Saturday, October 1, 2022
Homeজাতীয়১৭ জুন এক নজরে বাংলাদেশ

১৭ জুন এক নজরে বাংলাদেশ

১৭ জুন এক নজরে বাংলাদেশ

 

ঢাকা ১৮ জুন ২০২২ :

 

সিলেটে বন্যায় ক্ষতিগ্রস্ত এলাকা পরিদর্শন করলেন প্রবাসী কল্যাণ মন্ত্রী

 

সিলেট, ৩ আষাঢ় (১৭ জুন) :

 

প্রবাসী কল্যাণ ও বৈদেশিক কর্মসংস্থান মন্ত্রী ইমরান আহমদ বানভাসি ও বন্যায় ক্ষতিগ্রস্তদের উদ্দেশে বলেছেন, ‘আপনারা কোনো চিন্তা করবেন না। সরকার সবসময় আপনাদের পাশে রয়েছে। আপনাদের জন্য পর্যাপ্ত পরিমাণে ত্রাণ সামগ্রীর ব্যবস্থা করছে সরকার। ইনশাআল্লাহ ত্রাণের কোনো অভাব হবে না।’

 

মন্ত্রী আজ কোম্পানিগঞ্জের বর্ণি এলাকায় বন্যাকবলিত এলাকা পরিদর্শন, বন্যা পরিস্থিতি পর্যবেক্ষণ এবং স্থানীয়দের সাথে মতবিনিময়কালে এসব কথা বলেন। এ সময় তিনি বিত্তশালীদের বন্যার্ত মানুষের পাশে দাঁড়ানোর আহ্বান জানান।

 

এ সময় বানভাসি মানুষের উদ্দেশে মন্ত্রী আরো বলেন, বন্যাকবলিত মানুষকে উদ্ধারের জন্য ইতোমধ্যে সেনাবাহিনী কাজ শুরু করেছে। আগামীকাল থেকে আরো সরকারি সংস্থাগুলো অংশগ্রহণ করবে। সরকারি সংস্থার পাশাপাশি আওয়ামী লীগ ও এর অঙ্গ সংগঠনের নেতাকর্মীরাও বন্যার্তদের পাশে দাঁড়িয়েছে বলে তিনি জানান। তিনি বলেন, বন্যার কারণে সরকার এসএসসি পরীক্ষা স্থগিত করেছে।

 

উল্লেখ্য, মন্ত্রী আজ সকালে সিলেটের বন্যার্ত মানুষের পাশে থাকার জন্য বান্দরবানে প্রবাসী কল্যাণ ব্যাংকের পূর্ব নির্ধারিত প্রোগ্রাম বাতিল করে সিলেটের যাওয়ার সিদ্ধান্ত নেন। সিলেটে বিমান চলাচল বন্ধ থাকায় তিনি সড়ক পথে সন্ধ্যায় সিলেটে পৌঁছেই কোম্পানিগঞ্জের বর্ণি এলাকায় বন্যা পরিস্থিতি পর্যবেক্ষণ করেন এবং স্থানীয়দের সাথে কথা বলেন।

 

 

শিক্ষায় ডিজিটাল রূপান্তরের চেয়ে ভাল কাজ হতে পারে না : টেলিযোগাযোগ মন্ত্রী

 

ঢাকা, ৩ আষাঢ় (১৭ জুন) :

 

শিক্ষায় ডিজিটাল রূপান্তরের অভিযাত্রায় আরো ৫০টি শ্রেণিকক্ষ সংযুক্ত হলো। বাংলাদেশ সাবমেরিন ক্যাবল কোম্পানি লিমিটেড (বিএসসিসিএল) এর কর্পোরেট সোশ্যাল রেসপনসিবিলিটি তহবিল থেকে ঢাকা ও ঢাকার বাইরে ১১টি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের পঞ্চাশটি শ্রেণিকক্ষ ডিজিটাইজ করার লক্ষ্যে প্রতিটি শ্রেণিকক্ষের জন্য একটি করে মাল্টিমিডিয়া এনড্রয়েড টিভি, একটি করে ট্যাব ও ডিজিটাল কন্টেন্ট প্রদান করা হয়েছে।

 

