ভৈরবে স্ত্রী কে প্রাণে মেরে ফেলার হুমকি দিলেন স্বামী

এম আর ওয়াসিম, ভৈরব (কিশোরগঞ্জ) প্রতিনিধিঃ

“শালীর বেটি আর কোনোদিন টাকা চাইতে আসিলে তোকে খুন করিয়া ফেলিব” ১লা নভেম্বর রোজ মঙ্গলবার বাংলাদেশ মফস্বল সাংবাদিক ফোরাম ভৈরব উপজেলা শাখায় বিকালে এক সংবাদ সম্মেলনে এই কথা বলেন বাদী হেলেনা বেগম(৫৫), পিতা- মৃত মতি মিয়া, সাং- পলতাকান্দা মধ্যপাড়া, ভৈরব, কিশোরগঞ্জ। তিনি আরো বলেন আমার স্বামী বিবাদী গোলাম মওলা (৪৫), পিতা -সুলাইমান সাং- পলতাকান্দা, থানা-ভৈরব,জেলা কিশোরগঞ্জ তার সাথে বিগত ১০ বৎসর পূর্বে বিবাদী গোলাম মওলা সহিত মুসলিম শরীয়া মোতাবেক ২য় বিবাহ বন্ধনে আবদ্ধ হই। বিবাহের পর থেকে আমার স্বামী বিভিন্ন সময় আমার কাছে যৌতুকের টাকা দাবী করিয়া মারধর ও অত্যাচার নিপীড়ন করে আসছে। ব্যবসায় করবে বলে আমার কাছে বিশেষ প্রতিশ্রুতি দিয়ে টাকা চাইলে আমার জীবনের শেষ সম্বল নিজ নামীয় ২ গন্ডা জমি বিক্রি করে ৬,৪০,০০০/- টাকা হাতিয়ে নেয়। গত ৬মাস পূর্বে লোকমারফত জানতে পারি আমার স্বামী অন্য কাউকে বিয়ে করেছে। এছাড়াও আমার স্বামী আরো একাধিক বিয়ে করেছে শুনেছি । তাই আমি বিবাদী কে জিজ্ঞেস করলে অকথ্য ভাষায় গালিগালাজ করে আমার শ্বশুর বাড়ি বিবাদী গোলাম মওলা বাড়ি থেকে বের করে দেয়। এরই ধারাবাহিকতায় গত ২৮শে অক্টোবর ২০২২ইং তারিখে সকাল আনুমানিক বেলা ১০টায় বিবাদী বাসায় গিয়ে আমার স্বামী নিকট জমি বিক্রি টাকা চাইলে সে রেগে আমাকে “শালীর বেটি আর কোনোদিন টাকা চাইতে আসিলে তোকে খুন করিয়া ফেলিব” বলে বিভিন্ন হুমকি প্রদান ও মারধর করে বাসা থেকে বের করে দেয়। এমতবস্থায় আমি প্রাণ নাশের শংকা নিয়া জীবন যাপন করছি বিধায় উক্ত বিষয়ে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়ার জন্য ভৈরব থানা অভিযোগ দায়ের করেছি, আমি সরকারের কাছে এর ন্যায় বিচার দাবী করছি।
তার প্রতিবেশী মানবাধিকার কর্মী মোঃ ইকবাল মিয়া জানান এ ঘটনা সত্য সে বিচার এর জন্য বিভিন্ন জায়গায় ঘুরে কোন বিচার পাচ্ছে না।
এ বিষয়ে বিস্তারিত জানতে গোলাম মওলার সাথে ফোন দিলে তিনি বলেন এ বিষয়ে আমি পরে জানাব বলে মোবাইল কল কেটে বন্ধ করেদেন।

সর্বশেষ