ভারতের আন্তর্জাতিক উৎসবে টিএম ফিল্মসের ‘নকশিকাঁথার জমিন’

আন্তর্জাতিক চলচ্চিত্র উৎসবে অংশগ্রহণের মাধ্যমে মুক্তিযাত্রা শুরু করলো টিএম ফিল্মস প্রযোজিত সরকারি অনুদানের চলচ্চিত্র ‘নকশিকাঁথার জমিন’।

ভারতের ৫৩তম ইন্টারন্যাশনাল ফিল্ম ফেস্টিভ্যালে (আইএফএফআই) আইসিএফটি-ইউনেস্কো গান্ধী মেডেলের জন্য মনোনয়ন পেয়েছে আকরাম খান পরিচালিত ‘নকশিকাঁথার জমিন’।

কথাসাহিত্যিক হাসান আজিজুল হকের গল্প ‘বিধবাদের কথা’ অবলম্বনে এ সিনেমায় ১৯৭১ সালের মুক্তিযুদ্ধের দিনগুলির কথা তুলে এনেছেন নির্মাতা। এতে দুই বোনের চরিত্রে জয়া আহসান ও সেঁওতি; দুই ভাইয়ের চরিত্রে ইরেশ যাকের ও রওনক হাসানকে দেখা যাবে। গুরুত্বপূর্ণ দুই চরিত্রে আছেন দুই ভাই দিব্য জ্যোতি ও সৌম্য জ্যোতি।

২০ নভেম্বর ভারতের গোয়ায় শুরু হবে ইন্টারন্যাশনাল ফিল্ম ফেস্টিভ্যাল অব ইন্ডিয়া। ২৫ নভেম্বর সিনেমাটির ওয়ার্ল্ড প্রিমিয়ার হবে বলে জানায় টিএম ফিল্মস। উৎসবে অংশ নিতে ২৪ নভেম্বর নির্মাতার সঙ্গে চলচ্চিত্রের কলাকুশলীরা। উৎসব শেষে ২৮ নভেম্বর ঢাকায় ফিরবেন তাঁরা।

চলচ্চিত্রটির প্রযোজক ফারজানা মুন্নী বলেন, “টিএম ফিল্মস এর লক্ষ্য আন্তর্জাতিক অঙ্গনে বাংলাদেশের চলচ্চিত্রকে পরিচিত করা। তার আগে এই বঙ্গভূমির সবচেয়ে বড় গল্প, আমাদের গর্বের ১৯৭১ সালের মুক্তিযুদ্ধের একটি চলচ্চিত্রের পাশে দাঁড়িয়ে আমরা আমাদের যাত্রা শুরু করেছি। মুক্তির আগেই চলচ্চিত্রটি গুরুত্বপূর্ণ একটি আন্তর্জাতিক উৎসবে আমন্ত্রণ পেল, এটি আমাদের জন্য গর্বের। আশা করছি এ যাত্রা অব্যহত থাকবে।”

নির্মাতা আকরাম খান বলেন, “বাংলাদেশের চলচ্চিত্রের ইতিহাসে প্রথমবারের মতো এ উৎসবে আইসিএফটি-ইউনেসকো গান্ধী মেডেলের জন্য মনোনয়ন পেয়েছে কোন চলচ্চিত্র এটি আমাদের জন্য দারুণ একটি খবর। নকশী কাঁথার জমিন আমার জন্য একটি বিশেষ নির্মাণ কেননা এতে মুক্তিযুদ্ধে নারীর আত্মত্যাগের কথা তুলে ধরা হয়েছে যা ইতিহাসে কিছুটা অবহেলিত। সরকারের পাশাপাশি টিএম ফিল্মসকে ধন্যবাদ জানাই এ চলচ্চিত্রটি নির্মাণে আমাদের পাশে থাকার জন্য।”

প্রযোজনা প্রতিষ্ঠান টিএম ফিল্মস জানায়, চলচ্চিত্রটি কিছু আন্তর্জাতিক উৎসব ঘুরে তবেই দেশের প্রেক্ষাগৃহে মুক্তি পাবে।

২০১৯ সালের সেপ্টেম্বরে জাঁকজমপূর্ণ এক আয়োজনে এক মঞ্চে দেশের চলচ্চিত্রের প্রায় সকল তারকার উপস্থিতিতে চলচ্চিত্র প্রযোজনা প্রতিষ্ঠান টিএম ফিল্মসের যাত্রা ঘোষণা করেন এর দুই কর্ণধার ফারজানা মুন্নী ও কৌশিক হোসেন তাপস।

বিশ্বমানের চলচ্চিত্র নির্মাণের অঙ্গীকার নিয়ে যাত্রা শুরু করে প্রতিষ্ঠানটি। করোনা মহামারি পেরিয়ে বেশকিছু নতুন চলচ্চিত্র নির্মাণের কাজ শুরু করতে যাচ্ছে প্রতিষ্ঠানটি।

সর্বশেষ