আগৈলঝাড়ায় আত্মহত্যার প্ররোচনার মামলায় স্বামী গ্রেফতার

স্টাফ রিপোর্টারঃ-
যৌতুকের নির্যাতন সহ্য করতে না পেরে বরিশালের আগৈলঝাড়ায় গৃহবধু গলায় রশি দিয়ে আত্মহত্যা করেছে। আত্মহত্যার প্ররোচনা মামলায় স্বামীকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। লাশ ময়নাতদন্তের জন্য মর্গে প্রেরণ করা হয়েছে।
থানার মামলাসূত্রে জানাগেছে, উপজেলার গৈলা ইউনিয়নের অশোকসেন গ্রামের মধুসুদন হালদারের ছেলে সুব্রত হালদার বিয়ের পর থেকে স্ত্রী এক সন্তানের জননী সুবর্ণা হালদারকে যৌতুকের জন্য দীর্ঘদিন ধরে শারীরিক নির্যাতন করে আসছে। বুধবার রাতে পুনরায় সুবর্ণাকে পিতার বাড়ী থেকে যৌতুক এনে দেয়ার জন্য চাঁপ প্রয়োগ সহ শারীরিক নির্যাতন করে। নির্যাতন সইতে না পেরে ওই রাতেই বাড়ির পাশে গাছের সাথে গলায় রশি দিয়ে আত্মহত্যা করে। গতকাল বৃহস্পতিবার সকালে পুলিশের এসাই আলী হোসেন ঘটনাস্থলে গিয়ে লাশ উদ্ধার করে থানায় নিয়ে আসে এবং আত্মহত্যার প্ররোচনার অভিযোগে স্বামী সুব্রত হালদারকে আটক করে। এঘটনায় গৃহবধু সুবর্ণার পিতা শ্যামল মন্ডল বাদী হয়ে আগৈলঝাড়া থানায় আত্মহত্যার প্ররোচনার অভিযোগে স্বামীসহ চারজনকে আসামী করে মামলা দায়ের করেন। গতকাল বৃহস্পতিবার দুপুরে স্বামী সুব্রতকে আত্মহত্যার প্ররোচনা মামলায় গ্রেফতার দেখিয়ে বরিশাল আদালতে প্রেরণ করে। এব্যাপারে থানার ওসি (তদন্ত) মাজাহারুল ইসলাম সাংবাদিকরে জানান, সুবর্ণার পিতার পরিবার থেকে আত্মহত্যার প্ররোচনা মামলায় স্বামীকে গ্রেফতার করে বরিশাল আদালতে প্রেরণ করা হয়েছে। লাশ ময়নাতদন্তের জন্য মর্গে প্রেরণ করা হয়েছে।

সর্বশেষ