সুখবর নেই বাজারে

 

বাজারে শীতের সব ধরনের সবজির সরবরাহ বেড়েছে। তাই সবজির বাজারে কিছুটা স্বস্তি দেখা দিয়েছে। তবে আটা, তেল, চিনি ও ডালসহ নিত্য প্রয়োজনীয় দ্রব্যের দামে কোনো পরিবর্তন হয়নি। বিক্রি হচ্ছে আগের মতোই চড়া দামে। সাধারণ ক্রেতারা সবজির ক্রয় করে স্বস্তি প্রকাশ করলেও চাল-চিনি-তেলের মতো নিত্যপ্রয়োজনীয় দ্রব্য ক্রয় করতে অস্বস্তি প্রকাশ করেছেন।

শুক্রবার (২৩ ডিসেম্বর) সকালে রাজধানীর ধানমন্ডিসহ বিভিন্ন কাঁচাবাজার ঘুরে বিক্রেতাদের সঙ্গে কথা বলে জানা যায়, গত এক সপ্তাহ আগের তুলনায় শীতকালীন কিছু সবজির দাম কেজি প্রতি ১০ থেকে ২০ টাকা পর্যন্ত কমেছে। তবে অনেক নিত্যপণ্যের দাম এখনো সাধারণ মানুষের নাগালের বাইরে।

আজ রাজধানীর কাঁচাবাজার ঘুরে দেখা যায়, আকার ভেদে প্রতি পিস ফুলকপি ও বাঁধাকপি ২৫ থেকে ৩০ টাকায় বিক্রি হচ্ছে। টমেটো বিক্রি হচ্ছে ৭০ থেকে ৮০ টাকায়। প্রতি কেজি সিম ৩০ থেকে ৪০ টাকা, পেঁপের কেজি ২০ টাকা, লম্বা বেগুনের কেজি ৪০ টাকা, গোল বেগুন বা তাল বেগুনের কেজি ৬০ টাকা, নতুন আলুর কেজি ২৫ থেকে ৩০ টাকা। লাউ পিস ৫০ টাকা, করলা কেজি মানভেদে ৬০ থেকে ৭০ টাকা, কাঁচকলার হালি ৩০ টাকা, দেশি গাজর কেজিতে ২০ টাকা কমে ৫০ থেকে ৬০ টাকায় বিক্রি হচ্ছে।  চিচিঙ্গা ও ধুন্দুলের কেজি ৬০ টাকা, শালগমের কেজি ৩০ থেকে ৪০ টাকা।

স্বস্তি সবজির বাজারে, অস্বস্তি আটা-চিনি-তেলে

এদিকে বাজারে কমেনি মসুর ডাল ও আটা-ময়দার দাম। খুচরায় প্রতি কেজি মসুর ডাল এখনো ১৩০ থেকে ১৪০ টাকায় বিক্রি হচ্ছে। প্রতি কেজি আটা ৭০ টাকা ও ময়দা ৭৫ টাকা। শুধু বোতলজাত সয়াবিন তেল নয়, খোলা পাম তেলও নির্ধারিত দামের থেকে বেশি দামে বিক্রি হতে দেখা গেছে। প্রতি লিটার পাম তেল বিক্রি হওয়ার কথা ১১৭ টাকায়, যা ১২০ থেকে ১২২ টাকায় বিক্রি হচ্ছে।

বাজারে মাছের সরবরাহের ভালো থাকার কারণে এখন মাছের দাম কম। সব ধরনের চাষের মাছের দাম ২০ থেকে ৫০ টাকা কমেছে। চাষের কই, তেলাপিয়া, পাঙাশ বিক্রি হচ্ছে ১৫০ থেকে ২০০ টাকার মধ্যে। এছাড়া রুই, কাতলা কার্পজাতীয় চাষের মাছ ২৬০ থেকে২৮০ টাকার মধ্যে বিক্রি হচ্ছে। তবে খুব একটা হেরফের হয়নি দেশি জাতের মাছগুলোর দামে।

এছাড়া মাংস, চালসহ অন্যান্য পণ্যের দাম অপরিবর্তিত রয়েছে। বাজারে পাইজাম চাল প্রতি কেজি ৫৮ টাকা, আটাশ চাল ৬০ থেকে ৬২ টাকা, নাজিরশাইল ৭০ থেকে ৭৫ টাকা, হাসকি ২৯ প্রতি কেজি ৬০ থেকে ৬২ টাকায় বিক্রি হচ্ছে।

বিক্রেতারা বলছেন, বাজারে এখন প্রচুর শীতের সবজি রয়েছে। প্রায় সব ধরনের সবজির সরবরাহ বেশ ভালো। ফলে শীতকালীন সবজির দাম এখন কমতির দিকে। কিন্তু সপ্তাহের ব্যবধানে চাল-চিনি-তেলেসহ প্রায় সব ধরনের  নিত্য প্রয়োজনীয় দ্রব্য অপরিবর্তিত থাকতে দেখা গেছে।

সর্বশেষ