গোসাইরহাটে স্বেচ্ছাসেবকলীগের সভাপতিকে কুপিয়ে হত্যার চেষ্টা গ্রেফতার-৪

গোসাইরহাটে স্বেচ্ছাসেবকলীগের সভাপতিকে কুপিয়ে হত্যার চেষ্টা গ্রেফতার-৪

শরীয়তপুর প্রতিনিধি:
গোসাইরহাট উপজেলার কোদালপুর ইউনিয়ন স্বেচ্ছাসেবকলীগের সভাপতিকে প্রতিপক্ষের লোকেরা পূর্ব শত্রুতার জের ধরে হত্যার উদ্যেশে মারাত্মক ভাবে কুপিয়ে আহত করেছে। তার অবস্থা আশংকাজনক। তাকে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে প্রেরণ করা হয়েছে।এ ঘটনায় গোসাইরহাট থানায় মামলা দায়ের করা হয়েছে। পুলিশ ঘটনার সাথে জড়িত থাকার অভিযোগে ৪ জনকে গ্রেফতার করেছে।

সরেজমিন ঘুরে ও গোসাইরহাট থানা পুলিশ জানায়, গোসাইরহাট উপজেলার কোদালপুর ইউনিয়নের হাজির আলী দেওয়ান পাড়া গ্রামের সেলিম দেওয়ানগং দের সাথে কোদালপুর ইইপ সদস্য একই এলাকার কাঞ্চন সরদার গংদের দীর্ঘদিন যাবত খুটিনাটি বিষয়াদি নিয়ে বিরোধ চলে আসছিল। মঙ্গলবার রাত অনুমান সাড়ে ৯টায় সেকান্দর দেওয়ানের ছেলে নান্টু দেওয়ান ঔষধ আনতে দোকানে যাওয়ার পথে পূর্বশত্রæতার জের ধরে কোদালপুর ইউনিয়ন পরিষদ সংলগ্ন সবুজ গাজির ঔষধের দোকানের সামনে প্রশিাহেদ, সিয়াম, কাঞ্চন,দাদনসহ প্রায় অর্ধশতধিক লোজন দেশীয় অস্ত্রশস্ত্র নিয়ে পথরোধ করে বেদম মারপিট করে গুরুতর আহত করে। এ সময় নান্টু দেওয়ানের শোর চিৎকার শুনে সেকান্দর দেওয়ানের ভাই নাসির দেওয়ান ও সেলিম দেওয়ানের ছেলে কোদালপুর ইউনিয়ন স্বেচ্ছাসেবকলীগের সভাপতি সুমন দেওয়ান তাকে রক্ষা করতে এগিয়ে গেলে হামলাকারীরা দুজনকেই ধারালো অস্ত্র দিয়ে কুপিয়ে গুরুতর জখম করে। হামলাকারীরা সুমন দেওয়ানের মাথায় ধারালো অস্ত্রদিয়ে কোপ দিয়ে মাথার হাড় কেটে ফেলে। ঐ সময় সুমন মাটিতে লুটিয়ে পড়ে। স্থানীয় লোকজন তাকে উদ্ধার করে একটি মোটর সাইকেল করে হাসপাতালে নেয়ার পথে পুনরায় আক্রমন করে মোটর সাইকেলটি ভাংচুর করে বিনষ্ট করে দেয়। পরে তাকে উদ্ধার করে প্রথমে গোসাইরহাট স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নেয়া হলে রোগীর অবস্থার বেগতিক দেখে কর্তব্যরত ডাক্তার তাকে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে প্রেরন করেন।তার অবস্থা আশংকাজনক। বুধবার রাত ৮টায় তার মাথায় অপারেশন করার কথা রয়েছে। এ ঘটনায় সুমন দেওয়ানের বাবা সেলিম দেওয়ান বাদী হয়ে ১৫জনকে আসামী করে গোসাইরহাট থানায় একটি লিখিত অভিযোগ দাখিল করেছেন। পুলিশ ঘটনার পর পর ঘটনার সাথে জড়িত ৫জনকে আটক করলে ও একজন জড়িত না থাকায় ছেড়ে দেয়।

এ ব্যাপারে বাদী সেলিম দেওয়ান বলেন, আমার ছেলেকে হত্যার উদ্দ্যেশে কাঞ্চন সরদার গংরা কুপিয়ে জখম করেছে। তার অবস্থা আশংকা জনক। আমি মামলা করেছি। এ ঘটনার সুষ্ঠ বিচার চাই।

এ ব্যাপারে গোসাইরহাট থানার ওসি মো. আসলাম সিকদার বলেন, ঘটনার সাথে সাথে ৫ জনকে আটক করা হয়েছে। এ ঘটনায় লিখিত অভিযোগ পেয়েছি। মামলার প্রস্তুতি চলছে। বাকি আসামীদেরকে শীঘ্রই গ্রেফতার করতে পারবো বলো আশা করছি।

সর্বশেষ