ভেদরগঞ্জে সমন্বিত কৃষি পরিকল্পনা বাস্তবায়ন শুরু

শরীয়তপুর প্রতিনিধি:
শরীয়তপুরের ভেদরগঞ্জ উপজেলায়
জেলাপ্রশাসকের উদ্যোগে সমন্বিত কৃষি পরিকল্পনা বাস্তবায়ন শুরু হয়েছে।
মঙ্গলবার (৬ ডিসেম্বর) সকালে ভেদরগঞ্জ উপজেলা সভাকক্ষে জেলা প্রশাসক মো. পারভেজ হাসান প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত হয়ে বাস্তবায়ন কর্মসূচি শুভ উদ্বোধন করেন। উপজেলা নির্বাহী অফিসার আবদুল্লাহ আল মামুনের সভাপতিত্বে
ও উপজেলা কৃষি অফিসার ফাতেমা ইসলামের সঞ্চালনায় অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি ছিলেন, কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তর শরীয়তপুরের উপ-পরিচালক কৃষিবিদ মো. মতলুবর রহমান। এসময় জেলা প্রশাসক ভেদরগঞ্জ উপজেলার ৫০০ কৃষকের মাঝে উচ্চ ফলনশীল জাতের ব্রি ধান -৮৯ এর ৫ কেজি করে বীজ বিতরণ করেন।
অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে জেলা প্রশাসক মো. পারভেজ হাসান বলেন, মাননীয় প্রধানমন্ত্রী একজন দূরদর্শী নেতা। তিনি অনেক আগের সমস্যা খুঁজে বের করেন এবং সমাধান দেন। তিনি নির্দেশনা দিয়েছেন যাতে ১ ইঞ্চি জমি অনাবাদি না থাকে। সুতরাং আমাদের বসে থাকলে চলবে না। আমাদের অনাবাদি জমি আবাদের উপযুক্ত করতে হবে । জলাবদ্ধতা নিরসন করতে হবে। কৃষক বাঁচলে আমরা যারা অকৃষক তারা বাঁচবো। উপজেলা পরিষদ ও ইউনিয়ন পরিষদসহ সকল স্থানীয় সরকার প্রতিষ্ঠানকে উন্নয়ন প্রকল্প গ্রহণ করার পূর্বে কৃষিবান্ধব প্রকল্প গ্রহণ করতে হবে। টিআর, কাবিখা, কাবিটা, এডিপি বাস্তবায়নের ক্ষেত্রে কৃষি ও সেচ প্রকল্প অগ্রধিকার প্রদান করা হবে। সরকারি কর্মকর্তাদের কৃষিবান্ধব হতে হবে। তিনি উপস্থিত রাজনৈতিক দলের নেতৃবৃন্দকে ও জনপ্রতিনিধিদের বলেন তারা যেনো কৃষকের কল্যাণে কাজ করেন তাহলে বিশ্ব অর্থনৈতিক মন্দা আমরা মোকাবেলা করতে পারবো মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর নেতৃত্বে। এসময় তিনি কৃষি বিভাগকে উপজেলা প্রশাসন ও জনপ্রতিনিধিদের সঙ্গে নিবিড় যোগাযোগ রক্ষা করে কার্যক্রম এগিয়ে নিতে নির্দেশনা দেন।

জানাগেছে, শরীয়তপুর জেলায় একমাত্র ভেদরগঞ্জ উপজেলায় এই উচ্চ ফলনশীল জাতের চাষ করা হচ্ছে। ধান গবেষণা ইনস্টিটিউট, জয়দেবপুর, গাজীপুরের উদ্ভাবন BRRI -89 জাতের ধান চাষে কৃষক অধিকতর লাভবান হবেন। একর প্রতি ফলন হবে ৬০/৭০ মণ। এই ধান রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা সম্পন্ন হওয়ায় সার ও কীটনাশক ব্যবহার কম করতে হয়।

সর্বশেষ