অসাধু সাংবাদিক থেকে সাবধান! এরা জাতীর জন্য বড্ড ভয়ঙ্কর

সাংবাদিক! পাঁচটি অক্ষরের এক অর্থপূর্ণ শব্দ। যিনি সৎ এবং দায়িত্ববান হয়ে দেশ এবং জাতীর কল্যাণে কাজ করে থাকে। সাংবাদিক তো যেই যে কিনা নিজের জীবনটাকে বাজি রেখে দেশের জন্য অনেক বড় কাজ করতে সর্বদা স্বয়ং প্রস্তুত। তবে খোঁজ নিয়ে দেখবেন আপনার আশেপাশে বর্তমানে এমন কিছু সাংবাদিকের জন্ম হয়েছে যারা নিজের স্বার্থের জন্য কাজ করে যায় সর্বদা। যারা কখনো একজন অসহায় লোকের সুখ দুঃখের কথা চিন্তা না করে সর্বদা নিজেদের স্বার্থের কথা চিন্তা করে অন্যকে চরম হুমকির দিকে ফেলে দেয়। আর সবচেয়ে বড় কথা এরা সাংবাদিক হওয়ার আগে কেউবা রাজমিস্ত্রী কিংবা কেউ রংমিস্ত্রী আবার দেখা যায় কেউ বা দিনমজুর হয়ে নিজেকে সাংবাদিক বলে জনপ্রিয়তা পাচ্ছে। আদৌ কি তারা সাংবাদিক হওয়ার যোগ্যতা বহণ করতে পারে? তারা বরঞ্চ দেশ এবং জাতীর জন্য বড় দুঃখ ডেকে আনে। তারা জানেই না সাংবাদিকতা পেশাটি আসলে কি? একজন সাংবাদিকের সঠিক কাজটাই বা কি? যারা এমন পথে পা বাড়িয়ে অন্যের জন্য হুমকির কারণ হতে পারে তারা হয়তো সাংবাদিক সমাজে একজন অসাধু সাংবাদিক ব্যক্তিত্ব ছাড়া আর কিছুই নয়…..

আমার দেখা বর্তমান পৃথিবীতে প্রত্যেক শ্রেণী-পেশার মানুষের মধ্যে দু’টোই শ্রেণী বেশি দেখা যায় । যাদের একটা দেশের জন্য ভালো অন্যটা খারাপ। সেটা যেই পেশা হোকনা কেন…হোকনা পুলিশ, আর্মি, মসজিদের ঈমাম, গির্জার পাদ্রিসহ এমন কোন পেশা নাই যেখানে খারাপ আর ভালো মিশ্রিত নাই। আমাদের দেশে এমন এমন সময় এমন ও দেখা যায় দুর্নীতির দায়ে পুলিশ বন্ধী হচ্ছে হাজতে আবারদুর্নীতিবাজকে ধরতে সাহায্যে করে দেশের সাংবাদিকরাই। যারা নিজেদের সংবাদপত্রে সঠিক তথ্য উপস্থাপন করে আসামীকে আইনির আওতায় আনতে বাধ্য করে। কিন্তু যদি দেখেন কোন সংবাদপত্র বা তাদের সাংবাদিকগণ দুর্নীতি করে থাকে তখন কি করা যায়? অথচ সবচাইতে বেশী দুর্নীতি করার সুযোগ কিন্তু সাংবাদিক মহলে। যাদের একটি হচ্ছে অসাধু কিংবা হলুদ সাংবাদিক যারা কোন ব্যক্তি বা প্রতিষ্ঠানের বিরুদ্ধে লিখবে বলে খুব সহজে বড় অংকের চাঁদাবাজি করতে দ্বিধাবোধ করে না। যা কোন পেশাদার সন্ত্রাসী বা অন্যকোন পেশার লোকের পক্ষেও করা সম্ভব হয়ে উঠেনা।

কিন্তু কেন এদের বিরুদ্ধে কোন ব্যবস্থা নেওয়া হচ্ছে না? খেয়াল করে দেখবেন প্রত্রিকায় প্রায় সময়ই এমন কিছু খবর আসে যে সেই খবর গুলো পড়লেই বুঝা যায় সেগুলো সাংবাদিকদের মনের ঝাল মেটানোর জন্য চাপা হয়েছে। কিন্তু এর থেকে কি পরিত্রান পাওয়ার কোন উপায় নেই? নাকি সেইসব অসাধু সাংবাদিকদের জন্য হারিয়ে যাবে আসল সাংবাদিকের পরিচয়? তাদের জন্য কি একটা সময় সাংবাদিকদের সকলে ঘৃণার চোখে দেখবে?

এখন তো সময় সেইসব অসাধু আর হলুদ সাংবাদিকদের বিরুদ্ধে লড়াই করার তাদের বিরুদ্ধে আইনের আশ্রয় নিয়ে সাধারণ মানুষদের রক্ষা করা। নয়তো একদিন তাদের ভীড়ে হারিয়ে যাবে সাংবাদিক নামক মহান পেশাটা। গলায় সস্তা কার্ড ঝুলিয়ে হাতে ছোট একখানা ক্যামেরা নিয়ে লোকের জন্য নিয়ে চাঁদাদাবি করা লোকদের থেকে সাবধান থাকুন বারবার। যা আপনার আমার দেশের জন্য মঙ্গলময়।

আকাশ দাশ
ভয়েসবিডি২৪.কম
(সত্য প্রকাশে অঙ্গীকার)

সর্বশেষ