Saturday, October 1, 2022
Homeজাতীয়২৬ জুলাই এক নজরে বাংলাদেশ

২৬ জুলাই এক নজরে বাংলাদেশ

২৬ জুলাই এক নজরে বাংলাদেশ

 

ওয়ালটনের লিফট টেস্টিং টাওয়ার উদ্বোধন করলেন গণপূর্ত প্রতিমন্ত্রী

 

গাজীপুর, ১১ শ্রাবণ (২৬ জুলাই) :

          ইলেকট্রনিক পণ্য সামগ্রী প্রস্তুতকারী প্রতিষ্ঠান ওয়ালটনের লিফট টেস্টিং টাওয়ার উদ্বোধন করেছেন গৃহায়ন ও গণপূর্ত প্রতিমন্ত্রী শরীফ আহমেদ।

          প্রতিমন্ত্রী আজ গাজীপুর জেলার কালিয়াকৈর উপজেলায় অবস্থিত ওয়ালটন হাইটেক পার্ক এলাকায় দেশীয় প্রযুক্তিতে প্রস্তুত ওয়ালটনের লিফটের কার্যকারিতা পরীক্ষা করার জন্য নির্মিত দশ তলাবিশিষ্ট এই টাওয়ার উদ্বোধন করেন।

          উদ্বোধনকালে ওয়ালটন শিল্প পরিবারের ব্যবস্থাপনা পরিচালক ও ভাইস চেয়ারম্যানসহ ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তাবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।

          এর আগে প্রতিমন্ত্রী ওয়ালটন হাইটেক পার্কের বিভিন্ন পণ্য উৎপাদনকারী ইউনিট পরিদর্শন করেন। পরিদর্শন শেষে ওয়ালটন হাইটেক পার্কের প্রধান ভবনে অবস্থিত সম্মেলন কক্ষে এক মতবিনিময় সভায় অংশগ্রহণ করেন।

          সভায় প্রতিমন্ত্রী দেশীয় প্রযুক্তির প্রসার, স্থানীয় শিল্পের বিকাশ এবং দেশের উন্নয়ন ও অগ্রগতিতে ওয়ালটন শিল্প পরিবারের অবদানের ভূয়সী প্রশংসা করেন।

 

শেখ হাসিনা উন্নত-সমৃদ্ধ বাংলাদেশ গড়তে কাজ করে যাচ্ছেন : পানিসম্পদ উপমন্ত্রী

ঢাকা, ১১ শ্রাবণ (২৬ জুলাই) :  

পানিসম্পদ উপমন্ত্রী একেএম এনামুল হক শামীম বলেছেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা উন্নত-সমৃদ্ধ বাংলাদেশ গড়তে রাত-দিন নিরলসভাবে কাজ করে যাচ্ছেন। তিনিই দেশের সকল অর্জন ও উন্নয়নের শেষ ঠিকানা। তাঁর কারণেই নিজস্ব অর্থায়নে পদ্মা সেতু বিশ্বের বুকে মাথা উঁচু করে দাঁড়িয়েছে। বিশ্বের বুকে বাংলাদেশের মর্যাদা বাড়িয়েছে। উন্নত বাংলাদেশ ও ভবিষ্যৎ প্রজন্মের জন্য বাসযোগ্য দেশ গড়তে ডেল্টা প্ল্যান-২১০০ বাস্তবায়নে কাজ করছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

আজ জাতীয় জাদুঘরের বঙ্গমাতা ফজিলাতুন্নেছা মুজিব হলে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে অধ্যয়নরত শরীয়তপুর জেলার শিক্ষার্থীদের সংগঠন কৃতিনাশা আয়োজিত নবীন বরণ ও কৃতি সংবর্ধনা এবং সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে উপমন্ত্রী এসব কথা বলেন।

উপমন্ত্রী বলেন, স্বাধীনতা সংগ্রামসহ সব আন্দোলন-সংগ্রামে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ভূমিকা অগ্রগণ্য। জীবনের মায়া ত্যাগ করে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্রসমাজ সর্বদা গণতান্ত্রিক আন্দোলন-সংগ্রামে এগিয়ে এসেছে। জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ডাকে সাড়া দিয়ে স্বাধীনতা সংগ্রামে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্রসমাজের প্রতিবাদী সত্তার স্ফুরণ ও অগ্রগণ্য ভূমিকা অনন্য অসাধারণ অর্জন। এ অর্জন ধারণ করে আগামী দিনের উন্নত-সমৃদ্ধ বাংলাদেশ বিনির্মাণে এগিয়ে যেতে হবে।

উপমন্ত্রী আরো বলেন, আগামীতে শিক্ষার মানোন্নয়নে মেগা প্রকল্প গ্রহণ করা হচ্ছে। জেলায় জেলায় বিশ্ববিদ্যালয় তৈরি করা হচ্ছে। ননএমপিওভুক্ত শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানকে এমপিওভুক্ত করা হচ্ছে। শরীয়তপুরে শেখ হাসিনা কৃষি বিশ্ববিদ্যালয় হচ্ছে৷ গত ১৩ বছরে কোনো শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে অস্ত্রের ঝনঝনানি নেই, অস্ত্রের মহড়া নেই, সেশন জট নেই। বছরের প্রথমদিন শিক্ষার্থীদের হাতে নতুন বই তুলে দেয়া শেখ হাসিনার সরকারের অনন্য কৃতিত্ব।

সংগঠনের সভাপতি তানভীর ইসলাম প্রিন্স ও সাইদুল ইসলামের সঞ্চালনায় অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি ছিলেন বাংলাদেশ টেলিযোগাযোগ নিয়ন্ত্রণ কমিশনের চেয়ারম্যান শ্যামসুন্দর দেবনাথ, জননিরাপত্তা বিভাগের সিনিয়র সচিব মোঃ আখতার হোসেন, পপুলার লাইফ ইনসুরেন্স কোম্পানির ব্যবস্থাপনা পরিচালক বিএম ইউসুফ আলী, ঢাবি’র আর্থ এন্ড এনভায়রনমেন্টাল সায়েন্স অনুষদের ডিন ড. মোঃ জিল্লুর রহমান, শরীয়তপুর পৌরসভার সাবেক মেয়র রফিকুল ইসলাম কোতোয়াল, জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টর অধ্যাপক ড. মোস্তফা কামাল, বঙ্গবন্ধু মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ের সহযোগী অধ্যাপক ডা. মোঃ মজিবুর রহমান হাওলাদার ও সমবায় অধিদপ্তরের উপ-নিবন্ধক আবুল খায়ের (হিরু)।

এ সময় উপমন্ত্রী এনামুল হক শামীমের রত্নগর্ভা মায়ের নামে প্রতিষ্ঠিত বেগম আশ্রাফুন্নেছা ফাউন্ডেশনের পক্ষ থেকে ২৫ জন কৃতি শিক্ষার্থীকে বৃত্তি প্রদান করা হয়।

 

