এমপি রাজ্জাকের বিরুদ্ধে আচরণবিধি লঙ্ঘন করে ইউপি নির্বাচনে ভোট চাওয়ার অভিযোগ!

এমপি রাজ্জাকের বিরুদ্ধে আচরণবিধি লঙ্ঘন করে ইউপি নির্বাচনে ভোট চাওয়ার অভিযোগ!

শরীয়তপুর প্রতিনিধি: চতুর্থ ধাপে ইউনিয়ন পরিষদ (ইউপি) নির্বাচনের আচরণবিধি লঙ্ঘন করে শরীয়তপুরের ডামুড্যা উপজেলার ধানকাঠি ও ইসলামপুর ইউনিয়নে নির্বাচনী প্রচারণা করছেন বলে শরীয়তপুর-৩ আসনের সংসদ সদস্য নাহিম রাজ্জাকের বিরুদ্ধে অভিযোগ উঠেছে। এসব এলাকায় আওয়ামীলীগের দলীয় প্রতিক (নৌকা) না থাকায় নিজের সমর্থিত চেয়ারম্যান প্রার্থীদের পক্ষে ভোট চাইছেন বলে অভিযোগ করেছেন ধানকাঠি ইউপি নির্বাচনে চেয়ারম্যান প্রার্থী ও জেলা আওয়ামীলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক আবদুর রাজ্জাক পিন্টু (আনারস) এবং ইসলামপুর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান প্রার্থী ও ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সাবেক সাধারন সম্পাদক দ্বীন মোহাম্মদ দুলাল মাদবর (ঘোড়া) মার্কার প্রার্থী। তবে এমপি ভোট চাওয়ার কথা অস্বীকার করছেন। রিটার্নিং অফিসার বলছেন, এমপির সাথে কথা বলে ব্যবস্থা নিবেন। জেলা প্রশাসক বলছেন রিটানিং অফিসারকে জানাতে।

ধানকাঠি ইউনিয়নের চেয়ারম্যান প্রার্থী আবদুর রাজ্জাক পিন্টু ও ইসলামপুরের দ্বীন মোহাম্মদ দুলাল মাদবর এবং সরেজমিন ঘুরে জানা গেছে, আগামী ২৬ ডিসেম্বর চতুর্থধাপের ইউপি নির্বাচনে শরীয়তপুরের ডামুড্যা উপজেলার ৭টি ইউনিয়নে আওয়ামীলীরে দলীয় প্রতিক নৌকা ছাড়া নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে। কিন্তু সোমবার (১৩ ডিসেম্বর) দিনভর শরীয়তপুর-৩ আসনের সংসদ সদস্য নাহিম রাজ্জাক ব্যক্তিগতভাবে ধানকাঠি ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে ঘোড়া প্রতিকের চেয়ারম্যান প্রার্থী ও ডামড্যা উপজেলা যুবলীগের সহ-সভাপতি গোলাম মাওলা রতন ও ইসলামপুরে চশমা প্রতিকের প্রার্থী ও ইউনিয় আওয়ামীলীগের সভাপতি আবুল হোসেন মোল্লার পক্ষে তাদের এলঅকার বিভিন্ন বাড়িতে বাড়িতে গিয়ে পথসভা করেছেন। নাহিম রাজ্জাকের কথায় এই অন্যান্য যেসকল প্রার্থীরা তাদের মনোনয়নপত্র প্রত্যাহার করেছেন, তাদের বাড়িতে গিয়ে তাদের নির্বাচনী মাঠে নামানোর জন্য কাজ করার জন্য নির্দেশ দেন।তিনি সোমবার দুপুরে ধানকাঠি ইউনিয়নের গোলাম মাওলা রতনের বাড়িতে পথসভা করেছেন। সেখানে দলীয় নেতাকর্মীসহ ব্যক্তিগত কর্মকর্তা কর্মচারী ছিলেন। বিওকেলে ইসলামপুর ইউনিয়নে নোয়াব আলী খান এর বাড়িতে চশমা মার্কার প্রার্থী আবুল হোসেন মোল্যার পক্ষে ভোট প্রার্থনা করেছেন বলে প্রতিদ্ব›দ্বী প্রার্থী দুলাল মাদবর অভিযোগ করেছেন।

এ ব্যাপারে ধানকাঠি ইউনিয়নের চেয়ারম্যান প্রার্থী আবদুর রাজ্জাক পিন্টু বলেন, শরীয়তপুর-৩ আসনের সংসদ সদস্য নাহিম রাজ্জাক ধানকাঠি ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে আমার প্রতিদ্ব›দ্বী প্রার্থী গোলাম মাওলা রতনের ঘোড়া মার্কার পক্ষে বিভিন্ন গ্রামে গিয়ে আচরণবিধি লঙ্ঘন করে পথসভা ও উঠান বৈঠক করছে। এতে সাধারন ভোটাররা চরম বিভ্রান্তির মধ্যে পড়ছে। তিনি তাঁর ব্যক্তিগত প্রাডো গাড়ি (ঢাকা মেট্টো ঘ ১৩-৪৯১০) ও কর্মকর্তা-কর্মচারীসহ নেতা কর্মীদের সাথে নিয়ে এলাকায় ঘুরে ঘুরে ভোট চাইছেন। প্রধানমন্ত্রী ও নির্বাচন কমিশনের কাছে এই বিষয়ে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য জোর দাবি জানাচ্ছি।

ইসলামপুর ইউনিয়নের চেয়ারম্যান প্রার্থী দ্বীন মোহাম্মদ দুলাল মাদবর বলেন, শরীয়তপুর-৩ আসনের সংসদ সদস্য নাহিম রাজ্জাক ধানকাঠি ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে আমার প্রতিদ্ব›দ্বী চশমা মার্কার চেয়ারম্যান প্রার্থী আবুল হোসেন মোল্যার পক্ষে নোয়াব আলী খানের বাড়ি পথসভা করে ভোট চাইছেন। এটা আচরন বিধি লংঘনের শামিল।

এ ব্যাপারে রিটানিং অফিসার ও ডামুড্যা উপজেলা নির্বাচন অফিসার গোলাম মোস্তফা বলেন, আমি মৌখিক অভিযোগ পেয়েছি। লিখিত অভিযোগ পেলে ব্যবস্থা নিব। আমি এমপির সাথে কথা বলেছি। তিনি বলেছেন, “আজকে বিকেলেল মধ্যে ঢাকা চলে যাবেন”।

জেলা প্রশাসক মো. পারভেজ হাসান বলেন, এ বিষয়ে রিটানিং অফিসারকে জানাতে হবে। তিনি ব্যবস্থা নিবেন।

শরীয়তপুর-৩ আসনের সংসদ সদস্য নাহিম রাজ্জাক বলেন, আমি শান্তিপূর্ন ভোট গ্রহণের জন্য কথা বলছি। কোনো প্রার্থীর পক্ষে ভোট চাইছি এটা প্রমান দিতে বলেন।

সর্বশেষ