আফগানিস্তানের নারীদের বিশ্ববিদ্যালয় বন্ধ ঘোষণা তালেবানের

আফগানিস্তানের প্রাইভেট এবং পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয়গুলি থেকে মহিলাদের অবিলম্বে নিষিদ্ধ করা হয়েছে। পরবর্তী নির্দেশ না আসা পর্যন্ত এই নির্দেশ বহাল থাকবে বলে জানানো হয়েছে। তালিবান সরকারের একজন মুখপাত্র মঙ্গলবার এই কথা জানিয়েছেন। মহিলাদের বিষয়ে এই সর্বশেষ আদেশটি তাদের অধিকার এবং স্বাধীনতার উপর আঘাত বলে মনে করা হচ্ছে। তালিবান সরকারের বৈঠকের পরে এই সিদ্ধান্ত ঘোষণা করা হয়।

প্রাথমিকভাবে আরও মধ্যপন্থী শাসন, নারী এবং সংখ্যালঘু অধিকারের প্রতিশ্রুতি দেওয়া সত্ত্বেও, তালিবানরা তাদের ইসলামি আইন অথবা শরিয়ার কঠোর ব্যাখ্যাকে ব্যাপকভাবে প্রয়োগ করেছে।

তারা মিডল স্কুল এবং হাই স্কুলে মেয়েদের নিষিদ্ধ করেছে আগেই। পাশাপাশি বেশিরভাগ চাকরি থেকে মহিলাদের সুযোগকে সীমাবদ্ধ করেছে। এছাড়াও তাদেরকে জনসমক্ষে মাথা থেকে পা পর্যন্ত পোশাক পরার নির্দেশ দিয়েছে তালেবান সরকার। মহিলাদের পার্ক এবং জিমে যাওয়া থেকেও নিষিদ্ধ করা হয়েছে।

উচ্চশিক্ষা মন্ত্রণালয়ের মুখপাত্র জিয়াউল্লাহ হাশমির শেয়ার করা একটি চিঠিতে বেসরকারি এবং পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয়গুলিকে যত তাড়াতাড়ি সম্ভব এই নিষেধাজ্ঞা কার্যকর করতে বলা হয়েছে। এই নিষেধাজ্ঞা কার্যকর করা হলে তা মন্ত্রণালয়কে জানাতেও বলা হয়েছে।

হাশমি তার অ্যাকাউন্ট থেকে এই চিঠিটি ট্যুইট করেছেন এবং অ্যাসোসিয়েটেড প্রেসকে একটি বার্তায় এই চিঠির বিষয়বস্তু নিশ্চিত করেছেন।

বিশ্ববিদ্যালয়ের উপর নিষেধাজ্ঞাটি আফগান মেয়েরা তাদের উচ্চ বিদ্যালয়ের স্নাতক পরীক্ষা দেওয়ার কয়েক সপ্তাহ পরে এসেছে। যদিও গত বছর তালিবানরা দেশটি দখল করার পর থেকে মহিলাদের শ্রেণীকক্ষে যাওয়া নিষিদ্ধ করা হয়েছিল।–জি নিউজ

সর্বশেষ