বঙ্গবন্ধুর উন্নয়ন-দর্শনকে সামনে রেখে কাজ করতে হবে : জনপ্রশাসন প্রতিমন্ত্রী

 

ঢাকা, ১১ শ্রাবণ (২৬ জুলাই) :  

জনপ্রশাসন প্রতিমন্ত্রী ফরহাদ হোসেন বলেছেন, বঙ্গবন্ধুর উন্নয়ন দর্শনকে সামনে রেখে সরকারি কর্মচারীদের কাজ করতে হবে।

আজ পাবলিক সার্ভিস দিবস ২০২২ উপলক্ষ্যে জাতীয় পরিকল্পনা ও উন্নয়ন একাডেমি আয়োজিত ‘বঙ্গবন্ধুর উন্নয়ন ভাবনা ও বাংলাদেশের উন্নয়ন প্রশাসন’ শীর্ষক সেমিনারে প্রধান অতিথি হিসাবে বক্তব্য প্রদান কালে প্রতিমন্ত্রী এ কথা বলেন।

প্রতিমন্ত্রী বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সরকার বঙ্গবন্ধুর উন্নয়ন দর্শনকে ভিত্তি করে এ দেশকে উন্নত সমৃদ্ধ রাষ্ট্রে পরিণত করার লক্ষ্যে এগিয়ে যাচ্ছে। তাই সরকারি কর্মচারীদের বঙ্গবন্ধুর সেই দর্শনকে সামনে রেখে কাজ করতে হবে।

প্রতিমন্ত্রী এ সময় জনগণের প্রত্যাশা পূরণে সরকারি কর্মচারীদের আন্তরিকতার সাথে কাজ করার আহ্বান জানান।

জাতীয় পরিকল্পনা ও উন্নয়ন একাডেমির মহাপরিচালক মোঃ বদরুল আরেফিন অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন। মূল প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন প্রধানমন্ত্রীর প্রাক্তন মুখ্যসচিব ড. কামাল আবদুল নাসের চৌধুরী। এছাড়া আলোচনায় অংশগ্রহণ করেন পরিবেশ, বন ও জলবায়ু পরিবর্তন মন্ত্রণালয়ের সচিব ড. ফারহিনা আহমেদ, বাংলাদেশ উন্নয়ন গবেষণা প্রতিষ্ঠানের মহাপরিচালক ড. বিনায়ক সেন ও গণপূর্ত অধিদপ্তরের প্রধান প্রকৌশলী মোঃ শামীম আখতার।

 

 

প্রাথমিকের শিক্ষকদের অনলাইনে বদলি চালু হচ্ছে

 

ঢাকা, ১১ শ্রাবণ (২৬ জুলাই) :  

দীর্ঘদিন বন্ধ থাকার পর চালু হচ্ছে সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষকদের অনলাইনে বদলি। আগামীকাল প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয়ের সভাকক্ষে আনুষ্ঠানিকভাবে এ বদলি কার্যক্রমের উদ্বোধন করবেন প্রাথমিক ও গণশিক্ষা প্রতিমন্ত্রী মোঃ জাকির হোসেন। অনুষ্ঠানে উপস্থিত থাকবেন মন্ত্রণালয়ের সিনিয়র সচিব আমিনুল ইসলাম খান ও প্রাথমিক শিক্ষা অধিদপ্তরের মহাপরিচালক মহিবুর রহমান।

প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষকদের বদলিকে সহজ ও হয়রানিমুক্ত করতে এবং শিক্ষকদের যাতে কোথাও ধরনা দিতে না হয় সে জন্য অনলাইনে শিক্ষক বদলির কার্যক্রম গ্রহণ করা হয়। কিন্তু করোনা পরিস্থিতির কারণে এ কার্যক্রমের বাস্তবায়ন কিছুটা বিলম্ব হয়। গত ৩০ জুন, ২০২২ গাজীপুরের কালিয়াকৈরে এ কার্যক্রমের পাইলটিং উদ্বোধন করেন মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক মন্ত্রী আ ক ম মোজাম্মেল হক। ১৫ জুলাই ২০২২ পর্যন্ত যে সব শিক্ষকগণ বদলির আবেদন করেছেন তাদেরকে বদলির আওতায় আনা হবে।

পাইলটিং কার্যক্রম শেষ হলে সারা দেশে সহকারী শিক্ষকদের অনলাইনে বদলির কার্যক্রম শুরু হবে।

 

‘আমাদের অর্থে আমাদের পদ্মা সেতু’ গ্রন্থের মোড়ক উন্মোচন

 

ঢাকা, ১১ শ্রাবণ (২৬ জুলাই) :

          পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. এ কে আব্দুল মোমেন সম্পাদিত ‘আমাদের অর্থে আমাদের পদ্মা সেতু’ গ্রন্থের মোড়ক উন্মোচন করা হয়েছে। আজ রাজধানীর ফরেন সার্ভিস একাডেমিতে গ্রন্থটির প্রকাশনা উৎসবে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থেকে গ্রন্থটির মোড়ক উন্মোচন করেন স্পিকার ড. শিরীন শারমিন চৌধুরী।

          পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. এ কে আব্দুল মোমেনের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে সম্মানিত অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন আইন, বিচার ও সংসদ বিষয়ক মন্ত্রী আনিসুল হক, পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী মোঃ শাহ্রিয়ার আলম এবং মন্ত্রিপরিষদ সচিব খন্দকার আনোয়ারুল ইসলাম।

          অনুষ্ঠানে আইনমন্ত্রী বলেন, বিশ্বব্যাংক পদ্মাসেতুতে অর্থায়ন থেকে পিছিয়ে যাওয়ায় ‘শাপে বর’ হয়েছে। কারণ হিসেবে তিনি উল্লেখ করেন, নিজস্ব অর্থায়নে পদ্মা সেতু নির্মাণের কারণে আজকে আমাদের আত্মমর্যাদা অনেক বৃদ্ধি পেয়েছে। বাংলাদেশের  মানুষের নিজের ওপরে বিশ্বাস সুদৃঢ় হয়েছে। তিনি বলেন, আজকে আমরা বঙ্গবন্ধুর সেই কথা ‘আমাদেরকে কেউ দাবায়ে রাখতে পারবা না’ সেই পর্যায়ে পৌঁছে গেছি।  বাঙালিকে আর কেউ দাবায়ে রাখতে পারবে না, ইনশাল্লাহ।

          অনুষ্ঠানে বক্তারা বলেন, বাংলাদেশের সক্ষমতার প্রতীক, বাংলাদেশের মানুষের স্বপ্নের পদ্মা সেতু প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার দৃঢ়তায় বাস্তবায়ন সম্ভব হয়েছে। পদ্মা সেতু বাস্তবায়নের নানাদিক তুলে ধরে প্রকাশিত এই গ্রন্থটি বাংলাদেশের উন্নয়ন ইতিহাসে অনন্য এক দলিল হিসেবে বিবেচিত হবে বলে তারা উল্লেখ করেন। বাংলাদেশের ঐতিহাসিক এই অর্জনের বিভিন্ন দিক বিশিষ্ট ব্যক্তিবর্গের লেখনির মাধ্যমে এ গ্রন্থে তুলে ধরার জন্য বক্তারা পররাষ্ট্রমন্ত্রীকে ধন্যবাদ জানান।

