তাসকিন-হাসানে জয় দিয়ে সুপার টুয়েলভ শুরু বাংলাদেশের

আকাশ দাশ/ক্রীড়া প্রতিবেদক তাসকিন আহমেদ এবং হাসান মাহমুদের বোলিং তোপে নেদারল্যান্ডসকে ৯ রানে হারিয়ে ১৫ বছর পর বিশ্বকাপের মূলপর্বে জয় পেলো বাংলাদেশ। বৃষ্টিবিঘ্নিত দিনে বাংলাদেশের দেওয়া সহজ লক্ষ্য তাড়া করতে নেমে শুরুতে খেই হারিয়ে বসে নেদারল্যান্ডস। বাংলাদেশী পেসার তাসকিন আহমেদ এবং হাসান মাহমুদের বোলিং বিষে মাত্র ১৫ রানে ৪ উইকেট হারিয়ে বসে তারা। এমন বিপর্যয়ে ছয়ে ব্যাট করতে নামা অধিনায়ক স্কট অ্যাডওয়ার্ডকে সঙ্গী করে শুরুর প্রতিরোধ গড়তে চেয়েছিলো অ্যাকারম্যান। তবে অ্যাডওয়ার্ডকে ফিরিয়ে তাদের গড়া পঞ্চম উইকেটের ৪৪ রানের জুটি ভাঙে বাংলাদেশকে স্বস্তি এনে দেন অধিনায়ক সাকিব আল হাসান।

অ্যাডওয়ার্ডের বিদায়ে আবারো ছন্দহীন হয়ে পড়ে ডাচরা। টিম প্রিঙ্গল আর বেন ব্রেকরা এইদিন খেলতে পারেনি বড় ইনিংস। ফলে স্রোতের বিপরীতে দাঁড়িয়ে থাকা অ্যাকারম্যানকে ৫৮ রানের ফিরিয়ে বাংলাদেশের জয় নিশ্চিত করে তাসকিন আহমেদ। ৪৮ বলের ইনিংসটি সাজিয়েছেন ৬টি চার আর ২টি ছক্কায়। এইদিকে ব্যাটারদের আশা যাওয়ার মিছিলে ম্যাকর্যানের ৩৪ রানের ঝড়ো ইনিংসে নির্ধারিত ২০ ওভার শেষে সবকটি উইকেট হারিয়ে ১৩৫ রানে থামে ডাচদের ইনিংস। বাংলাদেশের হয়ে তাসকিন আহমেদ নেন ৪টি উইকেট ২টি উইকেট নেন হাসান মাহমুদ ১টি করে উইকেট নেন সৌম্য সরকার এবং সাকিব আল হাসান। এর আগে হোবার্টে আজ নেদারল্যান্ডসের বিপক্ষে টস হেরে প্রথমে ব্যাট করতে নেমে দুই ওপেনারের ব্যাটে শুরুটা দারুণ হয়েছে বাংলাদেশের।

তবে ব্যক্তিগত ১২ রানের মাথায় সৌম্য সরকারকে ফিরিয়ে টাইগারদের ৪৩ রানের উদ্বোধনী জুটি ভাঙেন। সঙ্গীকে হারিয়ে ২৫ রান করে টিম প্রিঙ্গলের শিকার হয়ে ফিরেন অন্য ওপেনার নাজমুল হোসেন শান্ত। তিনে ব্যাট করতে নামা লিটন দাশ ফিরেন ৯ রান করে। এইদিন উইকেটে থিতু হতে পারেনি অধিনায়ক সাকিব আল হাসান আর টপ অর্ডার ইয়াসির রাব্বি। দলের এমন অবস্থায় ষষ্ঠ উইকেট জুটিতে উইকেটকিপার ব্যাটার নুরুল হাসানকে সঙ্গী করে ৪৪ রানের জুটি গড়েন আফিফ হোসেন। নুরুল হাসানকে ১৪ রানে ফিরিয়ে দুইজনের গড়া সেই জুটি আর বড় হতে দেননি বাস ডি লিডে। সঙ্গীকে হারিয়ে ইনিংস সর্বোচ্চ ২৭ বলে ৩৮ রান করে ফিরেন আফিফ। নিজেদের ইনিংসের শেষদিকে মোসাদ্দেক হোসেনের ২০ রানের ইনিংসের উপর ভর করে নির্ধারিত ২০ ওভার শেষে ৮ উইকেট হারিয়ে ১৪৪ রানের সংগ্রহ পায় বাংলাদেশ। নেদারল্যান্ডসের হয়ে ম্যাকর্যান এবং ডি লিডে নেন দুইটি করে উইকেট। একটি করে উইকেট নেন ক্যাসেল-ব্রেক-প্রিঙ্গল এবং শারিয়াজ আহমেদ। সংক্ষিপ্ত স্কোর বাংলাদেশ ১৪৪/৮ আফিফ ৩৮ (২৭) নাজমুল ২৫ (২০) ম্যাকর্যান ২/২১ ডি লিডে ২/২৯ নেদারল্যান্ডস ১৩৫/১০ (২০ ওভার) অ্যাকারম্যান ৬২ (৪৮) ম্যাকর্যান ২৪ (১৪) তাসকিন ৪/২৫ হাসান ২/১৫ ফলাফলঃ বাংলাদেশ ৯ রানে জয়ী ম্যাচ সেরাঃ তাসকিন আহমেদ

সর্বশেষ