বরিশালে বিএডিসি বীজ সরবারহ না করায় চাষাবাদ ব্যাহত হওয়ার আশংকা

বরিশালে বিএডিসি বীজ সরবারহ না করায় চাষাবাদ ব্যাহত হওয়ার আশংকা

স্টাফ রিপোর্টারঃ-
বরিশালের আগৈলঝাড়ায় সময়মত ভুট্রা, সূর্যমুখী ও চিনাবাদাম বীজ বিএডিসি সরবারহ না করায় চাষাবাদ ব্যাহত হওয়ার আশংকা করেছে কৃষকরা। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ঘোষনা অনুযায়ী এক ইঞ্চি জায়গাও পতিত রাখা যাবে না তা বাস্তবায়ন হচ্ছে না বিএডিসি বীজ সরবারহ না করার কারনে। এসব চাষাবাদ অক্টোবর থেকে শুরু করে নভেম্বর মাসে সবচেয়ে বেশী সময় উপযোগী বলে জানান কৃষক সোলোমান মোল্লা, হালিম সরদার ও শহিদুল ইসলামসহ প্রমুখ। স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, উপজেলায় ৫টি ইউনিয়নের কৃষকরা অক্টোবর থেকে নভেম্বর মাসে সূর্যমুখী, ভুট্রা ও চিনাবাদাম চাষের উপযুক্ত সময় হলে এখন পর্যন্ত এসব প্রনোদনার বীজ আগৈলঝাড়া কৃষি অফিসে আসেনি। সূর্যমুখী, ভুট্রা ও চিনাবাদাম শস্যের বীজ না আসায় কৃষকরা চাষাবাদ না হওয়ার আশংকা প্রকাশ করছেন। উপজেলার কৃষি অফিস সূত্রে জানা গেছে, চলছি বছর সূর্যমুখী, ভুট্রা ও চিনাবাদাম চাষের জন্য ২৫জন কৃষকের জন্য ১০কেজি করে ২৫০ কেজি চিনাবাদাম, ৫০জন কৃষকের জন্য দুই কেজি করে ভুট্রা ও ৮০জন কৃষকের মাঝে এক কেজি সূর্যমুখী বীজ বরাদ্দের কথা থাকলে এখন পর্যন্ত আগৈলঝাড়া কৃষি অফিসে কোন বীজ আসেনি। প্রতিদিনই কৃষকরা এসব শস্যের বীজের জন্য কৃষি অফিসে ধরনা দিচ্ছেন।
এব্যাপারে উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা দোলন চন্দ্র রায় সাংবাদিকদের বলেন, এই শস্য বীজের জন্য সার আসলেও এখন পর্যন্ত কোন বীজ আসেনি। বিএডিসিতে বার বার জানানোর পরেও কোন কাজ হয়নি। সময়মত বীজ না পেলে কৃষকরা ক্ষতিগ্রস্থ হবেন।
বরিশাল বিএডিসির উপ-পরিচালক (বীজ) মো.রমিজুর রহমান সাংবাদিকদের বলেন, এই বীজের ব্যাপারে উর্ধ্বতন কর্মকর্তাদের জানানো হয়েছে। আগামী সপ্তাহে উপজেলা পর্যায় কৃষকদের মাঝে বীজ পৌছানো হবে।

সর্বশেষ