          ‘আমাদের অর্থে আমাদের পদ্মা সেতু’ গ্রন্থটি প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে উৎসর্গ করেছেন এ গ্রন্থের সম্পাদক পররাষ্ট্রমন্ত্রী আব্দুল মোমেন। পদ্মা সেতু প্রকল্প বাস্তবায়নের সাথে সংশ্লিষ্ট, এ বিষয়ে অভিজ্ঞ এবং বিশিষ্টজনদের সাক্ষাৎকার, প্রবন্ধ, কবিতা ও গান গ্রন্থটিতে সন্নিবেশিত হয়েছে। এগুলোর মধ্যে পদ্মাসেতু উদ্বোধন উপলক্ষ্যে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার প্রদত্ত দুইটি ভাষণ, বিশিষ্টজনদের লেখা ৫১টি প্রবন্ধ, ১০টি কবিতা ও ছড়া, ৩টি গান ও ৪টি সাক্ষাৎকার রয়েছে।

          অনুষ্ঠানে স্বাগত বক্তব্য রাখেন গ্রন্থটির প্রকাশক, চন্দ্রাবতী একাডেমির স্বত্ত্বাধিকারী কামরুজ্জামান খন্দকার কাজল। অনুষ্ঠানের শুরুতে পদ্মা সেতু বিষয়ক একটি তথ্যচিত্র প্রদর্শন করা হয়। অনুষ্ঠানে আমন্ত্রিত অতিথিদের মধ্যে গ্রন্থটিতে প্রকাশিত প্রবন্ধের লেখকগণ, সরকারি ও বেসরকারি সংস্থার ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তাবৃন্দ, বিভিন্ন প্রকাশনা প্রতিষ্ঠানের সাথে সংশ্লিষ্ট ব্যক্তিবর্গ, প্রিন্ট ও ইলেকট্রনিক মিডিয়ার প্রতিনিধিবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।

 

 

সময়োপযোগী উদ্যোগে বিটিসিএল আজ ঘুরে দাঁড়িয়েছে : টেলিযোগাযোগ মন্ত্রী

ঢাকা, ১১ শ্রাবণ (২৬ জুলাই) :

          বিটিসিএল এবং বাংলালিংকের মধ্যে টাওয়ার শেয়ারিং সংক্রান্ত সার্ভিস লেভেল এগ্রিমেন্ট আজ ঢাকার ইস্কাটন গার্ডেনস্থ বিটিসিএল প্রধান কার্যালয়ের সভাকক্ষে স্বাক্ষরিত হয়েছে। অনুষ্ঠানে ডাক ও টেলিযোগাযোগ মন্ত্রী মোস্তাফা জব্বার প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন। ডাক ও টেলিযোগাযোগ বিভাগের সচিব মোঃ খলিলুর রহমানের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন বিটিআরসি’র চেয়ারম্যান শ্যাম সুন্দর সিকদার। বিটিসিএল এর ব্যবস্থাপনা পরিচালক ড. মোঃ রফিকুল মতিন এবং বাংলালিংক-এর প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা এরিক অস নিজ নিজ প্রতিষ্ঠানের পক্ষে এ চুক্তিতে স্বাক্ষর করেন।

          মন্ত্রী বলেন, আজ এ চুক্তি স্বাক্ষর অনুষ্ঠান সত্যিই একটা মাইলফলক। বঙ্গবন্ধুর হাত ধরে টিএন্ডটির যাত্রা শুরু এবং ১৯৭৩ সালে আইটিইউ এর সদস্য পদ অর্জন এবং ১৯৭৫ সালের ১৪ জুন বেতবুনিয়ায় ভূ-উপগ্রহ কেন্দ্র উদ্বোধনের মাধ্যমে আন্তর্জাতিক টেলিযোগাযোগের যাত্রা শুরু হয়। বিটিটিবি ছিল একসময় এদেশের টেলিযোগাযোগের মেরুদণ্ড। মোস্তাফা জব্বার প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা গৃহীত ডিজিটাল বাংলাদেশ কর্মসূচির বাস্তবায়নের ধারাবাহিকতায় জাতীয় অগ্রগতির চিত্র তুলে ধরেন।

          মন্ত্রী বলেন, ইতোপূর্বে এ দুটো প্রতিষ্ঠান অপটিক্যাল ফাইবার অবকাঠামো শেয়ার করেছে। বিটিসিএল যেমন তার রিসোর্স শেয়ার করে দৃষ্টান্ত স্থাপন করেছে তেমনই বাংলালিংক সেই রিসোর্স ব্যবহার করে আরেকটি দৃষ্টান্ত স্থাপন করলো। এতে উভয়পক্ষই লাভবান হচ্ছে। ল্যান্ডফোনে মানুষের কথা বলা কমে যাওয়ার কারণে এর গ্রাহক কমে যাওয়ায় বিটিসিএল ৪/৫ বছর আগেও বছরে ৪০০ কোটি টাকা ক্ষতির সম্মুখীন হয়েছে।

          এই চুক্তির আওতায় বিটিসিএল-এর নেটওয়ার্ক অবকাঠামো ব্যবহার করবে বাংলালিংক। উদ্যোগটি বাংলালিংক-এর ফোরজি নেটওয়ার্ক সম্প্রসারণে সহায়তা করে প্রতিষ্ঠানটির সেবার মান বৃদ্ধিতে ভূমিকা রাখবে। এর ফলে শক্তি সাশ্রয়ের পাশাপাশি জাতীয় সম্পদের উপযুক্ত ব্যবহারও নিশ্চিত করা সম্ভব হবে।

 

সাবেক সংসদ সদস্য আব্বাস আলী মণ্ডলের মৃত‍্যুতে সংস্কৃতি প্রতিমন্ত্রীর শোক

 

ঢাকা, ১১ শ্রাবণ (২৬ জুলাই) :

 

সাবেক সংসদ সদস্য এবং জয়পুরহাট জেলা আওয়ামী লীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক ও আহ্বায়ক আব্বাস আলী মণ্ডলের মৃত‍্যুতে গভীর শোক প্রকাশ করেছেন সংস্কৃতি বিষয়ক প্রতিমন্ত্রী কে এম খালিদ।

 

প্রতিমন্ত্রী আজ এক শোকবার্তায় মরহুমের বিদেহী আত্মার মাগফিরাত কামনা করেন এবং তাঁর শোকসন্তপ্ত পরিবারের সদস‍্যদের প্রতি গভীর সমবেদনা জানান।

 

শোকবার্তায় প্রতিমন্ত্রী জানান, জয়পুরহাট জেলা আওয়ামী লীগের প্রবীণ নেতা আব্বাস আলী মণ্ডল ছিলেন বঙ্গবন্ধুর আদর্শের একজন নিবেদিতপ্রাণ কর্মী ও জনবান্ধব রাজনীতিক। তিনি ১৯৭৫ পরবর্তীতে সুদীর্ঘকাল জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও আহ্বায়কের দায়িত্ব পালন করেন।