আজ ঢাকায় টেলিযোগাযোগ অধিদপ্তরের সম্মেলন কক্ষে বিএসসিসিএল-এর উদ্যোগে এবং টেলিযোগাযোগ অধিদপ্তর ও টেলিফোন শিল্প সংস্থার সহযোগিতায় সংশ্লিষ্ট প্রাথমিক বিদ্যালয়সমূহের ২২ জন শিক্ষকের দিনব্যাপী প্রশিক্ষণের সমাপণী অনুষ্ঠানে ডাক ও টেলিযোগাযোগ মন্ত্রী মোস্তাফা জব্বার উপস্থিত ছিলেন।

 

অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তৃতায় মন্ত্রী বলেন, শিক্ষায় ডিজিটাল রূপান্তরের চেয়ে ভাল কাজ হতে পারে না। আমাদের পাঠ্যবইকে ডিজিটাল উপাত্তে রূপান্তর করা একটি বড় চ্যালেঞ্জ ছিলো। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ডিজিটাল বাংলাদেশ কর্মসূচি বাস্তবায়নের ধারাবাহিকতায় ২০০৯ সাল থেকে গত তের বছরে হাটি হাটি পা পা করে পঞ্চম শ্রেণি পর্যন্ত পাঠ্যক্রম ডিজিটালে রূপান্তরে সক্ষম হয়েছি। বিশ্বে এ ধরনের ডিজিটাল উপাত্ত তৈরি করা এটাই প্রথম ও এখন পর্যন্ত একমাত্র।

 

মন্ত্রী বলেন, আগামী সভ্যতা গড়ে উঠবে ডিজিটাল সংযুক্তির উপর। প্রচলিত শিক্ষা ডিজিটাল শিক্ষায় রূপান্তর না হলে কঠিন চ্যালেঞ্জ আমাদেরকে মোকাবিলা করতে হবে। তিনি বলেন, সামনে রোবোটিক্স, আইওটি, বিগডেটা, ব্লকচেইন ইত্যাদি নতুন প্রযুক্তি প্রসারের ফলে আগামী দিনগুলোতে প্রচলিত ধারার শিক্ষায় কর্মসংস্থানের চ্যালেঞ্জ আরো বাড়বে। তাই প্রযুক্তির বৈশ্বিক চ্যালেঞ্জ মোকাবিলায় শিক্ষার ডিজিটাল রূপান্তর অপরিহার্য।

 

বিএসসিসিএল-এর ব্যবস্থাপনা পরিচালক একেএম হাবিবুর রহমানের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে ডিজিটাল কনটেন্ট বিষয়ক মূল প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন বিজয় ডিজিটাল-এর সিইও জেসমিন জুই। অনুষ্ঠানে  টেলিযোগাযোগ অধিদপ্তরের মহাপরিচালক মশিউর রহমান, ডাক ও টেলিযোগাযোগ বিভাগের যুগ্মসচিব রাশেদা ফেরদৌস এবং প্রশিক্ষণার্থীদের পক্ষে টিএন্ডটি স্কুলের শিক্ষক আবদুল্লাহ আল মামুন বক্তৃতা করেন। টেশিসের ব্যবস্থাপনা পরিচালক আহসান হাবিব তফাদার এ সময় উপস্থিত ছিলেন।

 

পরে মন্ত্রী প্রশিক্ষণার্থীদের মধ্যে সনদ বিতরণ করেন।

 

পদ্মা সেতু জাতির ইতিহাসে মাইলফলক হয়ে থাকবে : কৃষিমন্ত্রী

 

টাঙ্গাইল, ৩ আষাঢ় ( ১৭ জুন) :

কৃষিমন্ত্রী ও আওয়ামী লীগের প্রেসিডিয়াম সদস্য ড. মোঃ আব্দুর রাজ্জাক বলেছেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে বর্তমান সরকারের আমলে কৃষি, যোগাযোগ ব্যবস্থা, বাণিজ্য, বিদ্যুৎ, স্বাস্থ্য, শিক্ষা, আইসিটিসহ প্রতিটি খাতে অভাবনীয় উন্নতি সাধিত হয়েছে। যা সারা পৃথিবীতে প্রশংসিত ও নন্দিত হচ্ছে। তবে সকল উন্নয়নের মধ্যে স্বাধীনতার পরে যে অর্জনটি সবচেয়ে বড় ও লক্ষণীয়-তাহলো পদ্মা সেতু। সকল দিক বিবেচনায় উন্নয়নের ক্ষেত্রে স্বাধীনতার পর জাতির শ্রেষ্ঠ অর্জন এটি। পদ্মা সেতু জাতির ইতিহাসে মাইলফলক হয়ে থাকবে। একইসাথে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নামও চিরস্মরণীয় হয়ে থাকবে।

