চকবাজারে ব্যবসায়ী ও কর্মচারীকে অপহরণের পর হত্যা,গ্রেফতার-৪

হাসানুজ্জামান সুমন,বিশেষ-প্রতিনিধি:
আজ বৃহস্পতিবার (২৯ ডিসেম্বর ২০২২) বেলা ১১:০০ টায় ডিএমপি মিডিয়া সেন্টারে আয়োজিত এক প্রেস ব্রিফিংয়ে এ বিষয়ে বিস্তারিত তুলে ধরেন ডিএমপির যুগ্ম পুলিশ কমিশনার (ক্রাইম) বিপ্লব বিজয় তালুকদার।
রাজধানীর চকবাজারে প্লাস্টিকের কাঁচামাল ব্যবসায়ী ও কর্মচারীকে অপহরণ করে হত্যার ঘটনায় জড়িত থাকার অভিযোগে ৪ জনকে গ্রেফতার করেছে ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশের (ডিএমপি) লালবাগ বিভাগের চকবাজার থানা পুলিশ।
গ্রেফতারকৃতরা হলো নুরুজ্জামান হাওলাদার, মোঃ আঃ আজিজ শিকদার, হাফেজ চৌকিদার ও দেলোয়ার হোসেন মোল্লা ওরফে দেলু। গ্রেফতারের সময় তাদের হেফাজত থেকে ৬টি মোবাইল ফোন জব্দ করা হয়।
বুধবার (২৮ ডিসেম্বর ২০২২) রাতে রাজধানী ঢাকা ও বরিশালের বিভিন্ন এলাকায় অভিযান চালিয়ে তাদের গ্রেফতার করা হয়।
তিনি বলেন, গত ১৫ ডিসেম্বর রাত ১১:০০ টায় প্লাস্টিকের কাঁচামাল ব্যবসায়ী জুয়েল শিকদারের বাবা থানায় হাজির হয়ে তার ছেলের নিখোঁজের বিষয়ে চকবাজার মডেল থানায় সাধারণ ডায়েরি করেন। এরই ধারাবাহিকতায় চকবাজার মডেল থানা পুলিশ গোয়েন্দা তথ্যের ভিক্তিতে অপহৃত জুয়েল শিকদার ও তার কর্মচারী মোর্শেদ আলমের সর্বশেষ অবস্থান বরিশাল জেলার মেহেন্দিগঞ্জ উপজেলায় নিশ্চিত করে। পরে বরিশাল জেলার মেহেন্দিগঞ্জ থানা এলাকায় অভিযান চালিয়ে অপহরণকারী নুরুজ্জামান, আজিজ, হাফেজ চৌকিদার ও দেলোয়ারকে গ্রেফতার করা হয়।
প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে প্রাপ্ত তথ্য সম্পর্কে তিনি বলেন, অপহরণকারীরা পরস্পর যোগসাজসে দুইজনকে অপহরণ করে বরিশাল জেলার মেহেন্দিগঞ্জ উপজেলায় নিয়ে যায়। পরে তাদেরকে মাছ ধরার ট্রলারে উঠিয়ে মেঘনা নদীর মাঝামাঝি নিয়ে জোরপূর্বক টাকা ছিনিয়ে নেয়। পূর্ব পরিকল্পনা অনুযায়ী ভিকটিমদের চোখে মরিচের গুড়া দিয়ে গলা চেপে ধরে মৃত্যু নিশ্চিত করে মেঘনা নদীতে ফেলে দেয়।
গ্রেফতারকৃতদের বিরুদ্ধে ডিএমপির চকবাজার মডেল থানায় মামলা রুজু হয়েছে বলে জানান পুলিশের এ কর্মকর্তা।
ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশের লালবাগ বিভাগের উপ-পুলিশ কমিশনার মোঃ জাফর হোসেনের নির্দেশনায় চকবাজার মডেল থানা পুলিশ অভিযানটি পরিচালনা করে।

সর্বশেষ