 

উল্লেখ্য, আব্বাস আলী মণ্ডল (৯১) আজ রাজধানীর একটি হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মৃত্যুবরণ করেন (ইন্না লিল্লাহি ওয়া ইন্না লিল্লাহি রাজিউন)।

 

সকল প্রকৃত ভূমিহীন ও গৃহহীনদের পুনর্বাসন করা হবে : পরিবেশমন্ত্রী

 

ঢাকা, ১১ শ্রাবণ (২৬ জুলাই) :  

পরিবেশ, বন ও জলবায়ু পরিবর্তন মন্ত্রী মোঃ শাহাব উদ্দিন বলেছেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নির্দেশে দেশের সকল প্রকৃত ভূমিহীন ও গৃহহীনদের পুনর্বাসন করা হচ্ছে। যাদের জমি বা গৃহ কিছুই নাই, কোনো উপজেলায় খাসজমি না থাকলেও প্রয়োজনে জমি অধিগ্রহণ করে তাদের পুনর্বাসন করা হবে। সরকারের এ প্রকল্প পুরোপুরি বাস্তবায়িত হলে দেশে আর কোনো মানুষ গৃহহীন থাকবে না।

 

মুজিববর্ষে আশ্রয়ন-২ প্রকল্পের আওতায় ভূমিহীন ও গৃহহীন ‘ক’ শ্রেণির পরিবারকে শতভাগ পুনর্বাসনের লক্ষ্যে আজ বড়লেখা উপজেলা নির্বাহী অফিসারের কার্যালয়ের সভাকক্ষে অনুষ্ঠিত স্টেকহোল্ডারদের সাথে উপজেলা টাস্কফোর্স কমিটির যৌথ সভায় ঢাকাস্থ সরকারি বাসভবন হতে ভার্চুয়ালি যুক্ত হয়ে পরিবেশমন্ত্রী তার বক্তব্যে এসব কথা বলেন।

 

পরিবেশমন্ত্রী বলেন, পুনর্বাসনের ক্ষেত্রে সংশ্লিষ্ট পরিবারের মতামতকে বিবেচনায় নিতে হবে। কোনো পরিবারের স্থায়ী ঠিকানা হতে দূরে কোথাও পুনর্বাসিত হতে না চাইলে তাদের ইচ্ছার বিরুদ্ধে পুনর্বাসন করা যাবে না। শুধু উপজেলায় সরকার নির্ধারিত যেকোনো স্থানে স্বেচ্ছায় পুনর্বাসিত হতে ইচ্ছুকদের পুর্নবাসনের ব্যবস্থা করতে হবে। মন্ত্রী এসময় যাদের একেবারেই ভূমি বা গৃহ কিছুই নাই তাদের পুনর্বাসনের ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য টাস্কফোর্স কমিটির সদস্যদের প্রতি নির্দেশনা প্রদান করেন।

 

বড়লেখা উপজেলা নির্বাহী অফিসার খন্দকার মুদাচ্ছির বিন আলীর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত সভায় অন্যান্যের মধ্যে উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান সোয়েব আহমদ, বড়লেখা পৌরসভার মেয়র আবুল ইমাম
মোঃ কামরান চৌধুরী এবং সহকারী কমিশনার (ভূমি) জাহাঙ্গীর হোসাইন।

 

উল্লেখ্য, মুজিববর্ষে আশ্রয়ন-২ প্রকল্পের আওতায় বড়লেখা উপজেলার ভূমিহীন ও গৃহহীন ‘ক’ শ্রেণির ৪৩৫টি পরিবারকে তালিকাভুক্ত করা হয়েছে। এর মধ্যে ২৪৬টি পরিবারকে ইতোমধ্যে পুনর্বাসিত করা হয়েছে। অবশিষ্ট ১৮৯টি পরিবারকে পুনর্বাসনের প্রক্রিয়া চলমান আছে।

 

বাংলাদেশ পুষ্টি নিরাপত্তার বৈশ্বিক মান অর্জনের পথে রয়েছে : শিল্পসচিব

 

ঢাকা, ১১ শ্রাবণ (২৬ জুলাই) :

          শিল্পসচিব জাকিয়া সুলতানা বলেছেন, বাংলাদেশ সরকার ফুড ফর্টিফিকেশন বা খাবার সমৃদ্ধকরণ প্রক্রিয়ার মাধ্যমে অনুপুষ্টির অভাবে মানুষের যে সমস্যা হয় তা প্রতিকার ও প্রতিরোধে বদ্ধপরিকর। খাবার সমৃদ্ধকরণের মাধ্যমে সকলের জন্য পর্যাপ্ত পুষ্টি নিশ্চিত করা যায়। শিল্প মন্ত্রণালয়, বাণিজ্য মন্ত্রণালয় এবং খাদ্য মন্ত্রণালয় সম্মিলিতভাবে খাবার সমৃদ্ধকরণ এবং খাদ্য নিরাপত্তা বিধানে কাজ করে যাচ্ছে। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার দূরদর্শী নেতৃত্বে বাংলাদেশ পুষ্টি নিরাপত্তায় বৈশ্বিক মান অর্জনের পথে রয়েছে।

           আজ রাজধানীর পূর্বাণী হোটেলে গ্লোবাল অ্যালায়েন্স ফর ইমপ্রুভড নিউট্রিশন (মধরহ) এবং বিল এন্ড মেলিন্ডা গেটস ফাউন্ডেশনের সহায়তায় শিল্প মন্ত্রণালয় আয়োজিত ‘ডিজিটাইজেশন অভ্ ফরটিফিকেশন অভ্ এডিবল ওয়েল ফর ইমপ্রুভড মনিটরিং, কোয়ালিটি কনট্রোল এন্ড ক্যাপাসিটি বিল্ডিং’ শীর্ষক ইন্সেপশন মিটিংয়ে ভার্চুয়ালি যুক্ত হয়ে প্রধান অতিথির বক্তব্যে সচিব এসব কথা বলেন।

          শিল্পসচিব বলেন, শিল্প মন্ত্রণালয় ভোজ্য লবণ ফর্টিফিকেশনের মাধ্যমে বাংলাদেশের জনসংখ্যার মধ্যে মাইক্রোনিউট্রিয়েন্টের ঘাটতি দূর করতে ব্যাপক অবদান রেখেছে। এই প্রকল্পটি সরকারি পরিষেবাগুলোকে ডিজিটাল করার জন্য একটি চলমান সরকারি প্রচেষ্টা, ডিজিটাল বাংলাদেশের সাথে সম্পৃক্ত। তাই আমরা বিশ্বাস করি এই প্রকল্পটি বাংলাদেশে ভোজ্য তেল ফর্টিফিকেশনের গুণমান নিশ্চিতকরণ এবং মান নিয়ন্ত্রণের বিদ্যমান চ্যালেঞ্জগুলো কাটিয়ে উঠতে সাহায্য করবে।

