‘বুশরাই জানেন, ফারদিন হত্যার প্রকৃত রহস্য’

‘বাংলাদেশ প্রকৌশল ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের (বুয়েট) ছাত্র ফারদিন নূর পরশ হত্যাকাণ্ডের প্রকৃত রহস্য তার বান্ধবী আমাতুল্লাহ বুশরাই জানেন। কারণ, ঘটনার দিন তারা একসঙ্গে ছিলেন।’

বৃহস্পতিবার (১০ নভেম্বর) ফারদিনের মৃত্যুর মামলায় গ্রেপ্তার তার বান্ধবী বুশরার সাত দিনের রিমান্ড চেয়ে আবেদন করে পুলিশ। রিমান্ড আবেদনে এ কথা বলেছেন মামলার তদন্ত কর্মকর্তা রামপুরা থানার পরিদর্শক (নিরস্ত্র) মোহাম্মদ গোলাম মউলা।

‘বুশরাই জানেন, ফারদিন হত্যার প্রকৃত রহস্য’

ফারদিন নূর পরশ

 

এদিকে, তিন খোঁজাখুঁজির পর ৭ নভেম্বর বিকেল সাড়ে ৪টার দিকে ফারদিনের বাবা খবর পান, তার ছেলের লাশ নারায়ণগঞ্জের সিদ্ধিরগঞ্জ থানাধীন শীতলক্ষ্যা নদী থেকে উদ্ধার করেছে নৌ পুলিশ। পরে তিনি ছেলের লাশ শনাক্ত করেন।

আবেদনে আরও বলা হয়, ঘটনায় জড়িত থাকার প্রমাণ পাওয়ায় বুশরাকে গ্রেপ্তার করা হয়। জানা যায়, আসামির সঙ্গে ভিকটিমের প্রেমের সম্পর্ক ছিল। ঘটনার দিন তারা একসঙ্গে ঢাকার বিভিন্ন এলাকায় ঘোরাফেরা করেছেন। ফারদিনের হত্যার ঘটনাটি খুবই রহস্যজনক। ভিকটিম বুয়েটের শিক্ষার্থী ছিলেন। তার রহস্যজনক মৃত্যুতে ভিকটিমের পরিবার, সহপাঠী এবং বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষকদের মধ্যে উত্তেজনা বিরাজ করছে এবং সবাই মর্মাহত। এছাড়া, সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমেও আলোচনা চলছে। ঘটনাটি  চাঞ্চল্যকর। আসামি বুশরাই একমাত্র ঘটনার প্রকৃত রহস্য জানেন। কারণ, ঘটনার দিন তারা একসঙ্গে ছিলেন।

আদালত বুশরার কাছে জানতে চান, তার কোনো আইনজীবী আছে কি না? বুশরা আদালতকে বলেন, ‘জানি না।’ এর পর আদালত বুশরার ৫ দিনের রিমান্ডের আদেশ দেন।

সর্বশেষ