আগামীকাল শুরু হচ্ছে জাতীয় এসএমই মেলা ২০২১

0
41

আগামীকাল শুরু হচ্ছে জাতীয় এসএমই মেলা ২০২১

 

জাতীয় এসএমই পণ্য মেলা উপলক্ষ্যে রাষ্ট্রপতির বাণী   

 

ঢাকা ৪  ডিসেম্বর ২০২১ :

 

রাষ্ট্রপতি মোঃ আবদুল হামিদ আগামীকাল ৫ ডিসেম্বর ‘জাতীয় এসএমই পণ্য মেলা-২০২১’ উপলক্ষ্যে নিম্নোক্ত বাণী প্রদান করেছেন :

“ক্ষুদ্র ও মাঝারি শিল্প ফাউন্ডেশন (এসএমই ফাউন্ডেশন) ‘জাতীয় এসএমই পণ্য মেলা ২০২১’ আয়োজন করছে জেনে আমি আনন্দিত। এ উপলক্ষ্যে আমি মেলায় অংশগ্রহণকারী উদ্যোক্তা ও প্রতিষ্ঠানসহ সংশ্লিষ্ট সকলকে জানাই আন্তরিক শুভেচ্ছা ও অভিনন্দন।

উন্নত সমৃদ্ধ বাংলাদেশ বিনির্মাণ ও জাতীয় অর্থনীতির চালিকাশক্তি হিসেবে এসএমই’র গুরুত্ব অপরিসীম। এসএমই খাতের উন্নয়নের মাধ্যমেই পৃথিবীর বিভিন্ন দেশ আজ শিল্পোন্নত এবং এর মাধ্যমে অর্থনৈতিক উন্নয়নে সাফল্য অর্জন করেছে। সরকার বাংলাদেশকে ২০৪১ সালের মধ্যে উন্নত দেশে রূপান্তরিত করতে ব্যবসা-বাণিজ্যের প্রসারসহ বিনিয়োগ বৃদ্ধিতে বিভিন্ন কর্মসূচি বাস্তবায়ন করছে। এ লক্ষ্য অর্জনে দেশের বিপুল শ্রমশক্তিকে উৎপাদনমুখী কর্মকাণ্ডে সম্পৃক্ত করতে হবে। তৃণমূল পর্যায়ে গড়ে ওঠা দেশীয় কাঁচামাল নির্ভর শ্রমঘন ক্ষুদ্র ও মাঝারি শিল্প কারখানাগুলো কর্মসংস্থান সৃষ্টি, দারিদ্র্য দূরীকরণ ও সামাজিক বৈষম্য নিরসনে বিশেষ অবদান রাখছে। দেশের শক্তিশালী অর্থনীতির জন্য ক্ষুদ্র ও মাঝারি শিল্প বিকাশের এই ধারা অব্যাহত রাখা খুবই জরুরি বলে আমি মনে করি।

এসএমই শিল্প প্রতিষ্ঠানে উৎপাদিত পণ্য দেশের চাহিদা মিটিয়ে এখন বিদেশেও রপ্তানি হচ্ছে। বর্তমান প্রতিযোগিতামূলক বিশ্ববাজারে টিকে থাকার বিষয়টি পণ্যের গুণগত মান ও বিপণন কৌশলের উপর অনেকাংশে নির্ভর করে। জাতীয় এসএমই পণ্য মেলা উৎপাদনকারী এবং ক্রেতা ও বিক্রেতাদের মধ্যে সংযোগ স্থাপন করবে, যা পণ্য উৎপাদন ও বিপণনের আধুনিক কলাকৌশলের সাথে তাদের পরিচয় করিয়ে দিতে সহায়ক হবে। বাংলাদেশের প্রেক্ষাপটে এসএমই শিল্পের সম্ভাবনা খুবই উজ্জ্বল। আমি আশা করি, এ সম্ভাবনাকে কাজে লাগাতে এসএমই পণ্য মেলা কার্যকর ভূমিকা রাখবে।

আমি ‘জাতীয় এসএমই পণ্য মেলা-২০২১’ এর সর্বাঙ্গীণ সাফল্য কামনা করছি।

জয় বাংলা।

খোদা হাফেজ, বাংলাদেশ চিরজীবী হোক।”

 

জাতীয় এসএমই পণ্য মেলা উপলক্ষ্যে প্রধানমন্ত্রীর বাণী

 

ঢাকা ৪  ডিসেম্বর ২০২১ :

 

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা আগামীকাল ৫ ডিসেম্বর ‘জাতীয় এসএমই পণ্য মেলা-২০২১’ উপলক্ষ্যে নিম্নোক্ত বাণী প্রদান করেছেন :