আজ টাঙ্গাইল শহরের শহীদ স্মৃতি পৌর উদ্যানে আয়োজিত এক স্মরণসভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে কৃষিমন্ত্রী এসব কথা বলেন। টাঙ্গাইলের কৃতি সন্তান, ভাষা সৈনিক, মুক্তিযুদ্ধের অন্যতম সংগঠক, বঙ্গবন্ধুর সহচর মির্জা তোফাজ্জল হোসেন মুকুলের একুশে পদক (মরণোত্তর) প্রাপ্তিতে টাঙ্গাইল জেলা আওয়ামী লীগ এ স্মরণসভার আয়োজন করে।

এ সময় মন্ত্রী বলেন, পদ্মা সেতু জাতির স্বপ্নের সেতু, গর্বের সেতু, অহংকারের সেতু। ২৫ তারিখে এটির উদ্বোধন হবে, সেদিন সমগ্র জাতি আনন্দে মেতে উঠবে। এ মহোৎসবকে কেউ যদি ষড়যন্ত্র করে বানচাল করতে চায়, তাদেরকে কঠোরভাবে মোকাবিলা করা হবে। কোনো অপশক্তিই পদ্মা সেতুর উদ্বোধনের আনন্দকে ব্যাহত করতে পারবে না।

পদ্মা সেতু দক্ষিণাঞ্চলের কৃষিতেও বৈপ্লবিক পরিবর্তন আনবে উল্লেখ করে কৃষিমন্ত্রী বলেন, যশোরের
ফুল, সাতক্ষীরার আমসহ দক্ষিণাঞ্চলে উৎপাদিত শাকসবজি, ফলমূল সহজেই ঢাকা আসতে পারবে। ঐসব অঞ্চলে কৃষি প্রক্রিয়াজাতকরণ প্রতিষ্ঠান গড়ে উঠবে। এর ফলে স্থানীয় পর্যায়ে বাজার তৈরির পাশাপাশি বিদেশেও রপ্তানি হবে।

কুমিল্লা সিটি কর্পোরেশন নির্বাচন নিয়ে সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে মন্ত্রী বলেন, বর্তমান নির্বাচন কমিশন সুন্দর ও সুষ্ঠু নির্বাচন পরিচালনায় খুবই সক্ষম। কুমিল্লা সিটি কর্পোরেশন নির্বাচন সুন্দর ও সুষ্ঠু হয়েছে। শুধু হার-জিত দেখলে হবে না। দুই প্রার্থীর মধ্যে হাড্ডাহাড্ডি লড়াই হয়েছে, অল্প ভোটের ব্যবধানে আওয়ামী লীগের প্রার্থী জিতেছে-এদিকগুলোও বিবেচনা করতে হবে। সব মিলিয়ে নির্বাচন সুন্দর হয়েছে।

স্মরণসভায় টাঙ্গাইল জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি ফজলুর রহমান খান ফারুকের সভাপতিত্বে আওয়ামী লীগের প্রেসিডিয়াম সদস্য জাহাঙ্গীর কবির নানক, প্রেসিডিয়াম সদস্য আব্দুর রহমান, জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক জোয়াহেরুল ইসলাম এমপি, মো. ছানোয়ার হোসেন এমপি, পৌর মেয়র সিরাজুল হক আলমগীর প্রমুখ বক্তব্য রাখেন।

 

‍বন্যায় ক্ষতিগ্রস্তদের জন্য ২৬ হাজার শুকনো খাবারের প্যাকেটসহ নগদ অর্থ বরাদ্দ

 

ঢাকা, ৩ আষাঢ় (১৭ জুন) :

 

দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা ও ত্রাণ মন্ত্রণালয় থেকে দেশের বিভিন্ন অঞ্চলে বন্যাসহ বিভিন্ন প্রাকৃতিক দুর্যোগে ক্ষতিগ্রস্তদের সাহায্যার্থে মানবিক সহায়তা হিসেবে বিতরণের লক্ষ্যে ২৬ হাজার শুকনো ও অন্যান্য খাবারের প্যাকেট বরাদ্দ দেয়া হয়েছে। প্রতিটি প্যাকেটে চাল-ডাল-তেল-লবণ ও চিনিসহ যে খাদ্যসামগ্রী রয়েছে তা পাঁচ সদস্যের একটি পরিবারের এক সপ্তাহ চলবে বলে আশা করা যায় । একই সাথে বন্যার্তদের জন্য মানবিক সহায়তা হিসেবে নগদ টাকা এবং চালও বরাদ্দ প্রদান করা হয়েছে । গতকাল দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা ও ত্রাণ মন্ত্রণালয় থেকে এ বরাদ্দ প্রদান করা হয়।

