নকল স্বর্ণ, ম্যাগনেটিক পিলার ও কয়েন বিক্রয়ের নামে প্রতারণা, গ্রেফতার ১০

হাসানুজ্জামান সুমন বিশেষ প্রতিনিধি বিশেষ অভিযান পরিচালনা করে নকল সোনার বার, নকল ম্যাগনেটিক পিলার ও কয়েন এবং ভুয়া কাস্টমস্ কর্মকর্তা পরিচয়ধারী প্রতারক চক্রের মূলহোতাসহ ১০ জনকে গ্রেফতার করেছে ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশ (ডিএমপি) এর গোয়েন্দা ওয়ারী বিভাগ। গ্রেফতারকৃতরা হলো মোঃ বশার মোল্লা, শেখ সোহাগ হোসেন মিন্টু, দ্বীন মোহাম্মদ, মোঃ জুয়েল শিকদার, কথিত ড. মোজাম্মেল খান ওরফে আকাশ, শেখ আলী আকবর, মোঃ জামাল ফারাজী, মোঃ সোহেল শিকদার, মোঃ বিল্লাল হোসেন ও মোঃ শাহরিয়ার ইকবাল। প্রতারক চক্রের সদস্যরা একেক জন একেক চরিত্রে অভিনয় করতো।

ম্যাগনেটিক পিলার, কয়েন ও সোনারবার সরবরাহ করার কথা বলে সুকৌশলে সাধারণ মানুষের সাথে প্রতারণা করে ১১ কোটি টাকা আত্বসাৎ করেছে এ প্রতারক চক্র। রবিবার (২৩ অক্টোবর ২০২২) রাজধানীর বিমানবন্দর ও দক্ষিণখান থানা এলাকায় অভিযান চালিয়ে তাদেরকে গ্রেফতার করে গোয়েন্দা ওয়ারী বিভাগের সংঘবদ্ধ অপরাধ ও গাড়িচুরি প্রতিরোধ টিম। গ্রেফতারকৃত মোঃ জামাল ফারাজী, মোঃ সোহেল শিকদার, মোঃ বিল্লাল হোসেন এবং মোঃ শাহরিয়ার ইকবাল ক্রেতা যোগাড় করে কথিত পরমাণু বিজ্ঞানীর কাছে নিয়ে যেতো।

পরবর্তীতে তারা ম্যাগনেটিক পিলার, কয়েন ও সোনারবার পরীক্ষা করে সঠিক আছে মর্মে ভুয়া রির্পোট দিতো। গ্রেফতারকৃতদের বিরুদ্ধে কলাবাগান থানা, দক্ষিণখান থানা, উত্তরা-পূর্ব থানা, কাশিমপুর থানা ও বাগেরহাট জেলার ফকিরহাট থানায় একাধিক মামলা রয়েছে মর্মে জানান গোয়েন্দা পুলিশের এ কর্মকর্তা। কেউ যদি কখনো সোনার বার, ম্যাগনেটিক পিলার কিংবা মূল্যবান কয়েন বিক্রির প্রস্তাব দেয় তাহলে সে প্রস্তাবে রাজি না হয়ে গোয়েন্দা পুলিশকে অবগত করার আহবান জানান পুলিশের এ কর্মকর্তা। গোয়েন্দা ওয়ারী বিভাগের উপ-পুলিশ কমিশনার মুহাম্মদ আশরাফ হোসেন, পিপিএম এর সার্বিক দিকনির্দেশনায় অতিরিক্ত উপ-পুলিশ কমিশনার মোঃ তরিকুর রহমান এর তত্ত্বাবধানে সংঘবদ্ধ অপরাধ ও গাড়িচুরি প্রতিরোধ টিমের পুলিশ পরিদর্শক(নিরস্ত্র) মোঃ আরজুন এর নেতৃত্বে অভিযানটি পরিচালিত হয়।

সর্বশেষ