          শিল্প মন্ত্রণালয়ের অতিরিক্ত সচিব নূরুল আলমের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে সম্মানিত অতিথি হিসেবে বক্তৃতা করেন এটুআই এর প্রকল্প পরিচালক ড. দেওয়ান মুহাম্মদ হুমায়ুন কবির, জাতীয় ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ অধিদপ্তরের মহাপরিচালক এ এইচ এম শফিকুজ্জামান, বাংলাদেশ স্ট্যান্ডার্ড অ্যান্ড টেস্টিং ইনস্টিটিউশন (বিএসটিআই) এর মহাপরিচালক ড. মোঃ নজরুল আনোয়ার এবং ফেডারেশন অভ্ বাংলাদেশ চেম্বার অভ্ কমার্স অ্যান্ড ইন্ডাস্ট্রি (এফবিসিসিআই) এর সিনিয়র সহ-সভাপতি মোস্তফা আজাদ চৌধুরী বাবু। 

          সভায় জানানো হয়, ফর্টিফিকেশনের মান ও ফর্টিফাইড খাবার ভোক্তাদের কাছে কার্যকরিভাবে পৌঁছায় কি-না তা পর্যবেক্ষণ করতে এই প্রকল্প কাস্টামাইজড ডিজিটাল সিস্টেম চালু করবে। পাইলট প্রজেক্টে অংশগ্রহণের জন্য নির্বাচিত তেল উৎপাদনকারীদেরকে ডিজিটাল বিশেষজ্ঞদের একটি দল কো-ডিজাইন এবং নতুন ডিজিটাল মান নিশ্চিতকরণ/মান নিয়ন্ত্রণ ব্যবস্থা ইনস্টল করতে সহায়তা করবে যা উৎপাদনকারীদের সঠিক মান নিশ্চিতকরণ এবং ইন্সাইট প্রদানের মাধ্যমে লাভজনক ভাবে প্রতিষ্ঠান পরিচালনা করতে সাহায্য করবে।

 

 

নারীর প্রতি সহিংসতা-নারীর মৌলিক অধিকার প্রতিষ্ঠায় অন্যতম বাধা : মহিলা ও শিশু বিষয়ক প্রতিমন্ত্রী

 

ঢাকা, ১১ শ্রাবণ (২৬ জুলাই) :  

ম‌হিলা ও শিশু বিষয়ক প্রতিমন্ত্রী ফ‌জিলাতুন নেসা ইন্দিরা বলেছেন, নারীর প্রতি সহিংসতা-নারীর মৌলিক অধিকার প্রতিষ্ঠায় অন্যতম বাধা। বিশ্বে প্রতি তিনজনে একজন নারী সহিংসতার শিকার। এটা কোনো দেশের একক সমস্যা না। এটা বৈশ্বিক সমস্যা। পুরুষতান্ত্রিক মন-মানসিকতা পরিবর্তনের মাধ্যমে নারীর প্রতি সহিংসতা রোধ করতে হবে। নারীর প্রতি এ সহিংসতা রোধে নতুন আইন প্রণয়ন ও পুরাতন আইনগুলোকে সংস্কার করতে হবে এবং সঠিকভাবে বাস্তবায়ন করতে হবে।

প্রতিমন্ত্রী আজ ঢাকায় সিরডাপ মিলনায়তনে ইউএন উইমেন এর সহযোগিতায় বাংলাদেশ নারী প্রগতি সংঘের উদ্যোগে আয়োজিত নারী, শান্তি ও নিরাপত্তার জাতীয় কর্মপরিকল্পনা বিষয়ক নারী সংগঠন ও সরকারি কর্মকর্তাদের সাথে জাতীয় সংলাপে প্রধান অতিথির বক্তৃতায় এসব কথা বলেন।

প্রতিমন্ত্রী বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সরকার নারী ও শিশুর নিরাপত্তা নিশ্চিত, সহিংসতা প্রতিরোধ এবং আইনি সহায়তা পাওয়ার সুযোগ সৃষ্টি করতে বিভিন্ন কার্যক্রম গ্রহণ করছে। এ লক্ষ্যে সরকার পারিবারিক সহিংসতা প্রতিরোধ ও সুরক্ষা আইন, বাল্য বিয়ে নিরোধ আইন, যৌতুক নিরোধ আইন, ডিএনএ আইন এবং নারী ও শিশু নির্যাতন দমন (সংশোধন) আইন, ২০২০ প্রণয়ন করেছে। নারী ও শিশু নির্যাতন বিচার ট্রাইবুনালের সংখ্যা বৃদ্ধি ও ডিজিটাল ব্যবস্থায় নারীদের নিরাপত্তার জন্য সাইবার সিকিউরিটি ট্রাইব্যুনাল স্থাপন করা হয়েছে। সংশোধিত শিশু নির্যাতন দমন আইনে অভিযুক্ত ব্যক্তি এবং অপরাধের শিকার ব্যক্তির ডিএনএ পরীক্ষা বাধ্যতামূলক এবং ধর্ষণের সর্বোচ্চ শাস্তি ‘মৃত্যুদণ্ড’ করা হয়েছে। আইনের কঠোর বাস্তবায়নের মাধ্যমে অপরাধীদের শাস্তি দ্রুত নিশ্চিত হচ্ছে। 

নারী, শান্তি ও নিরাপত্তা জাতীয় কর্মপরিকল্পনা ২০১৯-২০২২ বিষয়ক জাতীয় সংলাপে সভাপতিত্ব করেন বাংলাদেশ নারী প্রগতি সংঘের নির্বাহী পরিচালক রোকেয়া কবির। অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন পররাষ্ট্র সচিব মাসুদ বিন মোমেন, অস্ট্রেলিয়ান ডেপুটি হাইকমিশনার নারদিয়া সিম্পল আরো উপস্থিত ছিলেন রিসার্স ইনিশিয়েটিভ বাংলাদেশ নির্বাহী পরিচালক মেঘনা গুহ ঠাকুরতা, জেন্ডার স্পেশালিস্ট শীপা হাফিজা, পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের মহাপরিচালক তৌফিক ইসলাম শাতিল এবং ইউএনওমেন ডেপুটি কান্ট্রি রিপ্রেজেন্টেটিভ দিয়া নন্দা। 

প্রতিমন্ত্রী ইন্দিরা ব‌লে‌ন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ১৯৯৭ সালে জাতীয় নারী উন্নয়ন নীতি প্রণয়ন করেন। বিএনপি সরকার ২০০১ সালে সেই নারী নীতি বাতিল করে। পরবর্তীতে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সরকার ২০১১ সালে পুনরায় জাতীয় নারী উন্নয়ন নীতি প্রণয়ন করে। 

 

ত্রাণ প্রতিমন্ত্রীর সাথে আইওএম প্রতিনিধিদলের সাক্ষাৎ

 

ঢাকা, ১১ শ্রাবণ (২৬ জুলাই) :

 

দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা ও ত্রাণ প্রতিমন্ত্রী ডা: মোঃ এনামুর রহমানের সাথে আজ সচিবালয়ে প্রতিমন্ত্রীর অফিসকক্ষে আন্তর্জাতিক অভিবাসন সংস্থা (আইওএম) এর ডেপুটি ডাইরেক্টর জেনারেল Ugochi Daniels এর নেতৃত্বে একটি প্রতিনিধিদল সাক্ষাৎ করে।

প্রতিমন্ত্রী মিয়ানমারের জোরপূর্বক বাস্তুচ্যুত নাগরিক রোহিঙ্গাদের তাদের নিজ দেশে প্রত্যাবর্তনের উপর গুরুত্বারোপ করেন। তিনি বলেন, রোহিঙ্গা নাগরিকদেরকে যত তাড়াতাড়ি তাদের নিজ দেশে প্রত্যাবর্তন করানো যায় সবার জন্য ততই মঙ্গল। তিনি রোহিঙ্গা শরণার্থীদের নিজ দেশে প্রত্যাবর্তনে মিয়ানমার সরকারের ওপর চাপ সৃষ্টির লক্ষ্যে বিশ্ব জনমত গঠনে এগিয়ে আসতে বিশ্ব নেতৃবৃন্দের প্রতি আহ্বান জানান।

প্রতিমন্ত্রী বলেন, দুর্যোগ মোকাবিলার ক্ষেত্রে প্রায় সম সংখ্যক নারী ও পুরুষের অংশগ্রহণের জন্য এ মন্ত্রণালয় জাতিসংঘ জনসেবা পদক-২০২১ পেয়েছে। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার গতিশীল নেতৃত্বে দেশ এগিয়ে যাচ্ছে।

আইওএম ডেপুটি ডাইরেক্টর জেনারেল বলেন, বাংলাদেশ রোহিঙ্গাদের আশ্রয় দিয়ে মানবিক বিপর্যয় থেকে এসকল নাগরিকদেরকে রক্ষা করেছে। তিনি কক্সবাজারে রোহিঙ্গা ক্যাম্পসমূহের সোলার বৈদ্যুতিক ব্যবস্থা, আবর্জনা ব্যবস্থাপনা, এলপিজি গ্যাস বিতরণ, পানি বিতরণ ব্যবস্থাপনা, ট্রিটমেন্টকৃত বাঁশের ব্যবহার ইত্যাদি বিষয়ে তিনি আলোকপাত করেন এবং এক্ষেত্রে গৃহীত সরকারের কার্যক্রমের প্রশংসা করেন। আইওএম ড্রোন দ্বারা বাংলাদেশের বিভিন্ন এলাকার বন্যা আশ্রয়কেন্দ্রের লোকেশন চিহ্নিতকরণ ও এতদসংক্রান্ত অন্যান্য কাজে সাহায্য করতে আগ্রহ প্রকাশ করে ।

এ সময় মন্ত্রণালয়ের সচিব মোঃ কামরুল হাসান উপস্থিত ছিলেন।

 

প্রথমবার কৃষিক্ষেত্রে গুরুত্বপূর্ণ ব্যক্তি (এআইপি) পাচ্ছেন ১৩ জন

কৃষকদের উৎসাহ ও সম্মান জানাতে এআইপি সরকারের অনন্য উদ্যোগ: কৃষিমন্ত্রী

 

ঢাকা, ১১ শ্রাবণ (২৬ জুলাই) : 

 

কৃষি মন্ত্রণালয় প্রথমবারের মতো ‘কৃষিক্ষেত্রে গুরুত্বপূর্ণ ব্যক্তি (এআইপি)’ সম্মাননা প্রদান করছে। ২০১৯ সালে নীতিমালা প্রণীত হয়েছে। এর ফলে ২০২০ সালে এআইপি পাচ্ছেন ১৩জন। এআইপি সম্মাননা প্রাপ্তগণ সিআইপিদের মতো সুযোগসুবিধা পাবেন।

আজ সচিবালয়ে কৃষি মন্ত্রণালয়ের সম্মেলন কক্ষে কৃষিক্ষেত্রে গুরুত্বপূর্ণ ব্যক্তি (এআইপি) সম্মাননা প্রদান উপলক্ষ্যে সাংবাদিকদের সাথে মতবিনিময়কালে এ তথ্য জানান কৃষিমন্ত্রী ড. মো: আব্দুর রাজ্জাক। এ সময় কৃষিসচিব মো: সায়েদুল ইসলাম এবং মন্ত্রণালয়ের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তাবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।

মন্ত্রী বলেন, জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান স্বাধীনতার পরপরই এদেশের চিরবঞ্চিত, অবহেলিত ও চিরশোষিত কৃষকের উন্নয়নে যুগান্তকারী পদক্ষেপ গ্রহণ করেছিলেন।  কৃষি গবেষণায় মেধাবীদের আকৃষ্ট করতে বঙ্গবন্ধু সরকারি চাকুরিতে কৃষি গ্র্যাজুয়েটদের প্রথম শ্রেণির মর্যাদা প্রদান করে কৃষির আধুনিকায়নে এক অনন্য দৃষ্টান্ত স্থাপন করেন। তাছাড়া, কৃষি এবং কৃষকদের উৎসাহিত করার জন্য বঙ্গবন্ধু ১৯৭৩ সালে ‘বঙ্গবন্ধু পুরস্কার তহবিল’ গঠন করেন। বঙ্গবন্ধুর মতোই প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা কৃষি ও কৃষকবান্ধব। তাই তিনি, কৃষির সাফল্যের অন্যতম কারিগর কৃষক, কৃষিবিজ্ঞানী, উদ্যোক্তা, উৎপাদনকারী, খামারিসহ কৃষির সাথে সম্পৃক্তদেরকে  প্রতিবছর  সম্মাননা জানাতে ও তাদেরকে উৎসাহিত করতে কৃষিক্ষেত্রে গুরুত্বপূর্ণ ব্যক্তি (এআইপি) সম্মাননা প্রদানের সিদ্ধান্ত গ্রহণ করেছেন।

মন্ত্রী বলেন, আগামী দিনের কৃষিকে বাণিজ্যিক ও সম্মানজনক পেশা হিসেবে আরো উন্নীত করতে চাই। কৃষিতে শিক্ষিত, মেধাবী ও সৃজনশীল তরুণদের আকৃষ্ট করতে চাই। সেজন্য, কৃষক, কৃষিবিজ্ঞানী, উদ্যোক্তা, উৎপাদনকারী, বাণিজ্যিক কৃষিখামার স্থাপনকারী, কৃষিপণ্য প্রক্রিয়াজাতকারী ও কৃষি সংগঠকদের উৎসাহ ও সম্মান জানাতে এআইপি সম্মাননা প্রদানের উদ্যোগ নেয়া হয়েছে। এ স্বীকৃতির মাধ্যমে টেকসই কৃষির উন্নয়নে কৃষির সাথে সম্পৃক্ত ব্যক্তি ও প্রতিষ্ঠান উদ্বুদ্ধ হয়ে বাংলাদেশের খাদ্য ও পুষ্টি নিরাপত্তায় আরো বলিষ্ঠ ভূমিকা রাখতে সক্ষম হবে।