 

বন্যায় ক্ষতিগ্রস্ত সিলেট জেলার অনুকূলে দুইশত মেট্রিক টন চাল, ৩০ লাখ নগদ টাকা এবং ৮ হাজার শুকনো ও অন্যান্য খাবারের প্যাকেট; সুনামগঞ্জ জেলার জন্য নগদ ৩০ লাখ টাকা এবং ৮ হাজার শুকনো ও অন্যান্য খাবারের প্যাকেট; নেত্রকোনা জেলার জন্য একশত মেট্রিক টন চাল, ১০ লাখ নগদ টাকা এবং ৩ হাজার শুকনো ও অন্যান্য খাবার প্যাকেট বরাদ্দ দেয়া হয়েছে।

 

এছাড়া কুড়িগ্রাম জেলার জন্য নগদ দশ লাখ টাকা এবং ১ হাজার শুকনো ও অন্যান্য খাবারের প্যাকেট; রংপুর জেলার জন্য ৩ হাজার শুকনো ও অন্যান্য খাবারের প্যাকেট এবং নীলফামারী জেলার জন্য ৩ হাজার শুকনো ও অন্যান্য খাবারের প্যাকেট বরাদ্দ দেওয়া হয়েছে ।

 

 

পদ্মা সেতুর উদ্বোধন হবে স্মরণকালের সেরা উৎসব : এনামুল হক শামীম

 

ঢাকা, ৩ আষাঢ় ( ১৭ জুন) :

 

পানি সম্পদ উপমন্ত্রী এনামুল হক শামীম বলেছেন, পদ্মা সেতুর উদ্বোধনী অনুষ্ঠান হবে স্মরণকালের সেরা উৎসব। নিজস্ব অর্থায়নে নির্মিত পদ্মা সেতু উদ্বোধনের অপেক্ষায়। সেতুর উদ্বোধন নিয়েও ষড়যন্ত্র শুরু হয়েছে। কিন্তু কোনো লাভ হবে না। দেশের ইতিহাসে স্মরণকালের সেরা ও ঐতিহাসিক উৎসব হবে পদ্মার পাড়ে।

আজ ঢাকা রিপোর্টার্স ইউনিটির নসরুল হামিদ মিলনায়তনে শরীয়তপুর সাংবাদিক সমিতি, ঢাকা এর নতুন নেতৃত্বের অভিষেক ও ‘স্বপ্নের পদ্মা সেতু: সমৃদ্ধির পথে শরীয়তপুরসহ দক্ষিণাঞ্চল’ শীর্ষক আলোচনা সভায় উপমন্ত্রী প্রধান অতিথির বক্তৃতায় এসব কথা বলেন।

এনামুল হক শামীম বলেন, ২০০১ সালে তৎকালীন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা পদ্মা সেতুর উদ্বোধন করেছিলেন। বিএনপি ক্ষমতায় এলে তা বন্ধ হয়ে যায়। পরে ২০০৯ সালে আওয়ামী লীগ ক্ষমতায় আসার পর পদ্মা সেতু নির্মাণ অগ্রাধিকার তালিকায় রাখেন বঙ্গবন্ধুকন্যা শেখ হাসিনা। সে সময় বিশ্বব্যাংক একটি মিথ্যা অজুহাত দিয়ে অপবাদ দেওয়ার চেষ্টা করেছিল। এরপর প্রধানমন্ত্রী চ্যালেঞ্জ করেছিলেন, ন্যূনতম দুর্নীতি হয়নি। কানাডার আদালতে দুর্নীতির কোনো প্রমাণ হয়নি। নিজস্ব অর্থায়নে পদ্মা সেতুর ঘোষণা সবার আশঙ্কা উড়িয়ে দিয়ে বঙ্গবন্ধুকন্যা পদ্মা সেতু বাস্তবায়ন করেন।

উপমন্ত্রী বলেন, বিএনপি নেতা মির্জা ফখরুল ইসলাম বলেছেন, খালেদা জিয়া নাকি পদ্মা সেতুর কাজ শুরু করেছিলেন। ডাহা মিথ্যা। বিএনপির জন্মই মিথ্যার ওপর। মিথ্যা বলাটাই তাদের স্বভাবে পরিণত হয়েছে। আগামী নির্বাচনেও দেশের মানুষ আওয়ামী লীগ সভানেত্রী বঙ্গবন্ধুকন্যা শেখ হাসিনাকে প্রধানমন্ত্রী নির্বাচিত করবে।

