বঙ্গবন্ধু ছিলেন একনিষ্ঠ এবং পরিশ্রমী ব্যক্তিত্ব: ড.কলিমউল্লাহ

জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ১০২ তম জন্মোৎসব উপলক্ষ্যে জানিপপ কর্তৃক আয়োজিত জুম ওয়েবিনারে এক বিশেষ সেমিনারের ৪৪২তম পর্ব অনুষ্ঠিত হয়। সভার শুরুতে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের কনিষ্ঠ পুত্র শহীদ শেখ রাসেলের ৫৮তম জন্মদিনে শুভেচ্ছা ও শ্রদ্ধা জ্ঞাপন করা হয়।
জানিপপ-এর প্রতিষ্ঠাতা চেয়ারম্যান প্রফেসর ড.মেজর নাজমুল আহসান কলিমউল্লাহ, বিএনসিসিও’র সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত এ সেমিনারে প্রধান অতিথি হিসেবে সংযুক্ত ছিলেন ইউএন ডিজএ্যাবিলিটি রাইটস চ্যাম্পিয়ন ও অনারারি প্রফেসর আবদুস সাত্তার দুলাল এবং গেস্ট অব অনার হিসেবে সংযুক্ত ছিলেন, রংপুর মহিলা আওয়ামীলীগের সভাপতি আর্জিনা খানম ও কুষ্টিয়া থেকে সিনিয়র সাংবাদিক হুমায়ুন কবির ও শিল্প উদ্যোক্তা আমাতুন নূর শিল্পী।
সেমিনারে বিশেষ অতিথি হিসেবে সংযুক্ত ছিলেন নীলফামারীর জলঢাকা থেকে পিএইচডি গবেষক ফাতেমা তুজ জোহরা।
সভাপতির বক্তৃতায় ড.কলিমউল্লাহ জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের স্মৃতির প্রতি গভীর শ্রদ্ধা নিবেদন করে বলেন,বঙ্গবন্ধু ছিলেন একনিষ্ঠ এবং পরিশ্রমী ব্যক্তিত্ব। তিনি আরো বলেন,
পাঁচ ভাইবোনের মধ্যে রাসেল ছিল সবার ছোট এবং অনেক আদরের। নামটি বঙ্গবন্ধু নিজেই রেখেছিলেন, তাঁর প্রিয় ব্যক্তিত্ব বিখ্যাত দার্শনিক বার্ট্রান্ড রাসেলের নামে।১৯৭৫ সালের ১৫ আগস্ট মানবতার শত্রু ঘৃণ্য ঘাতকদের নির্মম বুলেট থেকে রক্ষা পাননি শিশু শেখ রাসেল। বঙ্গবন্ধুর সাথে নরপিশাচরা নির্মমভাবে তাকেও হত্যা করেছিল।ড.কলিমউল্লাহ, শহীদ শেখ রাসেলের আত্মার মাগফিরাত কামনা করেন।
প্রধান অতিথির বক্তব্যে আবদুস সাত্তার দুলাল বলেন ,বাংলার মানুষ কী চায়, কিভাবে তা আদায় করতে হবে তা সঠিক মুহূর্তে সঠিকভাবে তুলে ধরতে পেরেছিলেন একমাত্র বঙ্গবন্ধুই৷ নীতি-আদর্শের সংগ্রামে অন্য দল তো বটেই, নিজ দলের নেতাদের চেয়েও যোজন যোজন এগিয়ে ছিলেন তিনি৷

আর্জিনা খানম বলেন,বঙ্গবন্ধুকে হত্যার পর দুই দশকে নানাভাবে ইতিহাস থেকে বঙ্গবন্ধুকে মুছে ফেলার চেষ্টা করা হয়েছে৷ কিন্তু ঘাতকদের সকল অপচেষ্টা ব্যর্থ হয়েছে।

আমাতুন নূর বলেন,যে সাধারণ মানুষকে বঙ্গবন্ধু এত ভালোবাসতেন, তাঁদের হৃদয়েই বেঁচে থাকবেন বঙ্গবন্ধু, আমাদের জাতি পিতা।

সাংবাদিক হুমায়ুন কবির বলেন, নিজেদের সবচেয়ে বড় বঙ্গবন্ধুর ‘সৈনিক’ প্রমাণে যে পরিমাণ তোড়জোড় ইদানীং দেখা যায়, সে পরিমাণ উৎসাহ নিয়ে তার আদর্শ বাস্তবায়নের চেষ্টা করলে দেশের উন্নতি আরো দ্রুত হওয়ারই সম্ভাবনা ছিল৷ এই ‘সৈনিকদের’ বেশিরভাগই আবার জানেনও না বঙ্গবন্ধুর আদর্শটা কী ছিল৷

সেমিনারটি সঞ্চালনা করেন আমেরিকার মিলেনিয়াম টিভির কান্ট্রি ডিরেক্টর ও রয়্যাল ইউনিভার্সিটি অব ঢাকা’র সহযোগী অধ্যাপক,বিভাগীয় প্রধান ও ডেইলি প্রেসওয়াচ সম্পাদক দিপু সিদ্দিকী।
সেমিনারে অন্যন্যের মধ্যে সংযুক্ত ছিলেন, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে কর্মরত প্রকৌশলী শাফিউল বাশার, বগুড়া থেকে হ্যাপি, রাজশাহী থেকে ডা. মাহবুবুল হক ও ব্রাহ্মণবাড়িয়া থেকে ডা.বায়েজিদা ফারজানা।

সর্বশেষ