ভৈরবে পরকীয়ায় প্রেমিকের হাতে স্বামী খুন

এম আর ওয়াসিম, ভৈরব ( কিশোরগঞ্জ) প্রতিনিধি :

কিশোরগঞ্জের ভৈরবে পরকীয়া প্রেমিক জাবেদ মিয়া হাতে খুন হন স্বামী মো.রুবেল মিয়া (৩৪) । সে ভৈরব পৌর শহরের নিউ টাউন এলাকার বাসিন্দা। ঘটনার রাতেই খুনি জাবেদকে গ্রেফতার করে থানা পুলিশ।

আজ শুক্রবার দিবাগত রাতে পৌর শহরের নিউ টাউন এলাকায় এই ঘটনাটি ঘটেছে।

স্থানীয় ও পুলিশ সুত্রে জানা যায়, নিহত রুবেল মিয়ার বন্ধু ছিলেন জাবেদ মিয়া। বন্ধুত্বের সম্পর্কের জেরে প্রায়ই তাদের বাসায় যাতায়াত ছিলো । সেই সুবাধে রুবেলের স্ত্রী ঝুমুর বেগমের সাথে তার বন্ধু জাবেদের সাথে পরকীয়া সম্পর্ক গড়ে উঠে। এই পরকীয়া সম্পর্ক চলে দীর্ঘ দিন। কয়েকদিন আগে প্রেমিক জাবেদ ঝুমুরকে বিয়ে করেন। এই খবর শুনে স্বামী রুবেল মিয়া উত্তেজিত হয়ে পড়েন। এর পরই স্বামী রুবেল মিয়া বিয়েয়ের কথাটি মেনে দিতে পারেনি বৃহস্পতিবার রাতেই জাবেদ মিয়ার মুদির দোকানে গিয়ে তাকে জিঙ্গাসা করতে গেলে সেখানে দুজনের মধ্য তর্ক বির্তকের ঘটনা ঘটে। একপর্যায়ে জাবেদ দোকান থেকে ধারালো ছুরি দিয়ে ছুরিকাঘাত করলে গুরুতর আহত হয় রুবেল। পরে স্থানীয়রা গুরুতর আহত অবস্থায় তাকে উদ্ধার করে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্নেক্স হাসপাতালে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসকরা তার অবস্থা খারাপ তাৎক্ষণিক উন্নত চিকিৎসার জন্য তাকে বাজিতপুর জহুরুল ইসলাম মেডিকেল কলেজে হাসপাতালে পাঠান। পরে সেখানে নেয়ার পরই রুবেল মারা যান।

এ বিষয়ে ভৈরব থানার পুলিশ পরিদর্শক (অপারেশন) কায়সার আহমেদ জানান, ঘটনার পর রাতেই খুনি জাবেদ মিয়াকে গ্রেফতার করা হয়েছে। মূলত পরকীয়া সম্পর্কের জেরেই রুবেলকে ছুরিকাঘাত করে খুন করা হয়েছে। গ্রেফতার আসামী জাবেদকে দুপুরে কিশোরগঞ্জ আদালতে পাঠানো হবে। এছাড়া নিহতের মরদেহ ময়নাতদন্তের জন্য কিশোরগঞ্জ মর্গে পাঠানো হয়েছে বলে তিনি জানান।

এ বিষয়ে ভৈরব থানার পুলিশ পরিদর্শক ( অপারেশন। আরও জানান ঘটনায় নিহত রুবেলের বাবা মুসলিম মিয়া বাদী হয়ে জাভেদসহ তার স্ত্রী ঝুমুর বেগম ও সৌরভকে আসামী করে থানায় একটি মামলা করে। মামলাটি তদন্ত করে আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে বলে জানান তিনি।

সর্বশেষ