পিছিয়ে যাওয়ার ইঙ্গিত তুরস্কের, বেকায়দায় পড়তে পারে ইউক্রেন

পিছিয়ে যাওয়ার ইঙ্গিত তুরস্কের, বেকায়দায় পড়তে পারে ইউক্রেন

রাশিয়ার বিশাল যুদ্ধাজাহাজ মস্কভা গত ১৪ এপ্রিল কৃষ্ণ সাগরে ডুবে যায়।

জানা গেছে এ হামলায় তুরস্কের তৈরি বায়রাকতার টিবি-২ ড্রোন ব্যবহার করে ইউক্রেন।

তাছাড়া কৃষ্ণ সাগরে রাশিয়ার আরেকটি ছোট উদ্ধারকারী জাহাজ ডুবিয়ে দিতেও ব্যবহার করা হয় বায়রাকতার ড্রোন।

তুরস্কের তৈরি এ ড্রোন দিয়ে ইউক্রেনীয় বাহিনীর সাফল্য পাওয়ার খবর ফলাও করে প্রচার হয়।

এর ফলে ইউক্রেনকে একটি বায়রাকতার ড্রোন দেওয়ার জন্য লিথুয়ানিয়ার সাধারণ জনগণ টাকা তুলে। যদিও পরবর্তীতে লিথুয়ানিয়াকে বিনামূল্যে ড্রোন দেওয়ার কথা জানায় বায়রাকতারের প্রস্তুতকারী প্রতিষ্ঠান।

তবে রাশিয়ার বিরুদ্ধে হয়ত এই বায়রাকতার ড্রোন আর বেশিদিন ব্যবহার করতে পারবে না ইউক্রেন।

কারণ ইউক্রেনকে নতুন করে আর এ ড্রোন না দেওয়ার ইঙ্গিত দিয়েছে তুরস্কের প্রতিরক্ষা ইন্ডাস্ট্রি এজেন্সি। যুক্তরাষ্ট্রের গণমাধ্যম ওয়ালস্ট্রিট জার্নাল জানিয়েছে এ তথ্য।

তুরস্কের প্রতিরক্ষা ইন্ডাস্ট্রি এজেন্সির প্রেসিডেন্ট ইসমাইল দেমির ওয়ালস্ট্রিট জার্নালকে বলেছেন, আমি মনে করি তুরস্ক একমাত্র দেশ যেটি দুই দেশকে আহ্বান জানাতে পারে এবং শান্তি আলোচনার টেবিলে আনতে পারে।

তিনি আরও বলেন, আপনি এটি কিভাবে করবেন যদি একপক্ষকে আপনি লাখ লাখ অস্ত্র দেন?

তুরস্কের প্রতিরক্ষা এজেন্সির প্রেসিডেন্ট আরও বলেন, দুই পক্ষের সঙ্গেই আলোচনা করার দরজা খোলা রাখতে হবে আমাদের। বিশ্বাস অর্জনের জন্য দুইপক্ষেরই কাছে যেতে পারে এমন একজন থাকতে হবে। আমাদের লক্ষ্য হলো- শান্তি বজায় থাকবে সেটি নিশ্চিত করা।

তাহলে কি ইউক্রেনে বায়রাকতার ড্রোন পাঠানো বন্ধ করে দেবেন? এমন প্রশ্নের জবাবে প্রেসিডেন্ট ইসমাইল বলেন, এখনো কিছু বিষয় চলছে। এখন মন্তব্য করার মতো পর্যায়ে নেই আমি। তবে আমরা অনেক বেশি সতর্ক।

সূত্র: আল আরাবিয়া

সর্বশেষ