ভুয়া ডিবি পুলিশ পরিচয়ে ৮৫লক্ষ টাকা ডাকাতি,উদ্ধার ২০লক্ষ গ্রেফতার-৬

হাসানুজ্জামান সুমন,বিশেষ-প্রতিনিধি:
ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশের লালবাগ বিভাগের কোতয়ালী জোনাল টিম বিশেষ অভিযান পরিচালনা করে ডিবি পুলিশ পরিচয়ে কেরানীগঞ্জের ব্যবসায়ীর ৮৫ লক্ষ টাকা ডাকাতির ঘটনায় ৬ ডাকাতকে গ্রেফতার করেছে। গত ২৫/১১/২০২২ খ্রি. তারিখ ঢাকা জেলার সাভার থানাধীন কাউন্দিয়া, পটুয়াখালী সদর থানা ও ঢাকা মহানগরীর কাজলা এলাকা হতে ধারাবাহিক অভিযান চালিয়ে তাদের গ্রেফতার করা হয়।
গ্রেফতারকৃতদের নাম- ১। সোহাগ মাঝি (২৮), ২। মোঃ দেলোয়ার (২৬), ৩। মোঃ জয়নাল হোসেন (২৮), ৪। মোঃ সোহেল (২৭), ৫। মোঃ জনি (৩২) এবং ৬। মোঃ আজিজ (৫৭)। গ্রেফতারের সময় তাদের হেফাজত হতে ১) নগদ- ২০ লক্ষ টাকা, ২) ১ টি হাইয়েচ মাইক্রোবাস এবং ৩) ১ টি ডিসকভার মোটরসাইকেল উদ্ধার করা হয়।
উল্লেখ্য, গত ১৩/১১/২০২২ খ্রিঃ তারিখ দুপুর ০১.৩০ ঘটিকার সময় ব্যবসায়ী কেরামত আলী দক্ষিণ কেরানীগঞ্জ থানাধীন দড়িগাঁও বাজারস্থ তার ব্যবসায়িক প্রতিষ্ঠান হতে ব্যাগে করে নগদ- ৮৫,০০,০০০/- টাকা নিয়ে পিকআপ যোগে আব্দুল্লাপুরস্থ সাউথ ইস্ট ব্যাংকের উদ্দেশ্যে রওনা করে। পথিমধ্যে অজ্ঞাতনামা ১০/১২ জন ডাকাত ব্যবসায়ী কেরামত আলীর গতিরোধ করে নিজেদের ডিবি পুলিশ পরিচয়ে অস্ত্রের ভয় দেখিয়ে টাকা ছিনিয়ে নিয়ে মাইক্রোবাস এবং মোটর সাইকেল যোগে পালিয়ে যায়। ডাকাতির ঘটনায় ভিকটিম কেরামত আলীর অভিযোগের ভিত্তিতে গত ১৪/১১/২০২২ খ্রিঃ তারিখে দক্ষিণ কেরানীগঞ্জ থানার মামলা নং-৪৬, তারিখ- ১৪/১১/২০২২ খ্রিঃ, ধারা- ১৭০/৩৯৫/৩৯৭ পেনাল কোড রুজু হয়। উক্ত মামলার ঘটনায় ঢাকা জেলা পুলিশ, র‌্যাব, পিবিআই’র পাশাপাশি ঢাকা মহানগর ডিবি লালবাগ বিভাগ ছায়া শুরু তদন্ত করে।
বিভিন্ন গোয়েন্দা তথ্য বিশ্লেষণ ও গোপন সংবাদের ভিত্তিতে ডিবি লালবাগ বিভাগের একাধিক টিম গত ২৫/১১/২০২২ খ্রিঃ ধারাবাহিক অভিযানে সাভার থানাধীন কাউন্দিয়া এলাকায় অভিযান পরিচালনা করে ডাকাতির ঘটনায় সরাসরি জড়িত ০৪ জনকে গ্রেফতার করা হয়। তাদের স্বীকারোক্তি মতে পটুয়াখালী সদর এলাকা হতে ১ জন ডাকাতকে ১৯,০০,০০০/- টাকাসহ এবং ঢাকা মহানগরীর যাত্রাবাড়ীস্থ কাজলা এলাকা হতে ডাকাতির কাজে ব্যবহৃত হাইয়েচ মাইক্রোবাসসহ ১ জন ডাকাতকে ১,০০,০০০/- টাকাসহ গ্রেফতার করা হয়। পরবর্তীতে গ্রেফতারকৃত ডাকাতদের স্বীকারোক্তি মোতাবেক কেরাণীগঞ্জ থানা এলাকায় বিশেষ অভিযান পরিচালনা করে ডাকাতির কাজে ব্যবহৃত ১ টি ডিসকভার মোটরসাইকেল উদ্ধার করা হয়।
প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে জানা যায়, গ্রেফতারকৃতরা ডাকাতির করার জন্য বিভিন্ন দলে বিভক্ত হয়ে ডিবি পুলিশ, সিআইডি, জঅই’ র পরিচয় প্রদান করে বিভিন্ন ব্যাংকসহ আর্থিক ও বাণিজ্যিক প্রতিষ্ঠানের সামনে অবস্থান করে। ব্যবসায়ীসহ আর্থিক লেনদেনকারীর গতিবিধি পর্যবেক্ষন করে। যেসব জায়গায় সিসি ক্যামেরা নেই এরকম নিরিবিলি জায়গায় সুযোগ বুঝে আইন শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর পরিচয় দিয়ে ভিকটিমদেরকে গতিরোধ করে। ভিকটিমদের নামে মামলা/ওয়ারেন্ট আছে বলে টাকার ব্যাগসহ গাড়িতে তুলে নেয়। ডাকাতরা তাদের সুবিধামতো জায়গায় টাকা/ মূল্যবান সামগ্রী ছিনিয়ে নিয়ে মারধর করে নির্জন এলাকা, রাস্তার পাশে ফেলে রেখে পালিয়ে যায়। ডাকাতির পূর্বে ঘটনাস্থল রেকি করার কাজে মোটর সাইকেল এবং ভিকটিমের গতিরোধ করে ডাকাতি করার কাজে মাইক্রোবাস ব্যবহার করে থাকে। ডাকাতির কাজে তারা হ্যান্ডকাপ, ওয়্যারলেস ও খেলনা পিস্তল ব্যবহার করে বলে প্রাথমিকভাবে স্বীকার করেছে।
ডিএমপি’র গোয়েন্দা লালবাগ বিভাগের উপ-পুলিশ কমিশনার জনাব জনাব মশিউর রহমান বিপিএম (বার), পিপিএম এর নেতৃত্বে অভিযানটি পরিচালিত হয়।

সর্বশেষ