বাংলাদেশকে মেধাশূন্য করতেই বুদ্ধিজীবীদের হত্যা : খাদ্যমন্ত্রী

বাংলাদেশকে মেধাশূন্য করতেই বুদ্ধিজীবীদের হত্যা : খাদ্যমন্ত্রী



নওগাঁ ১৪ ডিসেম্বর ২০২১ :

পরাজয় নিশ্চিত জেনে বাংলাদেশকে মেধাশূন্য করতে ১৯৭১ সালে বাঙালি বুদ্ধিজীবীদের হত্যা করেছিল পাক হানাদারবাহিনীর দোসর আলবদর, আল শামসবাহিনী বলে মন্তব্য করেছেন খাদ্যমন্ত্রী সাধন চন্দ্র মজুমদার।

আজ নওগাঁ জেলা আওয়ামী লীগের দলীয় কার্যালয়ে শহিদ বুদ্ধিজীবী দিবস উপলক্ষ্যে আয়োজিত আলোচনা সভা শেষে সাংবাদিকদের এসব কথা বলেন তিনি।

মন্ত্রী বলেন, তারা এই হত্যাকাণ্ডের মধ্য দিয়ে ভেবেছিল বাংলাদেশ আর কখনো মাথা উঁচু করে দাঁড়াতে পারবেনা। আবার পাকিস্তানের সাথে হাত মিলিয়ে এই বাংলাদেশকে চলতে হবে। কিন্তু তারা বুঝতে পারেনি বাঙালি বীরের জাতি। ভাষাআন্দোলনের মাধ্যমে বাংলা ভাষাকে মাতৃভাষার মর্যাদায় প্রতিষ্ঠিত করেছে এই বাঙালি।বাংলাদেশের মানুষ জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবের আদর্শ ধারণ করে একেকটি সৈনিক পরিণত হয়েছে বলে উল্লেখ করেন তিনি।

সাধন চন্দ্র মজুমদার বলেন, বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর  রহমান ছিলেন অবিসংবাদিত নেতা। তিনি আন্দোলন-সংগ্রামের মধ্য দিয়ে বাঙালি জাতিকে মুক্তি সংগ্রামের জন্য প্রস্তুত করেন। নানা চড়াই-উতরাই পেরিয়ে ১৯৭১ সালের ২৬ মার্চ তিনি স্বাধীনতার ঘোষণা দেন। এসময় তিনি বুদ্ধিজীবীদের আদর্শ অনুসরণ করে অসাম্প্রদায়িক এবং মুক্তিযুদ্ধের চেতনাভিত্তিক সুখি সমৃদ্ধ সোনার বাংলা গড়ার আহ্বান জানান।
এসময় জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি আব্দুল মালেক, সদর আসনের সংসদ সদস্য ব্যারিস্টার নিজাম উদ্দিন জলিল জন, জেলা আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি নির্মল কৃষ্ণ সাহা, সাংগঠনিক সম্পাদক জাভেদ জাহাঙ্গীর সোহেল ও বিভাস মজুমদার গোপালসহ আওয়ামী লীগের অঙ্গ ও সহযোগী সংগঠনের নেতাকর্মীরা উপস্থিত ছিলেন।

এর আগে শহিদ বুদ্ধিজীবী দিবস উপলক্ষ্যে জাতীয় পতাকা এবং কালো পতাকা উত্তোলন, বঙ্গবন্ধুসহ জাতীয় চার নেতার প্রতিকৃতিতে পুষ্পমাল্য অর্পণ ও শহিদদের স্মৃতির প্রতি শ্রদ্ধা জানিয়ে এক মিনিট নিরবতা পালন করা হয়।

সর্বশেষ