শরীয়তপুরের বিভিন্ন উন্নয়ন তুলে ধরে উপমন্ত্রী  বলেন, পদ্মার ভাঙন থেকে শরীয়তপুরবাসীকে রক্ষার জন্য কাজ করা হয়েছে। বর্তমান সরকারের আমলে কৃষি বিশ্ববিদ্যালয় করা হয়েছে। জুলাই মাসে ক্যাবিনেটে শেখ হাসিনা কৃষি বিশ্ববিদ্যালয় উপস্থাপন করা হবে। আশা করি ডিসেম্বরেই প্রধানমন্ত্রী উদ্বোধন করবেন।

শরীয়তপুর সাংবাদিক সমিতি সভাপতি বেনজির আহমেদের সভাপতিত্বে এবং সাধারণ সম্পাদক আসাদুজ্জামান আজমের পরিচালনায় বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন সংসদ সদস্য নাহিম রাজ্জাক, বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরি কমিশনের সাবেক চেয়ারম্যান  নগরবিদ ও শরীয়তপুর জেলা শিক্ষা ট্রাস্টের সভাপতি প্রফেসর নজরুল ইসলাম, বিটিআরসির চেয়ারম্যান শ্যাম সুন্দর সিকদার, স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের জননিরাপত্তা বিভাগের সিনিয়র সচিব আখতার হোসেন, জাতীয় প্রেসক্লাবের সাবেক সভাপতি ও দৈনিক যুগান্তরের সম্পাদক সাইফুল আলম এবং ঢাকা সাংবাদিক ইউনিয়নের সহ-সভাপতি মানিক লাল ঘোষ।

 

আগামীর দিন ডিজিটাল যুগের : টেলিযোগাযোগ মন্ত্রী

 

ঢাকা, ৩ আষাঢ় ( ১৭ জুন) :

 

ডাক ও টেলিযোগাযোগ মন্ত্রী মোস্তাফা জব্বার বলেছেন,  আগামীর দিন হবে ডিজিটাল যুগের। ৪র্থ শিল্পবিপ্লব যুগের অবসান হওয়ায় নতুন প্রজন্মের জন্য ডিজিটাল শিক্ষা অপরিহার্য। বাংলাদেশের ছেলে-মেয়েদের তৈরি করা সফটওয়্যার ব্যাংক ও আর্থিক প্রতিষ্ঠানসহ প্রায় সবক্ষেত্রে ব্যবহৃত হচ্ছে। ৮০ দেশে সরকার সফটওয়্যার রপ্তানি করছে।

মন্ত্রী গতকাল ঢাকায় হোটেল ইন্টারকন্টিনেন্টালে  কানাডিয়ান ইন্টারন্যাশনাল স্কুল, বাংলাদেশ এর সমাবর্তন অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তৃতায় এসব কথা বলেন।

শিক্ষার্থীরা এখন ইন্টারনেট সভ্যতার যুগ অতিক্রম করছে উল্লেখ করে মন্ত্রী বলেন, পৃথিবীতে ডিজিটাল বিপ্লবের পথ প্রদর্শক হিসেবে বাংলাদেশ  অনুকরণীয়। ডিজিটাইজেশনের ফলে অভাবনীয় অগ্রগতি অর্জনের মাধ্যমে উন্নত দেশ হিসেবে প্রতিষ্ঠিত হবার দ্বারপ্রান্তে বাংলাদেশ উপনীত হয়েছে। তিনি বলেন, বিশ্বের অনেক উন্নত দেশ তাদের জনসম্পদের ঘাটতি মিটাতে রোবট, কৃত্রিমবুদ্ধিমত্তা কিংবা আইওটি প্রযুক্তিকে অবলম্বন হিসেবে মনে করেছে। ফলে তারা ডিজিটাল যান্ত্রিক সভ্যতার দিকে ঝুঁকছে। কিন্তু প্রযুক্তির কারণে বাংলাদেশের জনশক্তিকে কখনো চ্যালেঞ্জের মুখে দাঁড় করানো যায় না। সরকার প্রযুক্তিকে কোন অবস্থাতেই মানুষের বিকল্প হিসেবে দেখতে চায় না। উন্নত দেশে রোবট কিংবা ডিজিটাল যন্ত্র রপ্তানি করতে এখনই প্রস্তুতি নিতে হবে।

