পুলিশ সন্তান মেধাবৃত্তি পুরস্কার পেলেন ১৩৭৯ কৃতি শিক্ষার্থী

হাসানুজ্জামান সুমন,বিশেষ-প্রতিনিধি: এসএসসি-সমমান ও এইচএসসি-সমমান পরীক্ষায় ২০২১ সালে জিপিএ গোল্ডেন ৫ প্রাপ্ত ১৩৭৯ জন শিক্ষার্থীকে মেধাবৃত্তি প্রদান করেছে বাংলাদেশ পুলিশ। গতকাল রাজারবাগে বাংলাদেশ পুলিশ অডিটরিয়ামে পুলিশের বিভিন্ন ইউনিটে কর্মরত সদস্যদের কৃতি সন্তানদের মেধাবৃত্তি প্রদান করেন ইন্সপেক্টর জেনারেল অব পুলিশ (আইজিপি) চৌধুরী আবদুল্লাহ আল-মামুন বিপিএম (বার), পিপিএম। বৃত্তিপ্রাপ্ত শিক্ষার্থীদের উদ্দেশে আইজিপি বলেন, নিজেদেরকে যোগ্য মানুষ হিসেবে গড়ে তুলতে হবে। মানবিক গুণাবলীর বিকাশ ঘটাতে হবে। শুধু পাঠ্য-পুস্তকের মধ্যে নিজেদের জ্ঞান সীমাবদ্ধ রাখলে চলবে না। দেশকে ভালবাসতে হবে। দেশ সম্পর্কে জানতে হবে। দেশের ইতিহাস জানতে হবে। তিনি আরো বলেন, বাংলাদেশকে জানতে হলে বঙ্গবন্ধুকে জানতে হবে। বাংলাদেশ ও বঙ্গবন্ধু সমার্থক।

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে বাংলাদেশ এগিয়ে চলেছে। বাংলাদেশ এখন সকল সামাজিক সূচকে এগিয়ে। ঈর্ষণীয় সাফল্যে বিশ্বে বাংলাদেশ আজ ‘রোল মডেল’। আইজিপি বলেন, করোনা মহামারীর জন্য ২০২০ ও ২০২১ সাল ছিলো একটি কঠিন সময়। এই সময়ে পুলিশ জনমানুষের পাশে দাঁড়িয়েছে। এ অবস্থার মধ্যেও পুলিশ সদস্যরা তাদের সন্তানদের পাশে থেকে দায়িত্ব পালন করেছে। এজন্য তারা আজ এ অবস্থানে আসতে পেরেছে। এখানে অনেকেই আছে যারা বুয়েট, মেডিকেল, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়সহ বিভিন্ন পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয়ে স্থান পেয়েছে। এটা পুলিশ বাহিনীর জন্য অনেক গর্বের। তিনি আশা প্রকাশ করেন, এসব কৃতি শিক্ষার্থী দেশকে আরো এগিয়ে নিয়ে যাবে। অতিরিক্ত আইজিপি (অ্যাডমিন) মোঃ কামরুল আহসান বিপিএম-বার এর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে স্বাগত বক্তব্য রাখেন এআইজি (স্পোর্টস অ্যান্ড কালচার) সোহেল রানা।

সভাপতির বক্তব্যে কৃতি শিক্ষার্থীদের উত্তরোত্তর সাফল্য কামনা করে মোঃ কামরুল আহসান বলেন, শুধু প্রাতষ্ঠানিক পড়াশুনায় ভাল করলে হবে না। নিজেদেরকে যোগ্য মানুষ হিসেবে গড়ে তুলতে হবে। বঙ্গবন্ধুর সোনার বাংলা গড়ে তুলতে হবে। শিক্ষার্থীদের স্মার্টফোনে আসক্তি সম্পর্কে তিনি বলেন, পরিবর্তন ভালো কিন্তু সেটা হতে হবে ইতিবাচক। স্মার্টফোনের মাধ্যমে আমরা হয়তো অনেকের সাথে যুক্ত হতে পারছি। কিন্তু এটা থেকে যেন পারিবারিক বিচ্ছিন্নতাবোধ তৈরি না হয়। উচ্চ শিক্ষা কিংবা যেকোনো সমস্যায় বাংলাদেশ পুলিশ সব সময় তাদের পাশে থাকবে বলে তিনি আশাবাদ ব্যক্ত করেন। অনুষ্ঠানে কৃতি সন্তানদের অভিভাবকের পক্ষে ১১ এপিবিএন এর অধিনায়ক শাহীনা আমিন পিপিএম বক্তব্য প্রদান করেন।

মেধাবী শিক্ষার্থী আবু হাসনাত ও নাজিয়া ফারজানাসহ অনেকে তাদের সাফল্য তুলে ধরেন। অনুষ্ঠানে ২০২১ সালে এসএসসি-সমমানের পরীক্ষায় জিপিএ ৫ প্রাপ্ত ৭৭৭ জন ও এইচএসসি-সমমানের জিপিএ ৫ প্রাপ্ত ৬০২ জনসহ সর্বমোট ১৩৭৯ জনকে বৃত্তি প্রদান করা হয়। এদের মধ্যে ঢাকাস্থ বিভিন্ন ইউনিটসমূহ থেকে ২৫২ জনকে আইজিপি ক্রেস্ট, সনদপত্র ও আর্থিক সম্মাননা প্রদান করেন। অন্য শিক্ষার্থীদের সংশ্লিষ্ট ইউনিট প্রধানগণ এ সম্মাননা প্রদান করবেন। অনুষ্ঠানে ঢাকাস্থ পুলিশের বিভিন্ন ইউনিটের প্রধানগণ ঊর্ধ্বতন পুলিশ কর্মকর্তাগণ, মেধাবী শিক্ষার্থীদের অভিভাবকগণ ও তাদের পরিবারের সদস্যরা উপস্থিত ছিলেন। উল্লেখ্য, ২০১৮ সাল থেকে বাংলাদেশ পুলিশ কল্যাণ ট্রাস্টের উদ্যোগে পুলিশ হেডকোয়ার্টার্স মেধাবৃত্তি প্রদান করছে। ২০১৮ সালে ৫৬২ জন, ২০১৯ সালে ৪০৫ জন, ২০২০ সালে ৪৪৩ জন ও ২০২১ সালে ১৩৭৯ জনকে বৃত্তি প্রদান করা হয়।

সর্বশেষ