অভিভাবক হীন জাপা মুখ থুবড়ে পরেছে মনোহরদীতে

অভিভাবক হীন জাপা মুখ থুবড়ে পরেছে মনোহরদীতে

মনোহরদী-বেলাবো তে দীর্ঘদিন ধরে জাতীয় পার্টির রাজনীতি ঘুমন্ত। জাতীয় পার্টির অনুসারী ,ভক্তরা ই জানেন না প্রকৃত ই এ পার্টির কার্যক্রম কতোদূর কি চলমান। মনোহরদী আওয়ামী যুবলীগ কর্মী মাযহারুলের বাড়িতে ছোট একটা অফিস রয়েছে। যা হাস‍্যকর। এক সময়ের আলোচিত উল্লেখযোগ্য রাজনৈতিক দল জাপা। এর একটি অফিস চালাতেও যদি যুবলীগের ছত্রছায়া দরকার হয় তাহলে আন্দাজ করা যায় এদের কার্যক্রম কতদূর। তৃণমূল কর্মীরা সঠিক ও যোগ‍্য নেতার অভাবে দিন দিন তৃণমল কর্মীবৃন্দ অভিভাবক হীন হয়ে পরছে বলে ও আক্ষেপ করেন।।

তথাকথিত জাপা হতে মনোনীত প্রার্থী রয়েছেন একজন বেলাবোর নিবাসী নেওয়াজ আলী ভূঁইয়া। যদিও মনোহরদী উপজেলায় উনার পরিচিতি কম। পৌরসভা,উপজেলা,ইউনিয়ন সহ মাঠপর্যায়ে উনার কার্যক্রম তেমন নেই। নেই জাতীয় পার্টি র কোনো অঙ্গসংগঠনের কমিটি কিংবা কোনো রাজনৈতিক কর্মশালা ।

মনোহরদীতে মরহুম এরশাদ সাহেব,জি এম কাদের এবং রওশন এরশাদের ভক্ত রয়েছেন কিন্তু উনারা তৃণমূলে কোনো অভিভাবক বা যোগ্য কান্ডারী পাচ্ছেন না।
গত কয়েকদিন আগে একাত্তর সদস‍্য বিশিষ্ট একটা কমিটি ঘোষণা করা হয় যাতে অপরিচিত মুখ, নাইটগার্ড, অলস ঘরজামাই সহ হাস‍্যকর কিছু লোকজন রাখা হয়।
এবং উপজেলা সভাপতি ঘোষণা করা হয় বরাবরের মতো এ‍্যাডভোকেট কামাল কে যিনি সন্ত্রাসী পাচারকারী মনির চেয়ারম্যানের অবৈধ বিষয়ে মামলা পরিচালনা করে অবৈধ কিছু টাকা উপার্জন করেছে।

সন্ত্রাস এবং অন্য রাজনৈতিক নেতার সঙ্গে আঁতাত করে কখনও ই এ জাপার সুফল আসবে বলে তৃণমূল কর্মী রা আক্ষেপ করেন।।
জনগণ ভোটের রাজনীতি চায়,গনতান্ত্রিক উপায়ে দ্বাদশ নির্বাচন চায়। এই মুহূর্তে উপযুক্ত নেতা র অভাব ভোগ করছেন তৃণমূল জাপা কর্মীরা।

সর্বশেষ