মন্ত্রী জানান, এআইপি নীতিমালা অনুযায়ী প্রতিবছর মোট ৫টি বিভাগে সর্বোচ্চ ৪৫জনকে এআইপি সম্মাননা প্রদান করা হবে। এর মধ্যে কৃষি উদ্ভাবন বিভাগে (জাত/প্রযুক্তি) সর্বোচ্চ ১০ জন, কৃষি উৎপাদন/বাণিজ্যিক খামার স্থাপন ও কৃষি প্রক্রিয়াজাতকরণ শিল্প বিভাগে সর্বোচ্চ ১৫ জন, রপ্তানিযোগ্য কৃষিপণ্য উৎপাদন বিভাগে সর্বোচ্চ ১০ জন, স্বীকৃত বা সরকার কর্তৃক রেজিস্ট্রিকৃত কৃষি সংগঠন বিভাগে সর্বোচ্চ ৫ জন এবং বঙ্গবন্ধু কৃষি পুরস্কারে স্বর্ণপদকপ্রাপ্ত বিভাগে সর্বোচ্চ ৫ জন।

এআইপি কার্ডের মেয়াদকাল হচ্ছে ১ বৎসর। এআইপিগণ সিআইপিদের মতো  সুযোগসুবিধা পাবেন। এর মধ্যে রয়েছে  মন্ত্রণালয় হতে একটি প্রশংসাপত্র, সচিবালয়ে প্রবেশের জন্য প্রবেশ পাশ, বিভিন্ন জাতীয় অনুষ্ঠানে নাগরিক সংবর্ধনায় আমন্ত্রণ; বিমান, রেল, সড়ক ও জলপথে ভ্রমণকালীন সরকার পরিচালিত গণপরিবহণে আসন সংরক্ষণ অগ্রাধিকার; ব্যবসা বা দাপ্তরিক কাজে বিদেশে ভ্রমণের জন্য পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় ভিসা প্রাপ্তির নিমিত্ত সংশ্লিষ্ট দূতাবাসকে উদ্দেশ্য করে Letter of Introduction ইস্যু করবে; নিজের ও পরিবারের সদস্যদের চিকিৎসার জন্য সরকারি হাসপাতালের কেবিন সুবিধা প্রাপ্তিতে অগ্রাধিকার পাবেন এবং বিমানবন্দরে ভিআইপি লাউঞ্জ ব্যবহার সুবিধা।

২০২০ সালে কৃষিক্ষেত্রে গুরুত্বপূর্ণ ব্যক্তি (এআইপি) পাচ্ছেন ১৩জন। এরা হলেন কৃষি উদ্ভাবন বিভাগে (জাত/প্রযুক্তি)বাংলাদেশ কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রফেসর  ড. লুৎফুল হাসান (বাউধান-৩ এর জাত উদ্ভাবন), এ আর মালিক সিডসের ব্যবস্থাপনা পরিচালক আতাউস সোপান মালিক (২টি বীজ আলুসহ মোট ১০টি সবজির জাত উদ্ভাবন ও বাজারজাতকরণ), ফিউচার অর্গানিক ফার্মের সৈয়দ আব্দুল মতিন (মেহগনি ফলের বীজ থেকে তেল তৈরি যা জৈব বালাইনাশক প্রস্তুত) আলীম ইন্ডাস্ট্রিস লিমিটেডের আলীমুছ ছাদাত চৌধুরী (আলীম পাওয়ার ট্রিলার উদ্ভাবন)

কৃষি উৎপাদন/বাণিজ্যিক খামার স্থাপন ও কৃষি প্রক্রিয়াজাতকরণ শিল্প বিভাগে ৬ জন ব্যাক্তি এআইপি পাচ্ছেন। এরা হলেন মো. সেলিম রেজা, দৃষ্টান্ত এগ্রো ফার্ম এন্ড নার্সারি, ডাল সড়ক, নাটোর সদর, নাটোর। মো.মেহেদী আহসান উল্লাহ চৌধুরী, চামেশ্বরী, চৌধুরীহাট, ঠাকুরগাঁও। মো. মাহফুজুর রহমান, এশা ইন্টিগ্রেটেড এগ্রিকালচার ফার্ম, ঝালকাঠি সদর, ঝালকাঠি। মো.বদরুল হায়দার বেপারী, প্রোপাইটার, জাগো কেঁচো সার উৎপাদন খামার, চৌঠাইমহল, নাজিরপুর, পিরোজপুর। মো. শাহবাজ হোসেন খান, নুর জাহান গার্ডেন, শৌলা কালাইয়া, বাউফল, পটুয়াখালী। মো. সামছুদ্দিন (কালু), বিছমিল্লাহ মৎস বীজ উৎপাদন কেন্দ্র ও খামার, নাঙ্গলকোট রেলস্টেশন সংলগ্ন, নাঙ্গলকোট, কুমিল্লা।

রেজিস্ট্রিকৃত কৃষি সংগঠন বিভাগে জাহাঙ্গীর আলম শাহ, শাহ্ কৃষি তথ্য পাঠাগার ও জাদুঘর কালীগ্রাম, মান্দা, নওগাঁ।

বঙ্গবন্ধু কৃষি পুরস্কারে স্বর্ণপদকপ্রাপ্ত বিভাগে নির্বাচিত হয়েছেন দুই জন। এরা হলেন-মোছা. নুরুন্নাহার বেগম, নুরুন্নাহার কৃষি খামার, ঈশ্বরদী, পাবনা এবং মো. শাহজাহান আলী বাদশা, মা-মণি কৃষি খামার, ঈশ্বরদী, পাবনা।

আগামীকাল সকাল ১০.০০টায় ওসমানী স্মৃতি মিলনায়তনে আনুষ্ঠানিকভাবে ২০২০ সালের এআইপি পুরস্কার প্রদান করা হবে। ২০২১ সালের এআইপি নির্বাচনের কাজ চলমান আছে।

 

ভবিষ্যত সংকট সামাল দিতে জ্বালানি ও বিদ্যুৎসহ সকল পরিসেবা ব্যবহারে সাশ্রয়ী হতে হবে : বস্ত্র ও পাট মন্ত্রী

 

 

ঢাকা, ১১ শ্রাবণ (২৬ জুলাই) : 

 

বস্ত্র ও পাট মন্ত্রী গোলাম দস্তগীর গাজী, বীরপ্রতীক বলেছেন, ভবিষ্যত সংকট সামাল দিতে জ্বালানি ও বিদ্যুৎসহ সকল পরিসেবা ব্যবহারে সাশ্রয়ী হতে হবে।

আজ মন্ত্রণালয়ের সম্মেলন কক্ষে মাসিক সমন্বয় সভায় মন্ত্রী এসব কথা বলেন । সভায় বস্ত্র ও পাট  মন্ত্রণালয়ের সচিব মো: আব্দুর রউফসহ মন্ত্রণালয়েরে ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তাবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।

