মে মাসে চালু হচ্ছে স্কুলবাস: মেয়র আতিক

আগামী মে মাসে প্রথম ধাপে রাজধানীতে স্কুলবাস নামানোর পরিকল্পনার কথা জানিয়েছেন ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশনের (ডিএনসিসি) মেয়র আতিকুল ইসলাম।

মঙ্গলবার (১০ জানুয়ারি) বনানীর চট্টগ্রাম গ্রামার স্কুলে শিক্ষক ও অভিভাবকদের সাথে স্কুল বাস প্রবর্তনসংক্রান্ত বিষয়ে মতবিনিময় সভায় তিনি এসব কথা বলেন।

মতবিনিময় সভায় শিক্ষক ও অভিভাবকরা স্কুল বাস সার্ভিসসংক্রান্ত বিভিন্ন বিষয়ে ডিএনসিসি মেয়রের সাথে কথা বলেন।

মেয়র আতিক বলেন, ‘সন্তানরাই বাবা মায়ের সবচেয়ে মূল্যবান সম্পদ। তাদের নিরাপত্তার বিষয়টি অতি গুরুত্বপূর্ণ। স্কুল বাসগুলোতে সিসি ক্যামেরাসহ আধুনিক প্রযুক্তির ব্যবহার করে বাচ্চাদের নিরাপত্তা নিশ্চিত করা হবে। অ্যাপসের মাধ্যমে ট্র্যাকিং ব্যবস্থা থাকবে। নিরাপত্তা ও স্কুলবাসের চালক ও স্টাফদের প্রশিক্ষণের ব্যবস্থাও করা হবে। একটি হটলাইন নম্বর থাকবে যেটির মাধ্যমে অভিভাবকেরা সার্বক্ষণিক যোগাযোগ করতে পারবে। শিক্ষক এবং অভিভাবকদের আগ্রহ ও সমর্থন এটি বাস্তবায়নে ব্যাপক ভূমিকা রাখবে। আমরা আশা করছি প্রথম ধাপে মে মাসে স্কুল বাস চালু করতে পারবো।’

এসময় একজন অভিভাকের প্রশ্নের জবাবে ডিএনসিসি মেয়র বলেন, ‘অনেক শিক্ষার্থী মিলে একটি স্কুল বাসে যাতায়াত করবে। যেখানে একজন শিক্ষার্থী একাই একটি গাড়ি ব্যবহার করে। তাই পুলিশের ট্রাফিক বিভাগকে আহ্বান করা হবে যেন সিগন্যালে স্কুল বাসকে অগ্রাধিকার দেওয়া হয়। এছাড়াও স্কুল বাসে উঠার সাথে সাথেই শিক্ষার্থীদের উপস্থিতি নিশ্চিত করা হবে। নিরাপত্তায় সর্বোচ্চ গুরুত্বারোপ করা হবে। কোনো বাস নষ্ট হয়ে গেলে সেক্ষেত্রে বিকল্প বাসের ব্যবস্থা থাকবে যেন দ্রুত সার্ভিস দেওয়া যায়।’

মেয়র আরও বলেন, ‘স্কুলের পাশে ৫০০ মিটারের মধ্যে কোনো প্রকার অস্থায়ী দোকান-পাট থাকবে না। স্কুল বাসে শিক্ষার্থীরা যেন স্বাচ্ছন্দ্যে স্কুল বাসে উঠা নামা করতে পারে সেজন্য স্কুলের পার্শ্ববর্তী এলাকায় গাড়ি পার্কিং বন্ধ করা হবে। আমরা সকল দিক বিবেচনায় নিয়েই কাজ করছি।’

মেয়র আতিক বলেন,’ আজকে চিটাগং গ্রামার স্কুলে এসেছি। পরবর্তী সময়ে স্কলাস্টিকা স্কুল, স্যার জন উইলসন স্কুল ও বাংলাদেশ ইন্টারন্যাশনাল টিউটোরিয়াল স্কুলেও যাবো শিক্ষক ও অভিভাবকদের সাথে আলাপ করতে। অন্যান্য কিছু স্কুলও স্কুল বাস সার্ভিস চালু করতে আমাদের সাথে যোগাযোগ করছে।’

মতবিনিময় সভায় অন্যান্যদের সাথে আরও উপস্থিত ছিলেন ডিএনসিসির প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা মোহাম্মাদ সেলিম রেজা, প্রধান প্রকৌশলী ব্রিগেডিয়ার জেনারেল মুহ. আমিরুল ইসলাম, সচিব মোহাম্মদ মাসুদ আলম ছিদ্দিক, অতিরিক্ত প্রধান প্রকৌশলী মোহাম্মাদ শরীফ উদ্দীন, পুলিশের ট্রাফিক বিভাগের প্রতিনিধি, চিটাগং গ্রামার স্কুল-ঢাকার প্রিন্সিপাল আছিয়া আলম চৌধুরীসহ অন্যান্য শিক্ষকবৃন্দ এবং অভিভাবকরা।

সর্বশেষ