থ্য দেখাতে চান মিলস। সংযুক্ত আরব আমিরাতে ফ্র্যাঞ্চাইজি লিগে (আইএলটি) ডেজার্ট ভাইপার্সের হয়ে খেলবেন এই তারকা। সেইখানে জার্সি উন্মোচন অনুষ্ঠানে নিজের আকাঙ্ক্ষার কথা জানান সাবেক ওয়েস্ট ইন্ডিজ গতিতারকা।

৩০ বছর বয়সী বাঁহাতি পেসার ইংল্যান্ডের টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ জয়ী দলের সদস্য ছিলেন। তবে তার আনন্দ ম্লান হয়ে যায়, একটি ম্যাচেও তার খেলা হয়নি। তবে তিনি বলেন, “খেলতে না পারা (টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপে) ছিল হতাশার। স্কোয়াডের অংশ হতে পারা ছিল চমৎকার কিন্তু যে কেউ বলবে, সে একাদশে থাকতে চায়। কেউই সাইড লাইনে থাকতে চায় না।”

তিনি আরও বলেন, “আমি আবারও নিয়মিত কিছু ক্রিকেট খেলতে চাই। এ টুর্নামেন্টের পর হয়তো পিএসএলে খেলবো। আশা করি, সফল হবো এবং একাদশে (ইংল্যান্ডের টি-টোয়েন্টি দল) ফিরতে পারবো।”

ডেজার্ট ভাইপার্সের হাতে শিরোপা দেখতে আশাবাদী মিলস। আইএলটি টুর্নামেন্ট নিয়ে তিনি বলেন, “আমরা জিততেই এখানে এসেছি। সব দলই হোঁচট থেকে শুরু করে, শূন্য থেকে শুরু করে। কেবল একটি দল জেতে। আমি যথেষ্ট সৌভাগ্যবান যে, গত কয়েকটি বছর বিজয়ী কিছু দলের সঙ্গে থেকেছি। এখানেও ট্রফি জিততে পারলে ভালো লাগবে এবং আশাবাদী আমরা সেটা পারবো।

এইদিকে পারিবারিক সমস্যা মিলস বলেন, “আমার মেয়ে অসুস্থ ছিল এবং কয়েক সপ্তাহ হাসপাতালে থাকতে হয়েছে। কিন্তু সে চমৎকারভাবে সেরে উঠেছে। আমি সত্যিই ভাগ্যবান যে তারা আমার সঙ্গে এখানে এসেছে। আমার বাড়ি নিয়ে আর দুশ্চিন্তা নেই, আমি তাদের চোখে চোখে রাখতে পারবো।”

সর্বশেষ