মন্ত্রী বলেন, অর্থনৈতিক কর্মকান্ড কোথাও ব্যাহত না করে আমাদের কৃচ্ছতা সাধন করতে হবে। সরকারের লক্ষ্য ভবিষ্যতে যেন কোনো সংকট তৈরি না হয়, সেজন্য সতর্ক হতে হচ্ছে । তিনি বলেন, করোনা মহামারির সময়ে প্রধানমন্ত্রী বস্ত্রখাতসহ সকল ব্যবসায়ীদের মাঝে আর্থিক প্রণোদনা ঘোষণা করেন পাশাপাশি স্বাস্থ্যবিধি মেনে শিল্পপ্রতিষ্ঠান খুলে রাখার পক্ষে সাহসিক সিদ্ধান্ত নেন, ফলে বিশ্বব্যাপী চরম অর্থনৈতিক মন্দার সময়ও দেশের প্রবৃদ্ধি বৃদ্ধি পেয়েছে। অন্যদিকে শ্রীলংকা করোনা মহামারির সময়ে শিল্পকলকারখানাসহ সকল কিছু বন্ধ রেখে আজ দেউলিয়া। করোনা মহামারির সময়ে প্রধানমন্ত্রী’র সঠিক ও সময়োপযোগী সিদ্ধান্তের কারণে দেশ এক মহাবিপর্যয় কাটিয়ে উন্নত বিশ্বের দিকে এগিয়ে যাচ্ছে।

 

যথাযোগ্য মর্যাদা ও ভাবগম্ভীর পরিবেশে ‘জাতীয় শোক দিবস’ পালন করতে হবে

 

বস্ত্র ও পাট মন্ত্রী গোলাম দস্তগীর গাজী, বীরপ্রতীক বলেছেন, স্বাধীনতার মহান স্থপতি জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ৪তম শাহাদত বার্ষিকীতে ‘জাতীয় শোক দিবস’ যথাযোগ্য মর্যাদা ও ভাবগম্ভীর পরিবেশে পালন করতে হবে।

আজ মন্ত্রণালয়ের সভাকক্ষে স্বাধীনতার মহান স্থপতি জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ৪তম শাহাদত বার্ষিকীতে ‘জাতীয় শোক দিবস’ পালনের কর্মসূচি চূড়ান্তকরণের সভায় তিনি এ কথা  বলেন। 

মন্ত্রী বলেন, বঙ্গবন্ধু ও বাংলাদেশ অবিচ্ছেদ্য ইতিহাস। তাই বঙ্গবন্ধুর চিন্তা, আদর্শ ও দর্শন বাংলাদেশের সকলস্তরের মানুষের মধ্যে ছড়িয়ে দিতে হবে।

সভায় স্বাধীনতার মহান স্থপতি জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ৪তম শাহাদতবার্ষিকীতে “জাতীয় শোক দিবস” পালনের জন্য মন্ত্রণালয় ও এর আওতাধীন দপ্তর ও সংস্থার কর্মসূচি চূড়ান্ত করা হয় ।

 

 

সাবেক সংসদ সদস্য আব্বাস আলী মন্ডলের মৃত‍্যুতে পরিবেশমন্ত্রীর শোক

ঢাকা, ১১ শ্রাবণ (২৬ জুলাই) :

সাবেক সংসদ সদস্য এবং জয়পুরহাট জেলা আওয়ামী লীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক ও সভাপতি আব্বাস আলী মন্ডলের মৃত‍্যুতে গভীর শোক ও দুঃখ প্রকাশ করেছেন পরিবেশ, বন ও জলবায়ু পরিবর্তন মন্ত্রী মোঃ শাহাব উদ্দিন।

আজ এক শোকবার্তায় পরিবেশমন্ত্রী জানান, জয়পুরহাট জেলা আওয়ামী লীগের প্রবীণ নেতা আব্বাস আলী মণ্ডল ছিলেন বঙ্গবন্ধুর আদর্শের একজন একনিষ্ঠ অনুসারী। তিনি ১৯৭৫ পরবর্তীতে সুদীর্ঘকাল জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও আহবায়কের দায়িত্ব পালন করেন। তিনি তৃতীয় জাতীয় সংসদ নির্বাচনে জয়পুরহাট-১ আসন থেকে সংসদ সদস্য নির্বাচিত হয়েছিলেন।

মন্ত্রী আব্বাস আলী মন্ডলের রুহের মাগফেরাত কামনা করেন এবং তাঁর শোকসন্তপ্ত পরিবারের সদস‍্যদের প্রতি গভীর সমবেদনা জানান।

 

সরকারি শিশু পরিবারে এতিম মেয়েদের বেড়ে উঠার সকল সুযোগ সুবিধা নিশ্চিত করছে সরকার : সমাজকল্যাণ মন্ত্রী

 

ঢাকা, ১১ শ্রাবণ (২৬ জুলাই) :  

 

সমাজকল্যাণ মন্ত্রী নুরুজ্জামান আহমেদ বলেছেন, সরকার সরকারি শিশু পরিবারে এতিম মেয়েদের পড়াশোনার ব্যবস্থা করেছে। তাদের স্বাভাবিক পরিবেশে বেড়ে উঠার জন্য সকল সুবিধা নিশ্চিত করা হচ্ছে।

গতকাল রাজধানীর তেজগাঁওয়ে সরকারি শিশু পরিবার (বালিকা) এর ছয় জন কন্যার শুভ বিবাহ উপলক্ষ্যে আয়োজিত অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তৃতায় মন্ত্রী এসব কথা বলেন।

ঢাকার জেলা প্রশাসক মোঃ শহীদুল ইসলামের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন সমাজকল্যাণ প্রতিমন্ত্রী মোঃ আশরাফ আলী খান খসরু ও সমাজসেবা অধিদফতরের মহাপরিচালক শেখ রফিকুল ইসলাম।

মন্ত্রী বলেন, সমাজসেবা অধিদফতর পরিচালিত সরকারি শিশু পরিবারে এই ছয় নিবাসী মেয়েদের পড়াশোনা শেষে বিয়ের ব্যবস্থা করা হয়েছে। আজকে যে মেয়েদের বিবাহের অনুষ্ঠান হয়েছে তারা কেউ এতিম নয় সবাই আমাদের সন্তান।

বিশেষ অতিথির বক্তব্যে সমাজকল্যাণ প্রতিমন্ত্রী বলেন, শিশু পরিবার নিবাসীরা পারিবারিক পরিবেশে বেড়ে উঠে। পড়াশোনার পাশাপাশি স্বাবলম্বী করার জন্য তাদের কর্মমুখী প্রশিক্ষণ প্রদান করা হচ্ছে।

উল্লেখ্য, তেজগাঁও সরকারি শিশু পরিবারে (বালিকা) ১৬৫ জন নিবাসী আছে। এ প্রতিষ্ঠান থেকে এ পর্যন্ত ১ হাজার ১৭২ জনকে পুনর্বাসনের ব্যবস্থা করা হয়েছে।

RELATED ARTICLES

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

Most Popular