যুদ্ধবিধ্বস্ত নাজুক অর্থনীতিকে অবলম্বন করে বঙ্গবন্ধু শুরু করেছিলেন দেশ পুনর্গঠনের কাজ: ড.কলিমউল্লাহ

যুদ্ধবিধ্বস্ত নাজুক অর্থনীতিকে অবলম্বন করে বঙ্গবন্ধু শুরু করেছিলেন দেশ পুনর্গঠনের কাজ: ড.কলিমউল্লাহ

জাতিরপিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ১০২ তম জন্মোৎসব উপলক্ষ্যে জানিপপ কর্তৃক আয়োজিত জুম ওয়েবিনারে এক বিশেষ সেমিনারের ৫০৩তম পর্ব অনুষ্ঠিত হয়।
জানিপপ-এর প্রতিষ্ঠাতা চেয়ারম্যান প্রফেসর ড.মেজর নাজমুল আহসান কলিমউল্লাহ, বিএনসিসিও’র সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত এ সেমিনারে প্রধান অতিথি হিসেবে সংযুক্ত ছিলেন এশিয়ান টেলিভিশনের সিনিয়র সাংবাদিক রফিকুল ইসলাম রলি এবং গেস্ট অব অনার হিসেবে সংযুক্ত ছিলেন, ছাত্রলীগের সাবেক নেত্রী ও সফল নারী উদ্যোক্তা আমাতুন নূর শিল্পী ও সিনিয়র সাংবাদিক মোঃ হুমায়ুন কবির।
সেমিনারে বিশেষ অতিথি হিসেবে সংযুক্ত ছিলেন, বঙ্গবন্ধু কমিশনের আন্তর্জাতিক প্রচার সেলের কার্যকরী সদস্য প্রকৌশলী আশরাফুল আলম তমাল, ছাত্রলীগের কেন্দ্রীয় কমিটির সহ-সম্পাদক মুশফিক মাহমুদ মৃদুল, মালয়েশিয়া থেকে পিএইচডি গবেষক কাজী ফারজানা ইয়াসমিন।
সভায় মুখ্য আলোচক হিসেবে সংযুক্ত ছিলেন,গোপালগঞ্জস্থ বঙ্গবন্ধু বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের অধীনে পিএইচডি গবেষণারত প্রশান্ত কুমার সরকার।

অন্যান্যের মধ্যে সভায় সংযুক্ত ছিলেন কুমিল্লার লাকসাম থেকে প্রভাষক মোঃ কামাল উদ্দিন ও সোনালী ব্যাংক কর্মকর্তা ঈপ্সিতা আক্তার রুমা।

সভাপতির বক্তৃতায় ড.কলিমউল্লাহ জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের স্মৃতির প্রতি গভীর শ্রদ্ধা নিবেদন করে বলেন,যুদ্ধবিধ্বস্ত ভঙ্গুর অবকাঠামো আর নাজুক অর্থনীতিকে অবলম্বন করে বঙ্গবন্ধু শুরু করেছিলেন দেশ পুনর্গঠনের কাজ।

প্রধান অতিথির বক্তব্যে রফিকুল ইসলাম রলি বলেন, তরুণ প্রজন্মকে মাদকমুক্ত রাখতে হবে। বঙ্গবন্ধুর সোনার বাংলা গড়ে তোলার জন্য তরুণ প্রজন্মকে সুশিক্ষায় শিক্ষিত করতে হবে।
কাজী ফারজানা ইয়াসমিন বলেন, দেশ থেকে শুধু নিলেই হবে না দেশের জন্য তরুণ প্রজন্মেরও অনেক করণীয় ও দায়িত্বশীল ভূমিকা রয়েছে।
আমাতুন নূর শিল্পী বলেন , জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের সুযোগ্য উত্তরসূরী জননেত্রী শেখ হাসিনার সুযোগ্য নেতৃত্বে এগিয়ে চলেছে বাংলাদেশ। আমরা তাঁর সুযোগ্য নেতৃত্বে উন্নয়নের পথেই হাটতে চাই।

সাংবাদিক হুমায়ুন কবীর বলেন, বঙ্গবন্ধু মানেই বাংলাদেশ।
মুশফিক মাহমুদ মৃদুল বলেন, বঙ্গবন্ধুর সোনার বাংলায় কোনোভাবে লিঙ্গ বৈষম্য হতে পারে না। নারী-পুরুষ নির্বিশেষে সকলের অংশগ্রহণে দেশ এগিয়ে যাবে। ছাত্রলীগ কর্মীরা উন্নয়নের পথে ষড়যন্ত্র মোকাবেলায় প্রস্তুত রয়েছে।
প্রকৌশলী আশরাফুল আলম তমাল বলেন,কৃষি খাতকে অগ্রাধিকার দিয়ে ১৯৭২-৭৩ অর্থবছরে বাজেটে ৬০ ভাগ পল্লী এলাকায় উন্নয়নের জন্য ব্যয়ের ঘোষণা দেয়া হয়। এইভাবে শিক্ষা খাতেও তিনি যুগান্তকারী বিপ্লব এনেছিলেন। তিনি আরো বলেন, বঙ্গবন্ধুর আদর্শ মেনেই উন্নয়ন প্রকল্প গ্রহণ করতে হবে।

সেমিনারটি সঞ্চালনা করেন আমেরিকার মিলেনিয়াম টিভির কান্ট্রি ডিরেক্টর ও রয়্যাল ইউনিভার্সিটি অব ঢাকা’র সহযোগী অধ্যাপক,বিভাগীয় প্রধান ও ডেইলি প্রেসওয়াচ সম্পাদক ড. দিপু সিদ্দিকী।
সেমিনারে অন্যান্যের মধ্যে সংযুক্ত ছিলেন, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে কর্মরত প্রকৌশলী শাফিউল বাশার, রাজশাহী থেকে ডা. মাহবুবুল হক ও ব্রাহ্মণবাড়িয়া থেকে ডা. বায়েজিদা ফারজানা।

সর্বশেষ