ঝড় তুফান কিছুই নেই তবুও কলাগাছ গুলো মাটিতে সাড়িবদ্ধভাবে পড়ে আছে

সাইফুর নিশাদ, নরসিংদী প্রতিনিধিঃ

নরসিংদির মনোহরদী উপজেলার খিদিরপুর ইউনিয়নের মনতলা গ্রামের  ১ নং ওয়ার্ডের তারা খলিফার ২নং ওয়ার্ডে অবস্থিত কলা খেতে গতকাল  রাতে কে বা কারা রাতে হামলা চালিয়ে ব্যাপক ক্ষয় ক্ষতি করে।

ঝড় তুফান কিছুই নেই তবুও কলা গাছ গুলো কলা(ছড়ি) সহ রাস্থায় সাড়িবদ্ধভাবে পড়ে আছে।

এলাকাবাসীর অভিযোগ সম্প্রতি খিদিরপুর ইউনিয়নের পশ্চিম রামপুরে চলমান আফসার উদ্দিন খেতাশাহর মেলায় রাতে অনুষ্ঠিত গান থেকে বাড়ি ফেরার পথে এ কাজ হয়েছে বলে ধারনা করেন। কেননা রাতে কিছু যুবকের গলাফাটা আওয়াজ ও দৌড়াদৌড়ির আওয়াজ শুনা যায়।

পথিমধ্যে ঘটনাটি প্রত্যক্ষ করতে উৎসুক জনতার ভীড়। সেখানে লোকজন ধারণা করে বলেন, সম্প্রতি কিশোরগঞ্জের মশুয়া ইউনিয়ন থেকে যারা মেলার গানে এসেছিলেন তারাই এই কাজটি করেছে বলে ধারনা করেন। কেননা সম্প্রতি দুই পাড়ের মধ্যে ঘটে যাওয়া মারামারির ঘটনার জেড় ধরে নদীর এপারের (খিদিরপুর ইউনিয়ন) এর ক্ষতি সাধন করেছে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে।

 

এ ব্যাপারে তারা খলিফার সহধর্মিণী জানান, আমার সাথে কারোরই কোন ধরনের শত্রুতা কিংবা মন মালিন্য নেই যার কারনে আমার ক্ষতি করবে কেউ।

সকালে এমন খবর পেয়ে তাজ্জব বনে গেলেন তিনি,

স্ব শরীরে সেখানে উপস্থিত হয়ে নিস্তব্ধ হয়ে যান। কলাক্ষেতের চাষাবাদ থেকে শুরু করে পরিচর্যা বাবদ বহু টাকা ব্যয়। আর কিছুদিন পরেই কলাগুলো বিক্রি করে কস্টের প্রতিদান পেতেন। কিন্তু এর আগেই জল ঢেলে দিলো।

রাস্তা দিয়ে যাতায়াতের মাধ্যম সি এন জি, অটো রিক্সা কিংবা হোন্ডা আরোহীরা মন্তব্য করেন মেলার আয়োজন হলেই এমন ঘটনা ঘটে। তারা ইউনিয়নের চেয়ারম্যান ও প্রশাসনের সহায়তা কামনা করেন। কেননা শত্রুতার জেরে নিরীহ, গরীব,অস্বচ্ছল কৃষকেরা এর ভুক্তভোগী হবেন কেন??

এ ব্যাপারে ইউনিয়ন চেয়ারম্যান এর কাছে অভিযোগ দেওয়ার চেষ্ঠা করলে মোবাইল ফোন বন্ধ পাওয়া যায়। তখন ঘটনাস্থলের দায়িত্বরত ২নং ওয়ার্ডের ইউপি সদস্য শফিকুল ইসলামের সাথে যোগাযোগ করলে তিনি জানান রাতে রাতে মেলা থেকে ফেরার পথেই এ কাজ হয়েছে বলে জানান।

তিনি ঘটনাটি সম্পর্কে অপরাধীদের শনাক্ত করতে প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ নিবেন বলে জানান।

 

সর্বশেষ