“বাংলাদেশ মাইক্রো, ক্ষুদ্র ও মাঝারি শিল্পের উন্নয়নে ক্ষুদ্র ও মাঝারি শিল্প ফাউন্ডেশন (S.M.E FOUNDATION) প্রতিবছরের মতো এবারও ‘৯ম জাতীয় এসএমই পণ্য মেলা ২০২১’ আয়োজন করেছে জেনে আমি অত্যন্ত আনন্দিত। এ উপলক্ষ্যে আমি মেলার সংশ্লিষ্টদের অভিনন্দন ও ধন্যবাদ জানাই।

এসএমই খাত শ্রমঘন শিল্পখাত। স্বল্পপুঁজি বিনিয়োগ করে এ খাতে বিপুল পরিমাণ কর্মসংস্থানের সুযোগ সৃষ্টি হয়, যা সুষম সামাজিক উন্নয়ন নিশ্চিত করতে গুরুত্বপূর্ণ অবদান রাখতে পারে। বর্তমান আওয়ামী লীগ সরকার মাইক্রো, ক্ষুদ্র ও মাঝারি শিল্পের বিকাশ, টেকসই শিল্পায়ন এবং উন্নয়ন ত্বরান্বিত করতে নিরলসভাবে কাজ করে যাচ্ছে। এ খাতের গুরুত্ব বিবেচনা করে এসএমই নীতিমালা ২০১৯ প্রণয়ন করা হয়েছে। জাতীয় শিল্পনীতি ও এসএমই নীতিমালার সফল বাস্তবায়নের মাধ্যমে দেশের গ্রামে গঞ্জে বা তৃণমুল পর্যায় শিল্প কারখানা গড়ে উঠবে ও বিদ্যমান এসএমই ক্লাস্টারসমূহ আরো গতিময় হবে। রূপকল্প ২০২১, এসডিজি ২০৩০ এবং রূপকল্প ২০৪১ অর্জনে এসএমই খাত গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখছে বলে আমি বিশ্বাস করি।

এসএমই পণ্যের বাজারজাতকরণে এসএমই পণ্য মেলা গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখে। এই মেলা দেশের বিভিন্ন প্রান্তে ছড়িয়ে থাকা মাইক্রো, ক্ষুদ্র ও মাঝারি শিল্প উদ্যোক্তাদের তৈরি দেশীয় পণ্যের পরিচিতি ও চাহিদা বাড়াবে। নতুন শিল্প স্থাপন, কর্মসংস্থান সৃষ্টি এবং সামগ্রিক অর্থনীতিতে এ মেলা ইতিবাচক ভূমিকা রাখবে। এসএমই খাতে পুরুষের পাশাপাশি নারী উদ্যোক্তাদের ব্যাপক অংশগ্রহণ ও দেশের অর্থনৈতিক উন্নয়নে অত্যন্ত প্রশংসনীয় অবদান রাখছে।

করোনা অতিমারিতে সারা বিশ্বের মতো বাংলাদেশের এসএমই উদ্যোক্তারাও বিভিন্নভাবে ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছেন। এজন্য বর্তমান সরকার এসএমই উদ্যোক্তাদের জন্য আর্থিক প্রণোদনা প্যাকেজ ঘোষণা করেছে এবং বাস্তবায়ন করে আসছে। তবে করোনায় ক্ষতিগ্রস্ত ক্ষুদ্র ও মাঝারি শিল্প উদ্যোক্তাদের পাশে দাঁড়াতে এবং অর্থনীতির চাকা সচল রাখতে আসুন আমরা বেশি বেশি দেশি পণ্য ক্রয় করি এবং ব্যবহার করি।

সমৃদ্ধ ও টেকসই অর্থনীতির ভিত গড়তে হলে দেশে শ্রমঘন ও স্বল্পপুঁজির এসএমই উদ্যোক্তা তৈরি করা প্রয়োজন। ব্যবসা বাণিজ্যের প্রসারসহ এসএমই উদ্যোক্তাদের এগিয়ে আসার উপযুক্ত পরিবেশ গড়ে তুলতে সরকার বদ্ধপরিকর। দেশের তরুণ-যুবসমাজকে দক্ষ জনশক্তিতে রূপান্তর করা ও তাদের কর্মসংস্থানের সুযোগ বৃদ্ধিকরণে এসএমই খাত ও জাতীয় এসএমই মেলা অগ্রণী ভূমিকা রাখছে। এভাবেই গড়ে উঠবে সর্বকালের সর্বশ্রেষ্ঠ বাঙালি জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের স্বপ্নের সোনার বাংলাদেশ, ইনশাহআল্লাহ।

আমি ‘জাতীয় এসএমই পণ্য মেলা-২০২১’ এর সার্বিক সাফল্য কামনা করি।

জয় বাংলা, জয় বঙ্গবন্ধু

বাংলাদেশ চিরজীবী হোক।”

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here