সংসদ সদস্য শিরিন আক্তার, কানাডা-বাংলাদেশ চেম্বার অব কমার্স এন্ড ইন্ডাস্ট্রির সভাপতি  মাসুদ রহমান এবং  কানাডিয়ান ইন্টারন্যাশনাল স্কুল, বাংলাদেশ এর অধ্যক্ষ জেনিস স্মেলস অনুষ্ঠানে বক্তৃতা করেন।

 

 

সিলেটে বন্যার অবনতিতে বিদ্যুৎ সরবরাহে বিঘ্ন ঘটায় বিদ্যুৎ প্রতিমন্ত্রীর দুঃখ প্রকাশ

 

ঢাকা, ৩ আষাঢ় (১৭ জুন) :

 

ছাতক ও সুনামগঞ্জ গ্রিড উপকেন্দ্র পাহাড়ী ঢলে প্লাবিত হওয়ায় দুর্ঘটনা এড়াতে বিদ্যুৎ সরবরাহ বন্ধ করা হয়েছে। সুনামগঞ্জ জেলা ও সংলগ্ন এলাকায় বিদ্যুৎ বিচ্ছিন্ন রয়েছে।

সিলেটের কুমারগাঁও গ্রিড উপকেন্দ্রের সুইচইয়ার্ড প্লাবিত হওয়ায় সিলেট অঞ্চলও বিদ্যুৎ বন্ধের ঝুঁকিতে রয়েছে।

বিদ্যুৎ, জ্বালানি ও খনিজ সম্পদ প্রতিমন্ত্রী নসরুল হামিদ সাময়িক এই অসুবিধার জন্য দুঃখ প্রকাশ করে সিলেট অঞ্চলের বিদ্যুৎ গ্রাহকদের ধৈর্য ধরার অনুরোধ করেন। তিনি বলেন, বন্যা পরিস্থিতির উন্নতি হওয়ামাত্র পুনরায় বিদ্যুৎ সরবরাহ করা হবে। পরিস্থিতি পর্যবেক্ষণের জন্য মনিটরিং টিম গঠন করা হয়েছে।

 

নিউইয়র্কে আন্তর্জাতিক ফ্যামিলি রেমিট্যান্স দিবস পালিত

নিউইয়র্ক, ১৭ জুন :  

আন্তর্জাতিক ফ্যামিলি রেমিট্যান্স দিবস উপলক্ষ্যে যুক্তরাষ্ট্রের নিউইয়র্কে বাংলাদেশ কনস্যুলেট জেনারেল, ‘রেমিট্যান্স এবং উন্নয়ন’ শীর্ষক এক আলোচনা অনুষ্ঠানের আয়োজন করে। যুক্তরাষ্ট্রে নিযুক্ত বাংলাদেশের রাষ্ট্রদূত মোঃ সহিদুল ইসলাম অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন।

অনুষ্ঠানে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার বিচক্ষণ ও  দূরদর্শী নেতৃত্বে বাংলাদেশের আর্থ-সামাজিক ক্ষেত্রে অভূতপূর্ব উন্নয়ন তুলে ধরে রাষ্ট্রদূত মোঃ সহিদুল ইসলাম বলেন, ২৫ জুন পদ্মা সেতু উদ্বোধনের মধ্য দিয়ে বাংলাদেশের অর্থনীতিতে এক নতুন গতি সঞ্চার হবে। বাংলাদেশ সরকারের  প্রবাসীবান্ধব নীতি ও পদক্ষেপের বর্ণনা করে তিনি প্রবাসীদেরকে বৈধপথে দেশে আরো রেমিট্যান্স পাঠানোর অনুরোধ করেন। বাংলাদেশ-যুক্তরাষ্ট্রের দ্বিপাক্ষিক সম্পর্কের ক্ষেত্রে পিপল টু পিপল রিলেশনকে একটি গুরুত্বপূর্ণ নিয়ামক হিসেবে অভিহিত করেন। তিনি দু’দেশের মধ্যকার সহযোগিতাকে গভীর ও শক্তিশালীকরণে প্রবাসী বাংলাদেশিদের ভূমিকার প্রশংসা করেন।

অনুষ্ঠানে কনসাল জেনারেল ড. মোহাম্মদ মনিরুল ইসলাম বক্তব্য রাখেন এবং মূলপ্রবন্ধ উপস্থাপন করেন নিউইয়র্কে সোনালী।

RELATED ARTICLES

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

Most Popular