Friday, September 30, 2022
Homeজাতীয়জ্ঞানের আলো পাঠাগারের সহযোগিতায় দোকান উপহার পেল কোটালীপাড়ার দরিদ্র কুসুম অধিকারী

জ্ঞানের আলো পাঠাগারের সহযোগিতায় দোকান উপহার পেল কোটালীপাড়ার দরিদ্র কুসুম অধিকারী

কোটালীপাড়া (গোপালগঞ্জ) প্রতিনিধিঃজেমস বাড়ৈ। কলেজ পড়ুয়া মেয়েকে নিয়ে দারিদ্র্যের কষাঘাতে জর্জরিত স্বামী পরিত্যাক্ত কুসুম অধিকারীকে দোকানঘর উপহার দিল স্বেচ্ছাসেবী সামাজিক সংগঠন জ্ঞানের আলো পাঠাগার। ফেসবুকের মাধ্যমে অর্থ সংগ্রহ করে কোটালীপাড়া উপজেলার কলাবাড়ি ইউনিয়নের কুমরিয়া গ্রামে কুসুমের বাড়ির পাশে একটি দোকানঘর তৈরী করে দেয় জ্ঞানের আলো পাঠাগার। আজ দুপুরে কুসুমকে দিয়ে ফিতা কেটে দোকানঘরটির আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন করা হয়। এ সময় জ্ঞানের আলো পাঠাগারের সেচ্ছাসেবক টিম লিডার সুশান্ত বর্ণিক ও স্থানীয় ব্যক্তিরা উপস্থিত ছিলেন। জানা যায়, কুসুম কোটালীপাড়ার কুমুরিয়া গ্রামের মৃত দেবেন বাড়ৈ এর মেয়ে। ২০০১ সালে পারিবারিকভাবে কুসুমের বিয়ে হয় কোটালীপাড়া উপজেলার কান্দি গ্রামে অপূর্ব অধিকারীর সাথে। যৌতুকের অত্যাচারে ৭ মাসের গর্ভের সন্তানকে নিয়ে ২০০৪ সালে বাবার বাড়িতে চলে আসে কুসুম। সেই থেকে দিনমজুরী করে কুসুমের সংগ্রামী জীবন। মেয়ে এখন কলেজে লেখাপড়া করে।

নানাবিধ রোগে আক্রান্ত হওয়ায় কুসুম দিনমজুরী কাজ বন্ধ হওয়ায় না খেয়ে থাকার উপক্রম হয় মা ও মেয়ের। বিষয়টি জানতে পেরে এগিয়ে আসে কোটালীপাড়ার মানবিক সংগঠন জ্ঞানের আলো পাঠাগার। বিভিন্ন মানবিক ব্যক্তির সহায়তায় অর্থ সংগ্রহ করে কুসুমকে উপহার দেয় দোকানঘর। কুসুম অধিকারী বলেন, আজ আমি মহাখুশি। মনে হচ্ছে নতুন জীবন ফিরে পেলাম। স্বামীর বাড়ি থেকে বিতাড়িত হয়ে বিগত ১৭ বছর একমাত্র মেয়েকে নিয়ে অনেক কষ্ট ও সংগ্রাম করেছি। কতবেলা যে না খেয়ে থেকেছি তার হিসেব নেই। গত কয়েকমাস চরম দারিদ্রতার মাঝে কেটেছে। নিজে বিভিন্ন রোগে অসুস্থ থাকায় ঠিকমত দিনমজুরীর কাজ করতে পারি নাই।

এইচএসসি পড়া মেয়ের লেখাপড়ার খরচ ও সংসারের খরচ চালানোর টাকা কই পামু তাই নিয়া চিন্তায় ঠিকমত ঘুমাইতেও পারি নাই। ঠিক এই সময়ে জ্ঞানের আলো পাঠাগার আমাকে দোকান উপহার দিয়েছে। এই দোকানই আমার ভাগ্য পরিবর্তন করে দিবে। জ্ঞানের আলো পাঠাগারের স্বেচ্ছাসেবক টিম লিডার সুশান্ত বর্ণিক বলেন, কুসুম অধিকারীর অসহায়ত্বেও কথা যেনে জ্ঞানের আলো পাঠাগারের মাধ্যমে তাকে স্বাবলম্বী করা উদ্যোগ নেই। কুসুমের জন্য একটি দোকান নির্মাণের সহায়তা চেয়ে জ্ঞানের আলো পাঠাগারের ফেসবুকে পোষ্ট দেওয়া হয়। এতে অনেক মানবিক মানুষ সাড়া দিয়ে আমাদের কাছে ২৪ হাজার ১০০ টাকা সংগ্রহ করি। সেই টাকা দিয়েই আজ মালামালসহ নতুন দোকান উপহার দেওয়া হয় কুসুমকে।

RELATED ARTICLES

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

Most Popular