বিএনপির বিভাগীয় গণসমাবেশে যোগ দিতে বিভিন্ন জেলা ও উপজেলা থেকে আসা নেতাকর্মীরা নগরীর কেডি ঘোষ রোডের দলীয় কার্যালয়ের সামনে জড়ো হচ্ছেন। শুক্রবার রাত ৮টার পরেই কেডি ঘোষ রোড এলাকায় কানায় কানায় মানুষে পূর্ণ হয়ে যায়। অনেকে রাতে থাকার জন্য মাদুর, বালিসও সঙ্গে নিয়ে এসেছেন।

তবে বিএনপি নেতারা জানান, কিছু সময়ের মধ্যে সমাবেশের মঞ্চ তৈরির কাজ শুরু হবে। নেতাকর্মীরা রাতে সেখানেই অবস্থান করবেন।

শুক্রবার রাতে দলীয় কার্যালয়ে সামনে অবস্থান নেওয়া শরণখোলা উপজেলা যুবদলের সদস্য সচিব আলামিন খান  জানান, বুধবার রাতে খুলনায় রওনা হন তারা। পথে তাদের ওপর হামলা চালালে অনেকে আহত হন। অনেক পথ ঘুরে তারা খুলনায় পৌঁছেছেন।

সাতক্ষীরা থেকে আসা যুবদল কর্মী সোহরাব হোসেন জানান, বাস বন্ধ থাকায় বিভিন্ন ছোট ছোট যানবাহনে অল্প অল্প করে তারা ৬ জন খুলনা এসেছেন। রাতে দলীয় কার্যালয়ের নিচে অথবা সমাবেশস্থলে থাকবেন।

খুলনা মহানগর বিএনপির আহ্বায়ক শফিকুল আলম মনা  জানান, বাস-লঞ্চ বন্ধের পর পথে পথে নেতাকর্মীদের বাঁধা দেওয়া হচ্ছে। কিন্তু সব বাধা উপেক্ষা করে গণতন্ত্রকামী মানুষের জনস্রোত এখন খুলনামুখী।

তিনি বলেন, ‘দলীয় কার্যালয়ের সামনে তিল ধারণের জায়গা নেই। কাল সমাবেশস্থলসহ খুলনা মহানগরী জনসমুদ্রে পরিণত হবে।’