চকবাজার মডেল থানার মসজিদ কমিটির সভাপতি হত্যার ঘটনায় গ্রেফতার_৫

হাসানুজ্জামান সুমন বিশেষ প্রতিনিধি
ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশের ৫ জন লালবাগ বিভাগের চকবাজার মডেল থানার একটি চৌকস টিম বিশেষ অভিযান পরিচালনা করে চকবাজার মসজিদ কমিটির সভাপতি হত্যার ঘটনায় ৫ জনকে গ্রেফতার করেছে। গত ২২/১১/২০২২ খ্রি. তারিখ রাজধানীর চকবাজার থানা এলাকা হতে ধারাবাহিক অভিযান চালিয়ে তাদেরকে গ্রেফতার করা হয়।
গ্রেফতারকৃতদের নাম- ১। মোঃ শাহাদাত মুবিন আলভী (২০), ২। আনিকা তাবাস্সুম (২৩), ৩। রাজু (২২), ৪। রায়হান (২০) ৫। সাঈদ (২০)।
উল্লেখ্য, গত ইং ১৭/১১/২০২২ তারিখ রাত ১০.০০ ঘটিকায় বাদীর খালাতো বোনের বিয়ে উপলক্ষ্যে বাদী, তার মা, মেজো ভাই ও তার স্ত্রী নিপা ২ ছেলেকে নিয়ে তাদের বয়স্ক বাবাকে বাসায় রেখে চাঁন কমিউনিটি সেন্টারে যায়। ইং ১৮/১১/২০২২ তারিখ রাত ০০.৩০ ঘটিকায় সবাই দাওয়াত শেষে বাসায় এসে দেখেন বাদীর বাবা পিছনে হাত-পা বাধা অবস্থায় ফ্লোরে উপুড় হয়ে পড়ে আছেন। পরবর্তীতে বাদীর মেজো ভাই ভিকটিমকে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তার বাবাকে মৃত ঘোষনা করেন। হাসপাতাল হতে বাসায় এসে দেখতে পায় তাদের ঘরে থাকা নগদ ২,৫০,০০০/- টাকা, ১২ ভরি স্বর্ণালংকার (যার আনুমানিক মুল্য-৯, ৬০,০০০/- টাকা) অজ্ঞাতনামা আসামীরা লুন্ঠন করে নিয়ে যায়। বাদীর ধারনা অজ্ঞাতনামা খুনিরা ঘরে প্রবেশ করে বাদীর বাবাকে হত্যা করে ঘরে থাকা নগদ টাকা সহ স্বর্ণালংকার (সর্বমোট আনুমানিক-১২,১০,০০০/-) মূল্যের মালামাল লুন্ঠন করে নিয়ে গেছে। এ সংক্রান্তে চকবাজার মডেল থানায় ১ টি হত্যা মামলা রুজু হয়।
মামলাটি তদন্তকালে ঘটনাস্থলের আশপাশের সিসি ফুটেজ সংগ্রহ ও পর্যালোচনা, প্রযুক্তিগত সহায়তা ও গোয়েন্দা তথ্য বিশ্লেষণ করে ঘটনার সাথে প্রতক্ষ্যভাবে জড়িত মূল পরিকল্পনাকারী মোঃ শাহাদাত মুবিন আলভী ও আনিকা তাবাস্সুমকে ইং ২২/১১/২০২২ তারিখ চকবাজার থানা এলাকায় হতে গ্রেফতার করা হয়। হত্যাকান্ডের ঘটনার এক মাস পূর্বে আলভি এবং আনিকা পরীক্ষা শেষে ঘুরতে যাবার প্লান করে। এ জন্য তাদের টাকার প্রয়োজন হয়। পরিকল্পনা মোতাবেক ঘটনার দিন বিয়ের অনুষ্ঠান থাকায় তারা ঐ দিনটিকে বেছে নেয়। এছাড়া উক্ত হত্যাকান্ডের ঘটনায় গ্রেফতারকৃত আনিকা তাবাস্সুম এর বয়ফ্রেন্ড রাজুর সহায়তায় ১ টি নকল চাবি বানায় এবং ভিকটিমকে অচেতন করে টাকা পয়সা লুণ্ঠন করার জন্য সিরিঞ্জ ও অচেতন করার ঔষধ সংগ্রহ করে। গ্রেফতারকৃত রাজুর ছোট ভাই রায়হান ও সাঈদ মিলে পূর্ব পরিকল্পনা অনুযায়ী টাকা পয়সা লুণ্ঠন ও হত্যাকান্ডে সহযোগিতা করে।
প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে গ্রেফতারকৃতরা টাকা পয়সা লুণ্ঠন ও হত্যাকান্ডে ঘটনায় নিজেদের সম্পৃক্ত থাকার কথা স্বীকার করেছে।
ডিএমপি’র লালবাগ বিভাগের উপ-পুলিশ কমিশনার জনাব মোঃ জাফর হোসেন এর দিকনির্দেশনায় চকবাজার মডেল থানার একটি চৌকস টিমের নেতৃত্বে অভিযানটি পরিচালিত হয়।

সর্বশেষ