জবির তৃতীয় বার্ষিক শিল্পকর্ম প্রদর্শনীতে মুনার ৩ শিল্পকর্ম

জবি প্রতিনিধি ঃ জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ে তৃতীয় বার্ষিক শিল্পকলা প্রদর্শনীর আয়োজন করা হয়েছে। প্রদর্শনীতে জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের চারুকলা বিভাগের দ্বিতীয় বর্ষের শিক্ষার্থী নাজমুন নাহার মুনার তিনটি শিল্পকর্ম রয়েছে।

মুনার চিত্রকর্মগুলো হলো ‘প্রাচীন কীর্তি’, ‘পরিত্যক্ত’ ও ‘তৈজসপত্র’। প্রাচীন কীর্তি ৫১*৬৬ সেন্টিমিটারের ওল্ড ফেমে পেন অন পেপার আঁকা চিত্রকর্মটির বাড়িটি পটুয়াখালী জেলার বাউফল উপজেলার মদনপুর গ্রামে অবস্থিত। এর নির্মাতা প্রফুল্লচন্দ্র গাঙ্গুলি ছিলেন পেশায় ঠিকাদার। তিনি ১৩৩৫ বঙ্গাব্দে বাবা দীন বন্ধু গাঙ্গুলির নামে বাড়িটি নির্মাণ করেন। ভবনটি ছোট হলেও পুরো বাড়ির সীমানা ৩ একর ৬ শতাংশ। বর্তমানে ভবনটির বয়স ১০০ বছর হলেও এখনও বসবাস উপযোগী। প্রফুল্লচন্দ্র গাঙ্গুলির দুই নাতি প্রণয় কুমার গাঙ্গুলি ও তনয় কুমার গাঙ্গুলি পরিবার নিয়ে এখানেই বসবাস করছেন।

পরিত্যক্ত চিত্রকর্মটিতে এবানডন্ড পেন এন্ড ইংক অন পেপার এ ৪১*৫৬ সেন্টিমিটারের ২০২২ এর বিবরণে বলা হয়েছে, সময়ের সাথে সাথে পুরনো হয়ে যাওয়া সব জিনিসের মূল্য কমতে থাকে।আমাদের প্রয়জনীয় বস্তুগুলো যতই পুরনো হয়ে যায় ততই এর কদর কমতে থাকে। কখনও জীর্ণ হয়ে পরে থাকে বাড়ির আঙিনায়। আবার কখনো ভাঙ্গা বস্তুগুলোকে নতুন কোনো রূপে ব্যবহার উপযোগীও করা যায়।

এছাড়া তৈজসপত্র চিত্রকর্মটিরে উটেনসিলস পেন অন ইংক অন পেপার এ ২৮*৪১ সেন্টিমিটারের ২০২২ এ আঁকা বিবরণে তুলে ধরা হয়েছে দৈনন্দিন জীবনে রান্না বান্নার ব্যবহারিক সামগ্রী হিসেবে আমরা বিভিন্ন ধরনের তৈজসপত্র ব্যাবহার করে থাকি। নারীদের দিনের অনেকটা সময় রান্নাঘরেই কাটে। তাই রান্না ঘরের পাত্র, যন্ত্রপাতি, বাসনকোসন, হাড়িকুড়ি, বর্তন ও সাজসরঞ্জাম গুলোকে পরিপাটি করে সাজিয়ে রাখা উচিৎ।

বিশ্ববিদ্যালয়ের চারুকলা বিভাগের আয়োজনে প্রদর্শনীতে ১৯৫ জন শিল্পীর ৩৪৫ টি প্রদর্শনী শিল্পকর্ম স্থান পেয়েছে। যার মধ্যে রয়েছে চিত্রকর্ম, ভাস্কর্য ও প্রিন্ট মেকিং। তিনটি মাধ্যমে বেসিক কোর্স সহ মাল্টিডিসিপ্লিনারি বিভিন্ন শিল্পকর্ম প্রদর্শিত হচ্ছে।

বিশ্ববিদ্যালয়ের তৃতীয় বার্ষিক শিল্পকর্ম প্রদর্শনীতে অংশগ্রহণকারী মুনা এওয়ার্ড অর্জনের ব্যাপারে আশাবাদী।

একাডেমিক ভবনের নিচতলায় পুরোটা জুড়ে তৃতীয় বার্ষিক শিল্পকর্ম প্রদর্শনীর আয়োজন করা হয়েছে। প্রদর্শনীটি উদ্বোধন করেন বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ড. মো. ইমদাদুল হক।

বিশ্ববিদ্যালয় দিবস উপলক্ষে আয়োজিত এই প্রদর্শনী শুরু হয়েছে ২০ অক্টোবর এবং ৩০ অক্টোবর সমাপনী ও পুরস্কার বিতরণী অনুষ্ঠানের মাধ্যমে প্রদর্শনী শেষ হবে। শিল্পকলা প্রদর্শনীতে ড্রইং অ্যান্ড পেইন্টিং, প্রিন্ট মেকিং, ভাস্কর্য, ব্যাসিক কোর্স এই চার ক্যাটাগরিতে প্রদর্শনী প্রতিযোগিতা অনুষ্ঠিত হচ্ছে। চার ক্যাটাগরিতে ১৪টি এওয়ার্ড প্রদান করা হবে।

সর্বশেষ